‘কোয়ারেন্টাইনে যাওয়ার চেয়ে বাড়িতেই মরা ভালো’

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০১:২৫ পিএম, ০৫ ফেব্রুয়ারি ২০২০

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস প্রাদুর্ভাবের প্রাণকেন্দ্র চীনের উহান শহরের বাসিন্দা ওয়েনজুন ওয়াং। ৩৩ বছর বয়সী এই নারী একজন গৃহিনী। গত ২৩ জানুয়ারি শহরটিকে অবরুদ্ধ ঘোষণার পর থেকে পরিবারের সদস্যদের-সহ বাড়িতেই আছেন তিনি।

তখন থেকে বুধবার পর্যন্ত চীনে প্রাণঘাতী এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন প্রায় ২৪ হাজার ৫৫৮ জন এবং এতে প্রাণ গেছে মোট ৪৯৩ জনের। আক্রান্তদের মধ্যে অন্তত ১৩ শতাংশের (৩২২৩ জন) অবস্থা আশঙ্কাজনক।

কার্যত বিচ্ছিন্ন উহান থেকে ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসিকে দেয়া এক স্বাক্ষাৎকারে ওয়াং বেঁচে থাকার জন্য তার পরিবারের হৃদয়বিদারক লড়াইয়ের কথা জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, ‘করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব শুরুর পর এতে আক্রান্ত হয়ে ইতোমধ্যে আমার চাচা মারা গেছেন। আমার বাবার অবস্থা আশঙ্কাজনক। আমার মা এবং চাচীর শরীরেও এই ভাইরাসের কিছু আলামত দেখা দিয়েছে। সিটি স্ক্যানে দেখা গেছে, তাদের ফুসফুসে সংক্রমণ ঘটেছে। আমার ভাইয়ের প্রচুর সর্দি-কাশি এবং শ্বাসকষ্ট শুরু হয়েছে।’

ওয়াং বলেন, ‘আমার বাবার প্রচণ্ড জ্বর। গতকাল তার শরীরের তাপমাত্রা ছিল ১০২ ডিগ্রি (৩৯.৩ সেলসিয়াস) ফারেনহাইট। তার ক্রমাগত কাশি এবং শ্বাসকষ্ট হচ্ছে। আমরা বাড়িতেই তাকে অক্সিজেন দিয়েছি। সপ্তাহের সাতদিন পুরো ২৪ ঘণ্টাই তিনি এই অক্সিজেন মেশিনের ওপর নির্ভর করে আছেন।’

jagonews24

‘এই মুহূর্তে তিনি চীনা এবং পশ্চিমা বিশ্বের ওষুধ সেবন করছেন। পরীক্ষা-নিরীক্ষার মতো সরঞ্জাম না থাকায় তিনি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত কিনা তা এখনও নিশ্চিত হওয়া যায়নি। সেজন্য তাকে হাসপাতালে নেয়া সম্ভব হয়নি। নিজেদের স্বাস্থ্যের অবনতি হলেও আমার মা এবং চাচী প্রত্যেকদিন হাসপাতালে গিয়ে শয্যা খুঁজে আসেন। তাদের আশা একটি বিছানা পেলে আমার বাবাকে সেখানে ভর্তি করানো যাবে।’

‘কেউ আমাদের সহায়তা করছে না’

উহানে এখন অনেক কোয়ারেন্টাইন পয়েন্ট স্থাপন করা হয়েছে। যাদের হালকা লক্ষণ পাওয়া গেছে অথবা এখনও ইনকিউবেশনে রয়েছেন; তাদের সেসব কোয়ারেন্টাইন পয়েন্টে রাখা হচ্ছে। সেখানে কিছু সাধারণ স্থাপনা তৈরি করা হয়েছে; যাতে হালকা চিকিৎসা ব্যবস্থা রয়েছে। কিন্তু আমার বাবার মতো যাদের অবস্থা আশঙ্কাজনক; সেখানে তাদের জন্য কোনও শয্যা নেই।

ওয়াং বলেন, ‘এ ধরনের একটি কোয়ারেন্টাইন পয়েন্টে আমার চাচা মারা গেছেন। সেখানে মারাত্মক লক্ষণ নিয়ে যারা ভর্তি হয়েছেন, তাদের জন্য পর্যাপ্ত মেডিক্যাল সুবিধা নেই। আমি আশা করছি, আমার বাবা যেন যথাযথ চিকিৎসা পান। কিন্তু এই মুহূর্তে কেউই আমাদের সহায়তা করছে না বা সহায়তার জন্য এগিয়ে আসছে না।’

