কার্ড দেয়ার কথা বলে গৃহবধূকে ধর্ষণ করলো ইউপি সদস্য

উপজেলা প্রতিনিধি মির্জাপুর (টাঙ্গাইল)
প্রকাশিত: ০৯:৪৯ পিএম, ১৭ এপ্রিল ২০১৮ | আপডেট: ০৯:৫০ পিএম, ১৭ এপ্রিল ২০১৮
কার্ড দেয়ার কথা বলে গৃহবধূকে ধর্ষণ করলো ইউপি সদস্য
ফাইল ছবি

টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে গৃহবধূকে ধর্ষণের অভিযোগে এক ইউপি সদস্যের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে মির্জাপুর উপজেলার বহুরিয়া ইউনিয়নের কোট বহুরিয়া গ্রামে।

এ ঘটনায় নির্যাতিত গৃহবধূ ফাতেমা বেগম বাদী হয়ে ইউপি সদস্য ইদ্রিস আলীর (৪০) বিরুদ্ধে টাঙ্গাইলের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে ধর্ষণ মামলা করেছেন।

মামলার বিবরণ জানা গেছে, গত ১১ এপ্রিল রাত আনুমানিক সাড়ে ৮টার দিকে বহুরিয়া ইউনিয়নের কোট বহুরিয়া গ্রামের আমির উদ্দিনের স্ত্রীকে ভিজিএফ কার্ড দেয়ার কথা বলে বহুরিয়া ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ডের সদস্য ইদ্রিস আলী বাড়ির পূর্বপাশে নদীর কাছে ডেকে নিয়ে যায়। সেখানে ওই গৃহবধূকে ধর্ষণ করা হয়। এ সময় তার চিৎকারে আশপাশের লোকজন এগিয়ে আসলে ধর্ষক ইদ্রিস আলী পালিয়ে যায়।

ফাতেমার দেবর শহীদ বলেন, ১০/১২ বছর আগে আমার বড় ভাই আমির উদ্দিন বাড়ি থেকে সদরের বাইমহাটী এলাকায় ভাড়া বাসায় বসবাস করেন। ভাই আমির উদ্দিন দুই বছর ধরে জটিল রোগে ভুগছেন। ভাই অসুস্থ হওয়ার পর ভাবি তাকে নিয়ে বাড়ি চলে আসেন। বাড়ি এসে ভাবি তার স্বামীর অংশ বুঝে নেয়ার জন্য স্থানীয় মেম্বার উদ্রিস আলীসহ গ্রামের মাতব্বরদের সহযোগিতায় চেয়ে আসছেন।

অভিযুক্ত ইউপি সদস্য ইদ্রিস আলী বলেন, অভিযোগকারীর সঙ্গে তার দেবরদের জমি সংক্রান্ত বিরোধ রয়েছে। সেই বিরোধ মীমাংসায় তিনি সন্তুষ্ট হতে না পেরে উল্টো আমার বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ এনে মামলা করেছেন।

মির্জাপুর থানা পুলিশের ওসি এ কে এম মিজানুল হক বলেন, আমার জানা মতে ধর্ষণের অভিযোগ নিয়ে ওই মহিলা থানায় আসেননি। তবে ট্রাইব্যুনালে ধর্ষণ মামলা করেছে বলে শুনেছি।

এস এম এরশাদ/এএম/এমএস