এলাকার উন্নয়নে নৌকাতেই আস্থা রাখতে চান ভোটাররা

উপজেলা প্রতিনিধি উপজেলা প্রতিনিধি কালীগঞ্জ (গাজীপুর)
প্রকাশিত: ১২:৩৭ পিএম, ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২১

আগামী ২৮ ফেব্রুয়ারি গাজীপুরের কালীগঞ্জ পৌরসভার ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচন ঘিরে ইতোমধ্যে ৪ মেয়র প্রার্থী তাদের প্রচার প্রচারণা শুরু করেছেন। তাদের এই প্রচার-প্রচারণা পৌরসভার ৯টি ওয়ার্ডের ৩৬ হাজার ৬৪০ ভোটারের মন জয় করতে।

এই পৌরসভায় মেয়র প্রার্থীরা হলেন- আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকের এসএম রবীন হোসেন, বিএনপি মনোনীত ধানের শীষ প্রতীকের ফরিদ আহমেদ, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ’র হাতপাখা প্রতীকের মো. চাঁন মিয়া ও স্বতন্ত্র নারিকেল গাছ প্রতীকের প্রার্থী মো. লুৎফুর রহমান।

কালীগঞ্জ পৌরসভায় মুসলিম, হিন্দু ও খ্রিস্টান ধর্মাবলম্বীদের বসবাস। পৌরসভাটিকে ধরা হয় নৌকার ভোট ব্যাংক হিসেবে। বিগত দিনের জাতীয় নির্বাচনের পরিসংখ্যান সেটাই প্রমাণ করে। বর্তমান সরকার দীর্ঘদিন ধরে ক্ষমতায় থাকার সুবাদে স্থানীয়ভাবে এখানে আওয়ামী লীগ শক্ত অবস্থানেই আছে।

অন্যদিকে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দলের (বিএনপি) কোনো সাংগঠনিক কার্যকলাপ না থাকায় স্থানীয়ভাবে অনেকটা ঝিমিয়ে পড়েছে এককালের বৃহৎ এই রাজনৈতিক দলটি। শুধুমাত্র নিয়ম রক্ষার জন্যই দলীয় প্রার্থী দেয়া হয়।

jagonews24

২৮ ফেব্রুয়ারির নির্বাচন হবে কালীগঞ্জ পৌরসভার দ্বিতীয় পৌর নির্বাচন। এর আগে ২০১৩ সালের ৩০ জুন প্রথম পৌর নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। সেই সময় দলীয় কোনো প্রতীক ছিল না। তবে দলীয় প্রতীকে এবারই প্রথম কালীগঞ্জ পৌর নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে।

ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) পদ্ধতিতে ১৭টি কেন্দ্র ও ১২০টি কক্ষের মাধ্যমে ভোটাররা তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন। এতে ৪ মেয়র, ৩৩ সাধারণ কাউন্সিলর, ১০ সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

নিয়ানুযায়ী ৫ বছর পর নির্বাচন হওয়ার কথা থাকলেও গত ২০১৩ সালের পৌর নির্বাচনের পর সীমানা জটিলতার কারণে অতিরিক্ত আড়াই বছর চলে গেলেও পৌর নির্বাচন হয়নি। কিন্তু চলতি বছরের ১৯ জানুয়ারি ৬ষ্ঠ ধাপে ৩১টি পৌরসভার নির্বাচন অনুষ্ঠানের তফসিল ঘোষণা করে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। এর মধ্যে কালীগঞ্জ পৌরসভা রয়েছে।

গত ২ ফেব্রুয়ারি ছিল মনোনয়ন দাখিলের শেষ দিন। ৪ ফেব্রুয়ারি মনোনয়ন যাচাই-বাছাই, ১১ ফেব্রুয়ারি প্রার্থিতা প্রত্যাহার ও ১২ ফেব্রুয়ারি প্রতীক বরাদ্দ দেওয়া হয়। এরপর থেকেই শুরু হয় নির্বাচনী প্রচারণা।

jagonews24

সরেজমিনে কালীগঞ্জ পৌরসভার দুর্বাটি, তুমলিয়া, ভাদার্ত্তী, মুনশুরপুর, বালীগাঁও, খঞ্জনা, বড়নগর, উত্তরগাঁও, ঘোনাপাড়া, মূলগাঁও ও দেওপাড়া এলাকার ভোটারদের সাথে কথা বলে জানা গেছে, উন্নয়নের মার্কা হিসেবে তারা নৌকাতেই তাদের আস্থা রাখছেন। এগিয়েও রাখছেন নৌকাকেই। সেই হিসাবে আওয়ামী লীগ মনোনীত এসএম রবীন হোসেনই ভরসা।

নির্বাচনকে ঘিরে পুরো কালীগঞ্জ পৌর এলাকা এখন সরব। বিএনপি, আওয়ামী লীগ, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ ও স্বতন্ত্র প্রার্থী সবাই মাঠেই আছেন। তারা তাদের প্রচারণাও করছেন ঠিকঠাক।

ভোটাররা জানান, গত প্রায় সাড়ে ৭ বছরে কালীগঞ্জ পৌরসভায় উল্লেখ্যযোগ্য কোনো উন্নয়ন হয়নি। রাস্তা-ঘাট, পয়নিষ্কাশন, ড্রেনেজ ব্যবস্থা, সড়ক বাতি কোনো কিছুরই উন্নয়ন হয়নি। বছরে বছরে পৌরবাসীর কাছ থেকে আবাসিক কর নিলেও স্থানীয়ভাবে নাগরিক সেবা পাননি তারা। স্থানীয় ভোটাররা পৌরসভার উন্নয়ন চান। তাই সরকার দলীয় মেয়র প্রার্থীতেই আস্থা রাখছেন তারা।

কালীগঞ্জ পৌর নির্বাচন রিটার্নিং ও গাজীপুর জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা কাজী মো. ইস্তাফিজুল হক আকন্দ জানান, নির্বাচনকে অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ করতে আমরা সকল ধরনের প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছি।

আব্দুর রহমান আরমান/এফএ/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]