তিনি বলেন, আমি বেশ কয়েকবার কমিউনিটি স্বাস্থ্য কর্মীদের সঙ্গে যোগাযোগ করেছি। আমি যে জবাব পেয়েছি সেটা হলো- হাসপাতালে শয্যা পাওয়ার কোনও সুযোগ আমাদের নেই। আমা বাবা এবং চাচা শুরুতেই একটি হাসপাতালে কোয়ারেন্টাইনে গিয়েছিলেন। কিন্তু বর্তমানে সেটি আর হাসপাতাল নেই। এখন সেটি হোটেলে পরিণত হয়েছে।

jagonews24

‘সেখানে কোনও নার্স অথবা চিকিৎসক নেই এবং কোনও হিটারও নেই। আমার বাবা এবং চাচা সেখানে সকালে গিয়েছিলেন; কিন্তু সেখানকার কর্মীরা তাদের ঠান্ডা খাবার দিয়েছেন সন্ধ্যায়। আমার চাচা সেই সময় খুবই অসুস্থ্য হয়ে পড়েন। শ্বাস-প্রশ্বাসের গুরুতর সমস্যা দেখা দেয় এবং তিনি সংজ্ঞা হারিয়ে ফেলতে শুরু করেন।’

ওয়াং বলেন, কোনও চিকিৎসক তার চিকিৎসায় এগিয়ে আসেননি। তাকে এবং আমার বাবাকে পৃথক কক্ষে রাখা হয়। বাবা পরদিন সকাল সাড়ে ছয়টার দিকে আমার চাচার কক্ষে যান। সেখানে গিয়ে তাকে মৃত অবস্থায় পান।

কোয়ারেন্টাইনে যাওয়ার চেয়ে বাড়িতেই মরবো

ওয়াং বলেন, ‘ওই সময় যারা অন্যান্য হাসপাতালে ছিলেন; তাদের জন্য নতুন হাসপাতাল তৈরি করা হয়েছে। এখন তাদেরকেই নতুন হাসপাতালে স্থানান্তর করা হচ্ছে। কিন্তু আমাদের মতো মানুষ যারা আছে; আমরা যারা এখনও একটি শয্যা পাইনি, নতুন হাসপাতালেও তাদের ঠাঁই হচ্ছে না।’

‘সরকারের নির্দেশ মানলে আমাদের একমাত্র ঠাঁই হবে কোয়ারেন্টাইন পয়েন্টে। কিন্তু আমরা যদি সেখানে যাই, তাহলে আমার চাচার সঙ্গে যা ঘটেছে; সেটাই আমার বাবার সঙ্গেও ঘটবে। তারচেয়ে বরং আমরা বাড়িতেই মরবো।’

সংক্রমিত মানুষের সংখ্যা প্রচুর

চারপাশে আমাদের পরিবারের মতো অনেক পরিবার আছে; যারা একই ধরনের পরিস্থিতির মুখোমুখি। আমার বাবার বন্ধুর প্রচণ্ড জ্বর ছিল; যে কারণে তাকে কোয়ারেন্টাইন পয়েন্টের কর্মীরা সেখানে জায়গা দেয়নি। আক্রান্ত মানুষের তুলনায় ব্যবস্থাপনা একেবারেই অপ্রতুল। আমরা আতঙ্কিত। এরপর আমাদের সঙ্গে কী ঘটবে তা জানি না।

jagonews24

বিশ্বের কাছে ওয়াংয়ের বার্তা

‘আমি যেটা বলতে চাই, সেটা হলো- আমি যদি জানতাম যে কর্তৃপক্ষ ২৩ জানুয়ারি উহানকে অবরুদ্ধ ঘোষণা করতে যাচ্ছে; তাহলে আমি নিশ্চিতভাবেই আমার পুরো পরিবারকে শহরের বাইরে নিয়ে যেতাম। কারণ এখানে কোনও সহায়তা নেই।’

