রাহুল গান্ধী-চন্দ্রবাবুর বৈঠক, মহাজোট গঠনের আলোচনা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৬:১১ পিএম, ১৮ মে ২০১৯

ভারতের চলমান লোকসভা নির্বাচনের শেষ দফার ভোটের আগে ক্ষমতাসীন রাজনৈতিক দল ভারতীয় জনতা পার্টি (বিজেপি) বিরোধী মহাজোট গঠনের লক্ষ্যে অন্ধ্রপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী চন্দ্রবাবু নাইডু দেশটির প্রধান বিরোধী দল কংগ্রেসের সভাপতি রাহুল গান্ধীর সঙ্গে বৈঠক করেছে। আগামী সপ্তাহে নির্বাচনের ফল ঘোষণার আগে শনিবার নয়াদিল্লিতে মহাজোট গঠনের রূপরেখা তৈরি করতে বৈঠক করেন এ দুই নেতা।

এনডিটিভি বলছে, কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধীর সঙ্গে বৈঠকে বসেছেন চন্দ্রবাবু নাইডু। এছাড়াও নয়াদিল্লিতে বিরোধী দল ন্যাশনালিস্ট কংগ্রেস পার্টির প্রধান শারদ পাওয়ারের সঙ্গে স্বাক্ষাৎ করেছেন তিনি। ২৩ মে চূড়ান্ত ফল ঘোষণার আগে তেলেগু দেশম পার্টির এই নেতা কংগ্রেসের চেয়ারপার্সন সোনিয়া গান্ধীর সঙ্গে বৈঠকে বসবেন। নির্বাচনী ফল পরবর্তী জোট গঠনের লক্ষ্যে তারা এই তৎপরতা শুরু করেছেন।

শনিবার সন্ধ্যার দিকে লখনৌতে উত্তরপ্রদেশের বিএসপি পার্টি নেত্রী মায়াবতী এবং এসপি নেতা অখিলেশ যাদবের সঙ্গেও বৈঠক করার কথার রয়েছে ৬৯ বছর বয়সী নাইডুর। শুক্রবার তিনি সিপিএম নেতা সীতারাম ইয়েচুরি এবং আম আদমি পার্টির প্রধান অরবিন্দ কেজরিওয়ালের সঙ্গে বৈঠক করেছেন তিনি। বৈঠকে ভোট পরবর্তী মহাজোট গঠন নিয়ে আলোচনা হয়।

চন্দ্রবাবু বলেছেন, বিজেপিবিরোধী সব রাজনৈতিক দলের সঙ্গে হাত মেলাতে প্রস্তুত তারা। এতে কেসিআর থাকলেও আপত্তি নেই তার। তেলেঙ্গানা নিয়ে কেসিআরের সঙ্গে চন্দ্রবাবু নাইডুর বিবাদ নতুন নয়।

চরম বিরোধীদলকেও বিজেপিবিরোধী জোটে নিতে কোনো আপত্তি নেই বলে ইঙ্গিত দিয়েছেন তিনি। অন্ধ্রপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী চন্দ্রবাবু নাইডু বলেছেন, মহাজোট গঠনে আমরা সব দলকেই স্বাগত জানাচ্ছি।

ভারতের এবারের ১৭ তম লোকসভা নির্বাচনে সাত দফার ভোট শুরু হয়েছিল ১১ এপ্রিল। যা শেষ হচ্ছে রোববার (১৯ মে)। ভোটগ্রহণ শেষে নির্বাচনের চূড়ান্ত ফল ঘোষণা করা হবে ২৩ মে। ওইদিন জানা যাবে দেশটির ক্ষমতায় মোদির বিজেপি নাকি রাহুল গান্ধীর কংগ্রেস।

এর আগে চলতি মাসের শুরুর দিকে পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়ের সঙ্গে বৈঠক করেন চন্দ্রবাবু। এছাড়াও আরো দুটি রাজনৈতিক সমাবেশে মমতার সঙ্গে অংশ নেন তিনি।

ইতোমধ্যে কংগ্রেসের পক্ষ থেকে জোটসঙ্গী হিসেবে তামিলনাড়ুর রাজনৈতিক দল দ্রাভিড়া মুন্নেট্রা কাড়াগাম (ডিএমকে) এবং ওড়িশার বিজেডি, অন্ধ্রপ্রদেশের ওয়াইএসআর কংগ্রেস এবং তেলেঙ্গানার রাষ্ট্র্র সমিতির (টিআরএস) মতো আঞ্চলিক দলগুলোর নেতাদের সঙ্গে মহাজোট গঠনে যোগাযোগ করা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বিরোধী ঐক্যকে অটুট করে তোলার লক্ষ্যে কংগ্রেস এই প্রচেষ্টা শুরু করেছে।

এছাড়া বিহার এবং ঝাড়খণ্ডের স্থানীয় জনতা দল (সেকুলার), মহারাষ্ট্রের আঞ্চলিক রাজনৈতিক দল জাতীয়তাবাদী কংগ্রেস পার্টি (এনসিপি) এবং উত্তরপ্রদেশের প্রধান দুই দল সমাজবাদী পার্টি এবং বহুজন সমাজ পার্টির নেতাদের সঙ্গে আলোচনা করছে কংগ্রেস। এবারের নির্বাচনে মোদিকে হারানোর লক্ষ্যে এসব দলের সঙ্গে মহাঐক্য গড়ার কাজ শুরু করেছে দলটি

ভারতের এবারের ১৭ তম লোকসভা নির্বাচনে সাত দফার ভোট শুরু হয়েছিল ১১ এপ্রিল। যা শেষ হচ্ছে রোববার (১৯ মে)। ভোটগ্রহণ শেষে নির্বাচনের চূড়ান্ত ফল ঘোষণা করা হবে ২৩ মে। ওইদিন জানা যাবে দেশটির ক্ষমতায় মোদির বিজেপি নাকি রাহুল গান্ধীর কংগ্রেস।

এসআইএস/এমকেএইচ