অফিস সহকারীর গলায় জুতার মালা পরালেন ছাত্রীরা

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি রাজবাড়ী
প্রকাশিত: ০৫:০৫ পিএম, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮

রাজবাড়ী আধুনিক সদর হাসপাতালের মধ্যে অবস্থিত নার্সিং ইনস্টিটিউটের অফিস সহকারী মো. রফিকুল ইসলামের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ তুলে তাকে অবরুদ্ধ ও গলায় জুতার মালা পরিয়েছেন ইনস্টিটিউটের ছাত্রীরা।

রোববার দুপুর আড়াইটার দিকে ছাত্রীরা লম্পট রফিকুল ইসলামকে অবরুদ্ধ করে উত্তম মাধ্যম দেন এবং জুতার মালা পরিয়ে দেন। এ ঘটনায় রাজবাড়ী সদর থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

ছাত্রীরা জানান, তাদের ইনস্টিটিউটের এক ছাত্রীর নাম ও ছবি ব্যবহার করে ফেসবুক আইডি খুলে ছাত্রীদের সঙ্গে সু-কৌশলে কথা বলতেন রফিকুল। এ সময় তিনি অনেক আপত্তিকর ভাষা ও আজেবাজে কথা বলতেন। হঠাৎ তারা বিষয়টি টের পেয়ে এবং এরসঙ্গে রফিকুলের সংশ্লিষ্টতা পেয়ে তাকে অবরুদ্ধ করেন। এক পর্যায়ে উত্তেজিত কিছু ছাত্রী ওই লম্পটকে চড় থাপ্পড়ও মারেন। এ সময় ছাত্রীরা তাকে ইনস্টিটিউট থেকে প্রত্যাহার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করেন।

ছাত্রীরা আরও জানান, তাদের স্টাইফিন (উপবৃত্তি) দেয়া হয় বছরে তিনবার। সেখান থেকেও বিভিন্ন অঙ্কের টাকা কেটে রাখেন রফিকুল ও হাউজ কিপার নিলুফা জাহান। প্রতিবাদ করলেই বিভিন্ন কারণ দেখিয়ে ভয় দেখান।

এছাড়া ইনস্টিটিউটের হাউজ কিপার নিলুফা জাহানের বিরুদ্ধেও রয়েছে বাজার ও মিলের টাকা আত্মসাতের বিভিন্ন অভিযোগ। মাসের প্রথমে মিলের টাকা জমা নিলেও মাসের মাঝে আবার টাকা নেন এবং কোনো ছাত্রী বাসায় গেলে তার মিল বন্ধ থাকে। কিন্তু মাস শেষে হিসাব করে টাকা বাঁচলে সে টাকা কখনও ফেরত দেন না বলেও অভিযোগ করেন ছাত্রীরা।

এ বিষয়ে রাজবাড়ীর সিভিল সার্জন ডা. মো. রহিম বক্স জানান, নার্সিং ইনস্টিটিউটের অফিস সহকারী মো. রফিকুল ইসলামের বিরুদ্ধে যে অভিযোগ উঠেছে সেটি তদন্তপূর্বক ব্যবস্থা নেয়া হবে।

রুবেলুর রহমান/এফএ/আরআইপি

আপনার মতামত লিখুন :