আমার যদি অন্য কোথাও যেতে পারতাম, তাহলে সেখানে কিছুটা হলেও আশা থাকতো। আমাদের মতো সরকারের নির্দেশ অন্য যারা শুনেছেন এবং উহানে অবস্থান করছেন; তারা সঠিক নাকি ভুল সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তা আমি জানি না। কিন্তু আমার বিশ্বাস এসব প্রশ্নের জবাব আমার চাচার মৃত্যু দিয়েছে।

সূত্র : বিবিসি।

এসআইএস/এমকেএইচ

করোনা ভাইরাস - লাইভ আপডেট

২৬,২৮,১৭,০৮১
আক্রান্ত

৫২,৩০,০৩৪
মৃত

২৩,৭২,৭৯,৬১৫
সুস্থ

# দেশ আক্রান্ত মৃত সুস্থ
বাংলাদেশ ১৫,৭৬,২৮৪ ২৭,৯৮১ ১৫,৪০,৯৬৫
মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ৪,৯৩,২৪,৬০৪ ৮,০১,৭৫১ ৩,৯০,৪৪,৮০৫
ভারত ৩,৪৫,৮৭,৮২২ ৪,৬৮,৯৮০ ৩,৪০,১৮,২৯৯
ব্রাজিল ২,২০,৮৪,৭৪৯ ৬,১৪,৪২৮ ২,১৩,০৪,১১৫
যুক্তরাজ্য ১,০২,২৮,৭৭২ ১,৪৪,৯৬৯ ৯০,৬২,৫৬১
রাশিয়া ৯৬,৩৬,৮৮১ ২,৭৫,১৯৩ ৮৩,২৯,২৫৩
তুরস্ক ৮৭,৯৫,৫৮৮ ৭৬,৮৪২ ৮৩,২৬,৩৮১
ফ্রান্স ৭৬,২৮,৩২৭ ১,১৯,০১৬ ৭১,১৩,২৬৩
ইরান ৬১,১৭,৪৪৫ ১,২৯,৮৩০ ৫৮,৮৩,৪৭০
১০ জার্মানি ৫৮,৮১,৪০৯ ১,০১,৮৯৪ ৪৮,৯৩,৩০০
১১ আর্জেন্টিনা ৫৩,২৮,৪১৬ ১,১৬,৫৫৪ ৫১,৯২,৪০৪
১২ স্পেন ৫১,৬৪,১৮৪ ৮৮,০৫২ ৪৯,২৩,১৪০
১৩ কলম্বিয়া ৫০,৬৭,৩৪৮ ১,২৮,৪৭৩ ৪৯,০৭,৪৮৪
১৪ ইতালি ৫০,২৮,৫৪৭ ১,৩৩,৮২৮ ৪৭,০০,৪৪৯
১৫ ইন্দোনেশিয়া ৪২,৫৬,৪০৯ ১,৪৩,৮৩০ ৪১,০৪,৬৫৭
১৬ মেক্সিকো ৩৮,৮৪,৫৬৬ ২,৯৩,৯৫০ ৩২,৪২,৯৪৭
১৭ পোল্যান্ড ৩৫,৪০,০৬১ ৮৩,৫৮৩ ৩০,৩৮,৪৫১
১৮ ইউক্রেন ৩৪,৩৮,৩৮১ ৮৫,৯৭৫ ২৯,৪৬,০৩২
১৯ দক্ষিণ আফ্রিকা ২৯,৬৩,৬৭৯ ৮৯,৮২২ ২৮,৪৯,৪৩৯
২০ ফিলিপাইন ২৮,৩২,৭৩৪ ৪৮,৫৪৫ ২৭,৬৮,৩৮৯
২১ নেদারল্যান্ডস ২৬,৪৩,১৭৬ ১৯,৪১৪ ২১,১২,৭০৩
২২ মালয়েশিয়া ২৬,৩২,৭৮২ ৩০,৪২৫ ২৫,৩৭,২০৪
