জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের কর্মচারীকে আইনজীবীদের মারধর

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি দিনাজপুর
প্রকাশিত: ০৮:৪৪ পিএম, ২৪ মে ২০১৮

দিনাজপুর জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের কর্মচারী আমিনুল ইসলামকে মারধর করেছেন জেলা আইনজীবীরা। মারধরে আহত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন তিনি।

এ ঘটনায় তৃতীয় ও চতুর্থ শ্রেণির কর্মচারীরা বিক্ষোভসহ কর্মবিরতি পালন করেছে। সেই সঙ্গে এ ঘটনার বিচার না হলে আগামী ২৭ মে রোববার থেকে আরও বৃহত্তর কর্মসূচি দেয়ার হুঁশিয়ারি দিয়েছেন তৃতীয় ও চতুর্থ শ্রেণির কর্মচারীরা।

বৃহস্পতিবার দুপুরে আইনজীবী মাহফুজুর রহমান খান বিপুল, রবিউল ইসলাম রবি, সুমন সরকার, সাদেক হোসেনসহ ১০-১২ আইনজীবী আমিনুল ইসলামের কাছে এডিএম মো. নুরুজ্জামান অফিসে আছেন কিনা জানতে চান।

আমিনুল বলেন, এডিএম স্যার অফিসে নেই। অফিসে নেই কেন, কোথায় গেছেন? এসব নিয়ে কথা কাটাকাটি হয়। একপর্যায়ে আইনজীবী মাহফুজুর রহমান খান বিপুল ক্ষিপ্ত হয়ে আমিনুল ইসলামকে মারধর করেন। এতে তিনি চোখে আঘাত পান। পরে তাকে আহত অবস্থায় দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

এ খবর জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের অন্যান্য কর্মচারীদের মাঝে ছড়িয়ে পড়লে কর্মচারীরা একত্রিত হয়ে অফিসের কাজ বন্ধ করে দিয়ে বিক্ষোভ শুরু করে। বিক্ষোভ শেষে জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের প্রধান ফটকে অবস্থান নেয় কর্মচারীরা।

খবর পেয়ে অন্যান্য সরকারি অফিসের তৃতীয় ও চতুর্থ শ্রেণির কর্মচারীরা জেলা প্রশাসক কার্যালয়ে ছুটে যান এবং সবাই বিক্ষোভে অংশগ্রহণ করে। কর্মচারীরা ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত করে এর সঙ্গে জড়িত আইনজীবীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানান।

বাংলাদেশ কালেক্টরেট কর্মচারী সমিতি দিনাজপুর জেলা শাখার সভাপতি মো. আবু তাহের, সাধারণ সম্পাদক মো. এনায়েত হোসেন ও বাংলাদেশ চতুর্থ শ্রেণির কর্মচারী সমিতি দিনাজপুর শাখার সাধারণ সম্পাদক মো. ফরিদ হোসেন জানান, আগামী ২৭ মে রোববার পর্যন্ত জেলা প্রশাসক কার্যালয়ে কর্মচারীরা কর্মবিরতি পালন করবেন। রোববারের মধ্যে এ ঘটনায় জড়িত আইনজীবীদের বিচার করা না হলে বৃহত্তর আন্দোলনের ডাক দেয়া হবে।

এ ব্যাপারে জানতে জেলা আইনজীবী রবিউল ইসলামের ফোনে কল দিলে তিনি ফোন রিসিভ করেননি।

এদিকে অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট (এডিএম) মো. নুরুজ্জামানের কাছে এ বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি কোনো কিছু বলতে রাজি হননি।

এমদাদুল হক মিলন/এএম/জেআইএম

আপনার মতামত লিখুন :