ইজতেমা ময়দানে সংঘর্ষের সময় প্রশাসনের কেউ প্রস্তুত ছিল না

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি গাজীপুর
প্রকাশিত: ০৭:৪৪ পিএম, ০৮ ডিসেম্বর ২০১৮

টঙ্গীতে ইজতেমা ময়দানে সংঘর্ষে হতাহতের ঘটনায় দায়ের করা মামলাগুলো তদন্ত শেষে দোষীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল। শনিবার বিকেলে টঙ্গীর ইজতেমা ময়দান পরিদর্শন ও তাবলিগের মুরব্বিদের সঙ্গে মতবিনিময় শেষে সাংবাদিকদের তিনি এ কথা বলেন।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ইজতেমায় মুসল্লিরা আসেন ইবাদতের জন্য, ধর্মীয় কাজে, তাবলিগের মেহনতের জন্য। এরা কীভাবে মারামারি করে? এজন্য প্রশাসনের কেউ প্রস্তুত ছিল না। প্রশাসনের লোকজনের সামনে জোর করে একটি পক্ষ ইজতেমা ময়দানে প্রবেশ করে। আমরা ভেবেছিলাম তারা ইজতেমা ময়দানে প্রবেশ করে প্রস্তুতি সভা করবে। কিন্তু তারা তা না করে ভাঙচুর করেন এবং এখানে যারা ছিলেন তাদের আহত করেন। এটা সত্যিই দুঃখজনক ঘটনা।

তিনি আরও বলেন, যেহেতু এখানে একটি হত্যাকাণ্ড হয়েছে, তিনজন সাথী মৃত্যুশয্যায় রয়েছে এবং বেশ কয়জন আহত হয়েছেন। এ জন্য থানায় ও আদালতে তিনটি মামলা হয়েছে। মামলাগুলো তদন্তের পরে যারা দোষী ব্যক্তি, যারা এই ঘটনা ঘটিয়েছে, যারা হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত তাদের আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হবে।

অপর এক প্রশ্নের জবাবে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, অবশ্যই ইজতেমা হবে। দুই পক্ষ আবার বসে তাদের মধ্যে যে ভুল বুঝাবুঝি হয়েছে তা ক্লিয়ার করবে এবং ইজতেমা আবার হবে এটা আমরা বিশ্বাস করি।

এ সময় মন্ত্রীর সঙ্গে সংসদ সদস্য জাহিদ আহসান রাসেল, জেলা প্রশাসক ড. দেওয়ান মুহাম্মদ হুমায়ুন কবীর, সিটি মেয়র মো. জাহাঙ্গীর আলম, পুলিশের মহাপরিদর্শক মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী, গাজীপুর মহানগর পুলিশ কমিশনার ওয়াই এম বেলালুর রহমানসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, গত ১ ডিসেম্বর টঙ্গী ইজতেমা ময়দানে তাবলিগ জামাতের দুই গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। এ ঘটনায় এক মুসল্লি নিহত ও দুই শতাধিক মুসল্লি আহত হন। এরপর থেকেই ইজতেমা ময়দান আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর নিয়ন্ত্রণে রয়েছে।

আমিনুল ইসলাম/আরএআর/জেআইএম

আপনার মতামত লিখুন :