ঘূর্ণিঝড় সিত্রাং

ঢাকা কলেজে ছাত্রাবাস-কোয়ার্টারে পানি, ভাঙলো গাছ-দেওয়াল

ক্যাম্পাস প্রতিবেদক
ক্যাম্পাস প্রতিবেদক ক্যাম্পাস প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১২:৪৯ পিএম, ২৫ অক্টোবর ২০২২
ঢাকা কলেজে ভেঙে পড়েছে গাছ

ঘূর্ণিঝড় সিত্রাংয়ের প্রভাবে রাজধানীর ঢাকা কলেজে ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বেশ। গাছ পড়ে ভেঙে গেছে নতুন নির্মাণ করা প্রাচীর, ল্যাম্পপোস্ট ও বৈদ্যুতিক খুঁটি। উপড়ে পড়েছে প্রায় ১০টির অধিক বড় গাছ।

এর মধ্যে আবার কোয়ার্টারে ঢুকে পড়েছে পানি। এতে করে বাসার ভেতর থাকা জিনিসপত্র নষ্ট হয়েছে। এছাড়া ছাত্রাবাসের সামনে পানি জমে তৈরি হয়েছে জলাবদ্ধতা।

মঙ্গলবার (২৫ অক্টোবর) সকালে সরেজমিনে ঢাকা কলেজের প্রশাসনিক ও একাডেমিক এরিয়া, আবাসিক ছাত্রাবাস, কর্মচারী কোয়ার্টার ও খেলার মাঠে দেখা গেছে এমন চিত্র।

এর মধ্যে আক্তারুজ্জামান ইলিয়াস ছাত্রাবাস, দক্ষিণায়ন ছাত্রাবাস, উত্তর ছাত্রাবাসের সামনে পানি জমে তৈরি হয়েছে জলাবদ্ধতার। শিক্ষার্থীদের ক্লাস-পরীক্ষাসহ অন্যান্য কাজে অংশ নিতে পানি ভেঙেই ছাত্রাবাস থেকে বের হতে দেখা যায়। সবচেয়ে বেশি ভোগান্তিতে পড়ছেন কর্মচারী কোয়ার্টারের ৯০ পরিবারের প্রায় এক হাজার সদস্য।

ঢাকা কলেজে ছাত্রাবাস-কোয়ার্টারে পানি, ভাঙলো গাছ-দেওয়াল

আবাসিক কর্মচারীদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, সারাদিনের বৃষ্টিতে তেমন কোনো সমস্যা না হলেও রাতে প্রচণ্ড বৃষ্টি ও বাতাসে ঘরের ভেতর পানি ঢুকে যায়। বাতাসে ঘরের ওপর ভেঙে পড়ে গাছের ডালপালা। ফলে সারারাত আতঙ্ক নিয়ে নির্ঘুম পানিবন্দি অবস্থায় রাত কাটাতে হয় কর্মচারীদের।

শিক্ষার্থীরা বলছেন, ঢাকা কলেজে পানি নিষ্কাশনের পর্যাপ্ত জায়গা না থাকায় এমন সমস্যা তৈরি হয়েছে। ভারি বৃষ্টি হলেই ঢালু জায়গা থেকে নিচু জায়গায় পানি গড়িয়ে জলাবদ্ধতাসহ নানা সমস্যার তৈরি হয়। এই সমস্যা সমাধানে কলেজ প্রশাসনকে এগিয়ে আসতে হবে।

ঢাকা কলেজের কর্মচারী দুলাল মিয়া বলেন, সন্ধ্যার আগে থেকেই পানি জমতে শুরু করে। আমরা সারারাত আতঙ্কে রাত কাটিয়েছি। টিনশেড ঘরের ওপর গাছ ভেঙে পড়েছে অনেকের। ঘরের ভেতরে পানি ঢুকে সবকিছু লণ্ডভণ্ড হয়ে গেছে। পরিবার-পরিজন নিয়ে আমরা খুব খারাপ অবস্থার মধ্যে রয়েছি।

ঢাকা কলেজে ছাত্রাবাস-কোয়ার্টারে পানি, ভাঙলো গাছ-দেওয়াল

ঢাকা কলেজের অফিস সহায়ক মশিউর রহমান বলেন, স্টাফ কোয়ার্টারে এমন কোনো ঘর বাকি নেই যেখানে পানি ওঠেনি। সারারাত আমরা কেউ ঘুমাতে পারিনি। সবাই ঘরের পানি নিয়ে দুশ্চিন্তায় ছিলাম। ঘুম খাওয়া-দাওয়া কিছুই নেই। আর যদি বৃষ্টি না হয় তবুও পরিস্থিতি স্বাভাবিক হতে আরও সময় লাগবে। আর যদি বৃষ্টি হয় তাহলে আমাদের আর কোনো উপায় থাকবে না।

তবে ক্ষয়ক্ষতি নিরূপণ করে দ্রুতই সমাধানের ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন ঢাকা কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক মোহাম্মদ ইউসুফ।

তিনি বলেন, আমরা পরিদর্শন করে ক্ষয়ক্ষতি নিরূপণ করে দ্রুত কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণ করবো। ঝড়ে আমাদের ভালো ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। চেষ্টা করছি দ্রুতই এটি নিরূপণ করে ব্যবস্থা নেওয়ার।

নাহিদ হাসান/জেডএইচ/জেআইএম

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।