পরিবারের কাছে লেখক মুশতাকের মরদেহ হস্তান্তর

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি গাজীপুর
প্রকাশিত: ০৪:২৭ পিএম, ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২১

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে কারাবন্দি লেখক মুশতাক আহমেদের (৫৩) লাশ গাজীপুরে শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ময়নাতদন্তের পর স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

এদিকে লেখক মুশতাক আহমেদের মৃত্যুর খবর পেয়ে শুক্রবার (২৬ ফেব্রুয়ারি) সকালে মর্গে তার আত্মীয়-স্বজন ও বন্ধুরা আসেন। মর্গের সামনে তারা কান্নায় ভেঙে পড়েন এবং আহাজারি করেন।

স্বজনদের দাবি, কারাগারের বাইরে থাকলে হয়তো তাকে এভাবে মরতে হতো না।

হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ সূত্রে জানা গেছে, শুক্রবার বেলা ১১টায় গাজীপুর জেলার নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. অসিউজ্জামান চৌধুরী লাশের সুরতহাল প্রতিবেদন তৈরি করেন। এরপর শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ফরেনসিক বিভাগের চিকিৎসক মো. সাফি মোহাইমেন লাশের ময়নাতদন্ত করেন। পরে পুলিশ দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে লাশ তার স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করেন। তার চাচাতো ভাই নাফিসুর রহমানসহ অন্য স্বজনরা লাশ বুঝে নিয়ে একটি অ্যাম্বুলেন্সে করে ঢাকার উদ্দেশ্যে নিয়ে যান।

শুক্রবার সকাল থেকেই হাসপাতালের সামনে অবস্থান করেন লেখক মুশতাকের কাছের বন্ধু এবং একই মামলার আসামি দিদারুল ভূঁইয়া। তিনি মুশতাকের লাশ দেখে কান্নায় ভেঙে পরেন। মর্গের সামনে হাউমাউ করে কান্নাকাটি করতে থাকেন।

এ সময় তিনি বলেন, ‘আমি, মুশতাক এবং কিশোর প্রথমে কেরানীগঞ্জের কেন্দ্রীয় কারাগারে ছিলাম। এরপর কাশিমপুর নিয়ে আসে। কাশিমপুর এসে আমাদের আলাদা করে রাখা হয়। যার কারণে আর বন্ধু মুশতাকের সঙ্গে দেখা হয়নি। এভাবে লাশ দেখতে হবে কখনো ভাবতে পারিনি।’

তিনি আরও বলেন, ‘এই দেশে কেউ স্বাধীন নয়। হয়তো মিডিয়ার সামনে কথা বললে আরেকটা মামলা খেয়ে যাবো। তাই আর বেশি কথা বলতে চাই না।’

দিদারুল ভূঁইয়া জানান, বাদ আসর মুশতাকের লাশ লালমাটিয়া মিনা মসজিদে নিয়ে যাওয়া হবে। এরপর আজিমপুর কবরস্থানে দাফন হবে।

কেন্দ্রীয় শ্রমিক অধিকার পরিষদের সমন্বয়ক আরমান বলেন, ‘আমাদের বলার, লেখার স্বাধীনতা নেই। যদি লিখতে না পারি তাহলে এই স্বাধীনতা দরকার আছে কি? তবে আশাবাদী একদিন সঠিক বিচার হবে।’

গাজীপুর জেলার নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. অসিউজ্জামান চৌধুরী বলেন, ‘লাশের সুরতহাল প্রতিবেদন তৈরি করা হয়েছে। প্রাথমিকভাবে তার শরীরে কোনো আঘাতের চিহ্ন দেখা যায়নি।’

উল্লেখ, ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে কারাবন্দি লেখক মুশতাক আহমেদ বৃহস্পতিবার (২৫ ফেব্রুয়ারি) রাতে মারা গেছেন। তিনি গাজীপুরের কাশিমপুর কারাগারে ছিলেন।

কারা কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, মুশতাক আহমেদ বৃহস্পতিবার সন্ধ্যার দিকে কারাগারের ভেতর হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়েন। তাকে প্রথমে কারা হাসপাতালে নেয়া হয়। পরে গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। সেখানকার কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে পরীক্ষা-নিরীক্ষা শেষে মৃত ঘোষণা করেন।

মো. আমিনুল ইসলাম/এমআরআর/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]