দম ফেলার সময় পাচ্ছেন না লেপ-তোশকের কারিগররা

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি ঠাকুরগাঁও
প্রকাশিত: ০৬:৩১ পিএম, ১৬ নভেম্বর ২০২০

দেশের উত্তরের জেলা ঠাকুরগাঁও। সীমান্তবর্তী ও হিমালয়ের কিছুটা কাছাকাছি হওয়ায় এ জেলায় দেখা দিয়েছে আগাম শীত। ফলে বেড়েছে লেপ-তোশকের চাহিদা।

রোববার (১৫ নভেম্বর) রাত ৮টায় ঠাকুরগাঁও শহরের কালিবাড়ি বাজারের লেপ-তোশকের কারিগরদের ব্যস্ত সময় পার করতে দেখা যায়। হঠাৎ লেপ-তোশকের চাহিদা বাড়ায় ব্যস্ত সময় পার করছেন কারিগররা।

কালিবাড়ি তুলা ঘরের কারিগর আবুল কাশেম জাগো নিউজকে জানান, গত ৪০ বছর ধরে লেপ তৈরির কাজ করি। অন্যান্য বারের তুলনায় এবার আগাম শীতের কারণে লেপের চাহিদা বেড়েছে। দিনে একজনকে ৬-৮টা পর্যন্ত লেপ তৈরি করতে হচ্ছে। কাজের চাপ এখন থেকেই বেড়েছে। চাপ আরও বাড়তে পারে বলে জানান তিনি।

কালিবাড়ি মিন্টু তুলা ঘরের কারিগর দুলাল জানান, এখন জাজিমের চেয়ে লেপের চাহিদা বেশি।

jagonews24

কারিগর সুমন ইসলাম জানান, অন্যান্য মৌসুমে দিনে দুই থেকে তিনটি লেপের কাজ পাওয়া গেলেও বর্তমানে শীত শুরু হতে না হতেই দিনে ১২-১৭টা পর্যন্ত লেপ সেলাই করতে হচ্ছে।

কালিবাড়ি তুলা ঘরের স্বত্বাধিকারী আব্দুল মমিন জানান, গত নভেম্বর ও ডিসেম্বরের তুলনায় এবার নভেম্বর মাসে তুলনামূলক লেপের বিক্রি বেড়েছে। তবে গতবারের তুলনায় এবার তুলা ও কাপড় অনুযায়ী লেপ প্রতি দাম বেড়েছে ১০০-১৫০ টাকা।

মিন্টু তুলা ঘরের স্বত্বাধিকারী মিন্টু জানান, এবার হটাৎ করে শীত শুরু হওয়ায় ক্রেতার চাপ বেড়েছে। এতে কারিগররাও অনেক রাত পর্যন্ত কাজ করছেন। বর্তমানে লেপ তৈরির বিভিন্ন মালের দাম বৃদ্ধি পাওয়ায় দামও একটু বেশি।

তানভীর হাসান তানু/এএইচ/এমকেএইচ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]