পেঁয়াজের সিন্ডিকেট ভাঙতে উদ্যোগী প্রতিযোগিতা কমিশন

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১২:০২ পিএম, ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০

বেশ কয়েকদিন অস্থিরতার পর পেঁয়াজের বাজারে বর্তমানে কিছুটা স্বস্তি ফিরেছে। ভারত বাংলাদেশে ২৫ হাজার টন পেঁয়াজ রফতানি করবে-এমন খবরে ইতিবাচক প্রভাব ফেলেছে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।

জানা গেছে, সিন্ডিকেটের মাধ্যমে কৃত্রিম সংকট সৃষ্টি করে রাতারাতি অস্বাভাবিকভাবে পেঁয়াজের দাম বাড়ানো হয়েছে। গত বছরও একই কায়দায় ফায়দা লুটেছে অসাধু চক্র। এবার বিষয়টি নিয়ে নড়েচড়ে বসেছে প্রতিযোগিতা কমিশন। দেশের বাজারে একচেটিয়া প্রভাব বা মনোপলি ঠেকাতে কাজ করা সরকারের এই প্রতিষ্ঠান চলতি সপ্তাহেই একটি সভার আয়োজন করেছে। সভায় বাণিজ্য মন্ত্রণালয়, ট্যারিফ কমিশন, কৃষি মন্ত্রণালয় ও গোয়েন্দা সংস্থার প্রতিনিধিদের ডাকা হবে। চলতি সপ্তাহে এই সভা অনুষ্ঠিত হবে বলে বাণিজ্য মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, ভারতের পেঁয়াজ আসবে না-এমন খবর চাওর হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে বাজারে পেঁয়াজের দাম রাতারাতি বেড়ে যায়। এর পেছনে রয়েছে একটি অসাধু চক্র। বিষয়টি মাথায় নিয়ে কাজ করবে প্রতিযোগিতা কমিশন। এর পেছনে কারা দায়ী, কীভাবে তারা বাজার নিয়ন্ত্রণ করছে এসব নিয়ে সভায় আলোচনা হবে।

প্রতিযোগিতা কমিশন বলছে, তাদের কাজ হচ্ছে বাজারে একচেটিয়া প্রভাব ঠেকানো। পেঁয়াজে রাতারাতি দাম বৃদ্ধি পাওয়া অস্বাভাবিক। যদিও বাজারে কোনো সংকট নেই। কমিশনের মতে, একটি গ্রুপ কাজ করছে এই অস্থিতিশীলতার পেছনে। তারা এই বিষয়ে খোঁজখবর নেবে। সভায় আলাপ-আলোচনার পর পরবর্তী করণীয় ঠিক করা হবে।

এদিকে রোববার (২০ সেপ্টেম্বর) রাজধানীর বিভিন্ন খুচরা বাজার ঘুরে দেখা গেছে, ব্যবসায়ীরা দেশি পেঁয়াজ বিক্রি করছেন ৮০ থেকে ৯০ টাকা কেজিতে। যা গত তিনদিন ছিল ৯০ থেকে ১১০ টাকা। অপরদিকে আমদানি করা ভারতের পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ৬০ থেকে ৭০ টাকায়, যা গতকাল ছিল ৭০ থেকে ৮০ টাকা।

এমইউএইচ/এসআর/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]