ঝালকাঠিতে ঝড়ে লঞ্চ টার্মিনালের পন্টুন ক্ষতিগ্রস্ত

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি ঝালকাঠি
প্রকাশিত: ০৬:৫৫ পিএম, ১৭ এপ্রিল ২০১৮

ঝালকাঠিতে কাল বৈশাখী ঝড়ে জেলা লঞ্চ টার্মিনালের পন্টুনসহ ঢাকাগামী সুন্দরবন-১২ নামের একটি লঞ্চ নদীতে ভেসে যায়। এ সময় লঞ্চঘাট এলাকার প্রায় ২০টি দোকান ও বসত ঘর ভেঙ্গে ক্ষতিগ্রস্ত হয়। মঙ্গলবার দুপুর ৩টার দিকে মাত্র ৫ মিনিটের ঝড়ের তাণ্ডবে এ ক্ষয়ক্ষতি হয় বলে জানা যায়।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, প্রচণ্ড বেগে ঝড় শুরু হলে পন্টুনের সঙ্গে বাঁধা লঞ্চটিকে দড়ি ছিড়ে নদীর ওপারে ভাসিয়ে নিয়ে যায়। ঝড়ে ঘাটটি ওলট পালট হয়ে বিধ্বস্থ হয়। তবে এতে কেউ হতাহত হয়নি। এরপর দ্বিতীয় দফায় বিকেল সাড়ে তিন টার দিকে আবার প্রচণ্ড গতিতে কাল বৈশাখী ঝড় শুরু হয়। এতে জেলার নলছিটি ও রাজাপুর উপজেলাতে অর্ধ শতাধিক বিভিন্ন প্রজাতির গাছ উপড়ে পড়ে যায়। বসতঘরে ক্ষয়ক্ষতিসহ বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। তবে ঝড়ের তীব্রতা থেমে গেলেও জেলা জুড়ে এখনও বৈবি আবহাওয়া বিরাজ করছে। থেমে থেকে দমকা বাতাসসহ বৃষ্টি অব্যাহত রয়েছে।

Jhalakati

সুন্দরবন-১২ লঞ্চের মাষ্টার জামাল হোসেন বলেন, প্রচণ্ড ঝড়ো হাওয়া শুরু হলে আমি লঞ্চের সুকান ধরে বসি। কিন্তু বাতাসে পন্টুনের শিকল ছিড়ে লঞ্চসহ নদীতে ভেসে যায়। আমি লঞ্চটি পন্টুনসহ নিয়ন্ত্রণে রেখে নদীর ওপারে নিয়ে যাই। ঘাটের গ্যাংওয়ে নদীতে ডুবে গেছে। আমাদের দুটি টিকিট বুকিং কাউন্টার ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

এদিকে ঝালকাঠি জেলা প্রশাসক মো. হামিদুল হক, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক খান সাইফুল্লাহ পনির ও পৌর মেয়র লিয়াকত আলী তালুকদার প্রশাসনের কর্মকর্তারা ঝড়ে বিধ্বস্থ ঝালকাঠি লঞ্চঘাট পরিদর্শন করেছেন।

মো.আতিকুর রহমান/আরএ/এমএস

আপনার মতামত লিখুন :