নারী বন্দিদের জন্য বিকল্প শাস্তির সুপারিশ

বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক
বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৮:৪৯ পিএম, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২১

নারী বন্দিদের জন্য বিকল্প শাস্তি হিসেবে প্রবেশন, শর্তাধীন মুক্তি, জরিমানা, সম্পত্তি বাজেয়াপ্তকরণ, গৃহবন্দিসহ আলাদা কারাগার স্থাপনের সুপারিশ করছেন আইন বিশেষজ্ঞরা।

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের আয়োজনে ‘অলটারনেটিভস টু ইমপ্রিজনমেন্ট উইথ স্পেশাল রেফারেন্স টু উইমেন প্রিজনারস: লিগ্যাল অ্যান্ড প্র্যাক্টিক্যাল অ্যাসপেক্টস ইন বাংলাদেশ’ শীর্ষক সেমিনারে এ প্রস্তাব করেন তারা।

এ সময় প্রবেশন আইনের যথাযথ ব্যবহার করার প্রতি গুরুত্বারোপ করা হয়। নারীর কারাবাসের কারণে যেন তার সন্তানের কোনো ক্ষতি না হয় সেদিকেও নজর দেওয়ার দাবি জানান বক্তারা

বৃহস্পতিবার (১৬ সেপ্টেম্বর) বিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রকৌশল অনুষদের কনফারেন্স রুমে এ সেমিনারের আয়োজন করা হয়।

আইন বিভাগের সভাপতি অধ্যাপক ড. হাসিবুল আলম প্রধানের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. গোলাম সাব্বির সাত্তার। সেমিনার সঞ্চালনা করেন ড. শাহীন জোহরা ও সুমাইয়া রহমান ।

প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন আইন বিভাগের অধ্যাপক আবু নাসের মো. ওয়াহিদ ও সহকারী অধ্যাপক কে এম এস তারেক। উপস্থাপিত প্রবন্ধের ওপর আলোচনা করেন আইন বিভাগের প্রফেসর সাইদা আঞ্জু ও রাজশাহী জেলার সমাজসেবা অফিসের উপ-পরিচালক মোসা. হাসিনা মমতাজ।

jagonews24

সেমিনারে বক্তারা বলেন, আইন যেন প্রথমবারের অপরাধী ও নিয়মিত অপরাধীদের একই রকম বিচারের মুখোমুখি না করে সে ব্যবস্থা করতে হবে। এর পাশাপাশি নারী বন্দিদের জন্য প্রণীত ‘কারাগারে আটক সাজাপ্রাপ্ত নারীদের বিশেষ সুবিধা আইন, ২০০৬’ আইনটি যথাযথভাবে প্রয়োগ করার জন্য সংশ্লিষ্টদের প্রতি আহ্বান জানান তারা।

এ সময় বিশেষ অতিথি হিসেবে ভার্চুয়ালি বক্তব্য রাখেন বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের সদস্য অধ্যাপক ড. বিশ্বজিৎ চন্দ্র। সম্মানীত অতিথি উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের দুই উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. চৌধুরী মো. জাকারিয়া ও অধ্যাপক ড. সুলতান-উল ইসলাম, আইন বিভাগের ডিন অধ্যাপক ড. এম আহসান কবির, সুপ্রিমকোর্টের অ্যাডভোকেট নাহিদ সুলতানা জুথি।

সালমান শাকিল/এসআর/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]