আপা আমাকে মূল্যায়ন করবেন

উপজেলা প্রতিনিধি উপজেলা প্রতিনিধি মির্জাপুর (টাঙ্গাইল)
প্রকাশিত: ০৬:৩৯ পিএম, ০৯ জানুয়ারি ২০১৯

মির্জাপুর উপজেলা পরিষদের সাবেক মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান সালমা সালাম উর্মি সংরক্ষিত নারী আসনে এমপি প্রার্থী হওয়ায় দৌড়ে এগিয়ে রয়েছেন। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে টাঙ্গাইল-৭ মির্জাপুর নির্বাচনী আসনে আওয়ামী লীগের প্রার্থীর প্রচারণায় সরব ছিলেন তিনি।

এবারের নির্বাচনে মির্জাপুর আসনে আওয়ামী লীগের মনোনয়নপ্রত্যাশী হিসেবে দলীয় মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করে জমা দিয়েছিলেন। কিন্তু মনোনয়ন পাননি তিনি। ফলে দলীয় প্রার্থী মো. একাব্বর হোসেনের পক্ষে নৌকায় ভোট চেয়ে প্রচারণা চালান উর্মি।

বর্তমানে তিনি টাঙ্গাইল জেলা আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য ও মির্জাপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের মহিলা বিষয়ক সম্পাদকের দায়িত্বে রয়েছেন।

জানা যায়, সালমা সালাম উর্মি টাঙ্গাইলের ধনবাড়ি কলেজ থেকে বিএ পাস করেন। ২০০৮ সালে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী হিসেবে মির্জাপুর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন।

তিনি বাংলাদেশ মহিলা সমিতি মির্জাপুর উপজেলা শাখার সহ-সভাপতি, টাঙ্গাইল জেলা কারাগারের বেসরকারি কারা পরিদর্শক ও বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি টাঙ্গাইল জেলা কার্যকরী পরিষদের সাবেক সদস্য।

উর্মি ২০০১ সালে টাঙ্গাইল প্রি-ক্যাডেট স্কুল থেকে স্বর্ণপদক, ২০১৩ সালে সমাজসেবায় মাদার তেরেসা স্বর্ণপদক, একই সালে ইউনাইটেড মুভমেন্ট হিউম্যান রাইটসের পক্ষ থেকে ঢাকা বিভাগে শ্রেষ্ঠ ভাইস চেযারম্যান সম্মাননা স্মারক, চেতনায়-৭১ বাঙালি ও বাংলাদেশ সম্মাননা ও নেনসন ম্যানডেলা স্বর্ণপদক, ২০১৪ সালে সফল ভাইস চেয়ারম্যান হিসেবে জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম স্বর্ণপদক, একই বছর ঢাকা বিভাগের শ্রেষ্ঠ মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান হিসেবে সুচিত্রা সেন স্বর্ণপদক পান। উর্মি বাংলাদেশ টেলিভিশনের তালিকাভুক্ত একজন সংগীত শিল্পী। তার স্বামীর নাম আব্দুছ ছালাম মিয়া। বাড়ি মির্জাপুর উপজেলার বানাইল ইউনিয়নের পাছ চামারী গ্রামে। স্বামী আব্দুছ ছালাম ব্যবসায়ী।

সংরক্ষিত নারী আসনে এমপি প্রার্থী হওয়ার বিষয়ে সালমা সালাম উর্মি বলেন, অনেক দিন ধরেই আমি আওয়ামী লীগের কর্মী হিসেবে কাজ করে আসছি। বঙ্গবন্ধুর আদর্শ লালন করে বড় হয়েছি। জননেত্রী শেখ হাসিনার সান্নিধ্য আমার রাজনৈতিক ও দেশপ্রেমের চেতনাকে উজ্জ্বল করেছে। সেই আদর্শ ও অভিজ্ঞতাকে মানুষের কাজে ব্যবহার করতে চাই।

উর্মি আরও বলেন, আমি আশাবাদী, আপা (প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা) আমাকে মূল্যায়ন করবেন। দলের জন্য আমার শ্রম ও ত্যাগ সম্পর্কে অবশ্যই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অবগত আছেন।

সংরক্ষিত মহিলা সদস্যদের নির্বাচিত করবেন সাধারণ ভোটারদের ভোটে নির্বাচিত ৩০০ জন এমপি। এরই মধ্যে এ প্রক্রিয়া শুরু হলেও যাচাই বাছাই করে ফেব্রুয়ারির মাঝামাঝি সময়ে নির্বাচন হবে বলে জানা যায়।

এস এম এরশাদ/এএম/এমএস

আপনার মতামত লিখুন :