বিদ্যালয়ের কী করুণ দশা!

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি রাজবাড়ী
প্রকাশিত: ১১:২০ এএম, ১৩ জুলাই ২০১৮

রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দি উপজেলার জামালপুর ইউনিয়নের খামার মাগুড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শ্রেণিকক্ষ সঙ্কটে গাছের নিচে শিক্ষার্থীদের পাঠদান করা হচ্ছে। জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা বলছেন শ্রেণিকক্ষ সঙ্কটের বিষয়টি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে। অনুমোদন পেলে পর্যায়ক্রমে বিদ্যালয়গুলোতে নতুন ভবন তৈরি করবেন।

বিদ্যালয়টিতে আসা-যাওয়ার যেমন ভালো রাস্তা নেই তেমনি পাঠদানের জন্য রয়েছে দুই রুম বিশিষ্ট একটি টিনশেড নড়বড়ে ঘর। এরমধ্যে এক রুমে চলে বিদ্যালয়ের দাফতরিক কার্যক্রম আর অন্য রুমে নেয়া হয় শুধুমাত্র ৫ম শ্রেণির ক্লাস। বাকি শিশু থেকে চতুর্থ শ্রেণি পর্যন্ত পাঠদান চলে গাছতলায়। সামান্য বৃষ্টি বা ঝড়ো বাতাসে বন্ধ থাকে পাঠদান। এছাড়া স্কুলের সামনের অংশেও রয়েছে জলাবদ্ধতা। নেই আসা-যাওয়ার কোনো রাস্তা।

RAJBARI2

শিক্ষার মান উন্নয়নে স্কুলে যাতায়াতের রাস্তাটি পাঁকা কিংবা ব্রিক সোলিং এবং স্কুলটিতে নতুন ভবন নির্মাণের দাবি জানিয়েছন শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও এলাকাবাসী।

সরজমিনে গিয়ে জানা যায়, খামার মাগুড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়টি ২০১৩ সালে সরকারি করা হয়। স্কুলটিতে ১২৬ জন শিক্ষার্থীর বিপরীতে ৪ জন শিক্ষক থাকলেও ক্লাস নিতে পারছেন না শ্রেণিকক্ষ সঙ্কটের কারণে।

খামার মাগুড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষক সিরাজুল ইসলাম মন্ডল জানান, স্কুলের ঘর ঝড়ে পড়ে যাওয়ার পর আর নতুন করে তৈরি করা হয়নি। এখন ক্লাস নেয়ার মতো পরিবেশ নেই। ৫ম শ্রেণির ক্লাসটা শুধু টিনশেড ঘরে নেয়া হয়। এই পরিবেশে শিক্ষার মান উন্নয়ন সম্ভব নয়।

RAJBARI2

বালিয়াকান্দি উপজেলা প্রকৌশলী সজল কুমার দত্ত ও উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ জানান, স্কুলটি তারা পরিদর্শন করেছেন, স্কুলটির অবস্থা খুবই খারাপ। আগামী দুই মাসের মধ্যে ভবনের কাজ শুরু করা হবে, যা প্রক্রিয়াধীন আছে। ভবন নির্মাণ হলে আর কোনো সমস্যা থাকবে না।

রাজবাড়ী জেলা সহকারী প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মো. আমিরুল ইসলাম জানান, জেলার বালিয়াকান্দি, পাংশা ও কালুখালী উপজেলার প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোর অনেক বিদ্যালয়ে শ্রেণিকক্ষ সঙ্কট রয়েছে। বিষয়টি কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে এবং অনলাইনেও দেয়া আছে। খামার মাগুড়া স্কুলটি নতুন সরকারিকরণ হয়েছে, অনুমোদন এলে পর্যায়ক্রমে বিদ্যালয়গুলোতে নতুন ভবন করা হবে।

রুবেলুর রহমান/এফএ/এমএস

আপনার মতামত লিখুন :