সেন্টমার্টিনে আরও এক নারীর ভাসমান মরদেহ উদ্ধার

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি কক্সবাজার
প্রকাশিত: ১২:২০ পিএম, ১৫ ফেব্রুয়ারি ২০২০
ফাইল ছবি

কক্সবাজারের সেন্টমার্টিন উপকূলে সাগরে ভাসমান অবস্থায় আরও এক নারীর মরদেহ উদ্ধার করেছে কোস্টগার্ড। শনিবার (১৫ ফেব্রুয়ারি) বেলা ১১টার দিকে সেন্টমার্টিনের ছেড়াদ্বীপের দক্ষিণ পশ্চিমাংশে সাগরে ভাসমান অবস্থায় মরদেহটি পাওয়া যায় বলে জানিয়েছেন কোস্টগার্ড সেন্টমার্টিন স্টেশন কমান্ডার লে. নাঈম উল হক।

তিনি আরও জানান, সেন্টমার্টিন কোস্টগার্ডের একটি টহল টিম সেন্টমার্টিন ছেড়াদ্বীপের দক্ষিণ পশ্চিম পাশে বেলা ১১টার দিকে সাগরে ভাসমান একটি মরদেহ দেখতে পায়। মরদেহটি মধ্য বয়সী এক নারীর। মরদেহটি কাঠের বোটে করে টেকনাফ মডেল থানায় হস্তান্তরের প্রস্তুতি চলছে।

উল্লেখ, নৌপথে মালয়েশিয়া যাওয়ার আশায় বিভিন্ন রোহিঙ্গা ক্যাম্প থেকে গত ১০ ফেব্রুয়ারি (সোমবার) রাতে টেকনাফের মহেশখালীয়াপাড়া এলাকা দিয়ে ট্রলারে ওঠে শতাধিক রোহিঙ্গা। সেন্টমার্টিন উপকূলে গিয়ে ডুবে যায় ট্রলারটি। মালয়েশিয়াগামীদের মধ্যে বেশির ভাগই নারী। দালালদের মাধ্যমে সেন্টমার্টিন উপকূল পাড়ি দিতে গিয়ে ট্রলারটি ডুবে গেলে ভাসমান অবস্থায় ১৫ রোহিঙ্গার মরদেহ উদ্ধার করে কোস্টগার্ড ও নৌবাহিনী। একই সঙ্গে আরও ৭৩ জন রোহিঙ্গাকে জীবিত উদ্ধার করা হয়।

উদ্ধার হওয়াদের মতে- ট্রলারে আরও অন্তত ৫০ রোহিঙ্গা ছিল। তাদের খোঁজে টানা অনুসন্ধান চালালেও শুক্রবার বিকেল পর্যন্ত কাউকে পাওয়া যায়নি। কিন্তু ওইদিন সন্ধ্যায় এক নারীর এবং শনিবার সকালে এক নারীর মরদেহ পাওয়া গেছে।

অপরদিকে ট্রলারডুবির ঘটনায় বুধবার (১২ ফেব্রুয়ারি) রাতে ১৯ মানবপাচারকারীর বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে। ওই মামলায় এখন পর্যন্ত আটজনকে আটক করেছে পুলিশ। নিহতদের মধ্যে নয়জনের মরদেহ স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। অপর ছয়জনের পরিচয় শনাক্ত না হওয়ায় তাদের মরদেহ এখনও মর্গে রয়েছে। আদালতের নির্দেশে ৬৯ রোহিঙ্গা নারী-পুরুষ ও শিশুকে স্ব স্ব ক্যাম্প ইনচার্জদের জিম্মায় দেয়া হয়েছে।

সায়ীদ আলমগীর/আরএআর/এমএস