ফরিদপুরে ইলিশ ধরায় ২২ জেলের কারাদণ্ড

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি ফরিদপুর
প্রকাশিত: ০৭:২৩ পিএম, ১৩ অক্টোবর ২০১৮

মা ইলিশ রক্ষার অভিযানে ফরিদপুরে ২২ জেলের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। ফরিদপুর সদর ও সদরপুর উপজেলার পদ্মা-আড়িয়াল খাঁ নদে পৃথক অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করা হয়।

শুক্রবার ও শনিবার ভোরে অভিযান চালিয়ে তাদের আটকের পর বিভিন্ন মেয়াদে কারাদণ্ড দেয়া হয়। এ সময় বিপুল পরিমাণ কারেন্ট জাল ও ইলিশ উদ্ধার করা হয়। ইলিশগুলো স্থানীয় এতিমখানা ও মাদরাসায় প্রদান করা হয় এবং কারেন্ট জাল পুড়িয়ে ফেলা হয়।

স্থানীয় সূত্র জানায়, সরকারি নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে সদরপুর উপজেলা অংশের পদ্মা ও আড়িয়াল খাঁ নদীতে মা ইলিশ রক্ষায় ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান পরিচালনা করেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. কামরুল হাসান সোহাগ। অভিযান পরিচালনাকালে ১৭ জেলেকে আটক করা হয়। এ সময় ৬ হাজার মিটার কারেন্ট জাল ও ২০ কেজি ইলিশ উদ্ধার করা হয়। পরে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে প্রত্যেক জেলেকে এক মাস করে বিনাশ্রম কারাদণ্ড প্রদান করা হয়। এছাড়া কারেন্ট জাল পুড়িয়ে ফেলা হয় এবং ইলিশগুলো এতিমখানা ও মাদরাসায় প্রদান করা হয়।

এদিকে, চরভদ্রাসন উপজেলা অংশের পদ্মা নদীতে মা ইলিশ রক্ষা অভিযান চালিয়ে শনিবার দুপুরে ৬ হাজার মিটার কারেন্ট জাল উদ্ধার করেন উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা মালিক তানভির আহাম্মেদ। অভিযানের সময় জেলেরা পদ্মায় জাল ফেলে রেখে পালিয়ে যায়। এ সময় ১৩ কেজি ইলিশ উদ্ধার করা হয়। পরে এম কে ডাঙ্গী মাদরাসা ও এতিম খানায় ইলিশ প্রদান করা হয় এবং উদ্ধারকৃত কারেন্ট জাল আগুনে পুড়িয়ে ফেলা হয়।

অপরদিকে ফরিদপুর সদর উপজেলার পদ্মা নদী অংশে শুক্রবার বিকেলে ইলিশ রক্ষায় ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান পরিচালনা করেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট হাসান মো. হাফিজুর রহমান। এ সময় পাঁচ জেলেকে আটক করা হয়। পরে তাদের ভ্রাম্যমাণ আদালতে কারাদণ্ড দেয়া হয়। 

এএম/জেআইএম

আপনার মতামত লিখুন :