২৩ পেরু ২২,৩৪,৯৭০ ২,০১,১৪৪ ১৭,২০,৬৬৫
২৪ চেক প্রজাতন্ত্র ২১,৫০,০৪২ ৩৩,০৬৯ ১৮,৪৭,৬৯৬
২৫ থাইল্যান্ড ২১,১৫,৮৭২ ২০,৭৬৯ ২০,১৯,৪২৮
২৬ ইরাক ২০,৮১,১৭২ ২৩,৮২০ ২০,৪৫,০২১
২৭ কানাডা ১৭,৯০,১৪২ ২৯,৬৭০ ১৭,৩৪,৫৫৬
২৮ রোমানিয়া ১৭,৭৯,৬৬৭ ৫৬,৫২৯ ১৬,৮৬,৭৫২
২৯ চিলি ১৭,৬২,৭৫১ ৩৮,৩৪৬ ১৬,৫৬,৭০৫
৩০ বেলজিয়াম ১৭,৪৯,৪৬৯ ২৬,৯৬৬ ১৩,৩৩,৮১০
৩১ জাপান ১৭,২৭,২২১ ১৮,৩৫৯ ১৭,০৮,০০৬
৩২ ইসরায়েল ১৩,৪৩,৫৭২ ৮,১৯৬ ১৩,২৯,৭৫২
৩৩ পাকিস্তান ১২,৮৪,৮৪০ ২৮,৭২৮ ১২,৪২,২৩৬
৩৪ সার্বিয়া ১২,৫৪,৮৪৫ ১১,৬৯১ ১১,৯৩,২৬৫
৩৫ ভিয়েতনাম ১২,৩৮,০৮২ ২৫,২৫২ ৯,৮৯,৩৪৮
৩৬ সুইডেন ১২,০৪,৮৫৯ ১৫,১১৯ ১১,৫৮,৪৯৩
৩৭ অস্ট্রিয়া ১১,৫৯,৯৯৫ ১২,৪৯২ ১০,০৭,৯০৯
৩৮ পর্তুগাল ১১,৪৭,২৪৯ ১৮,৪৪১ ১০,৭৫,২৩৭
৩৯ হাঙ্গেরি ১১,০৩,১০৮ ৩৪,৫২১ ৮,৮২,৬৫৯
৪০ সুইজারল্যান্ড ১০,০৯,৯০০ ১১,৫৩১ ৮,৬১,৫০০
৪১ কাজাখস্তান ৯,৭১,৫৪১ ১২,৬৯৬ ৯,৩৫,৯৫০
৪২ কিউবা ৯,৬২,৪৮৬ ৮,৩০৪ ৯,৫৩,৩৩৭
৪৩ জর্ডান ৯,৫৩,৯৪৩ ১১,৬০৮ ৮,৮৭,০৭৪
৪৪ মরক্কো ৯,৪৯,৯১৭ ১৪,৭৭৬ ৯,৩২,২৯১
৪৫ গ্রীস ৯,৩৮,৯০৩ ১৮,১৫৭ ৮,৪৩,০৫০
৪৬ জর্জিয়া ৮,৪৫,৬৪৩ ১২,০৫৪ ৭,৮৮,২০১
৪৭ নেপাল ৮,২১,৩৬৬ ১১,৫২৬ ৮,০২,৯০৯
৪৮ সংযুক্ত আরব আমিরাত ৭,৪২,০৪১ ২,১৪৭ ৭,৩৬,৯৩৯
৪৯ তিউনিশিয়া ৭,১৭,৩০৯ ২৫,৩৬৫ ৬,৯০,৯০৩
৫০ বুলগেরিয়া ৬,৯২,৩৭৬ ২৮,৩২৫ ৫,৫৮,৯২৮
৫১ স্লোভাকিয়া ৬,৮০,০৮৪ ১৪,৪১৮ ৫,৫৫,৫২৫
৫২ লেবানন ৬,৬৮,৬০৫ ৮,৭১৬ ৬,৩২,৬২৩
৫৩ বেলারুশ ৬,৫৪,৭১৮ ৫,০৮১ ৬,৪১,৫৭০
৫৪ গুয়াতেমালা ৬,১৭,৬২১ ১৫,৯৩৩ ৬,০০,১৪৬
৫৫ ক্রোয়েশিয়া ৬,০৮,২০৫ ১০,৮৯৯ ৫,৬৭,৮৬৯
৫৬ আজারবাইজান ৫,৮৮,৩১৮ ৭,৮৫৬ ৫,৫৪,৭৪৯
৫৭ আয়ারল্যান্ড ৫,৭০,১১৫ ৫,৬৫২ ৪,৪১,৫৯৩
৫৮ কোস্টারিকা ৫,৬৬,৫৬০ ৭,২৮৭ ৫,৪৩,৮৭৫
৫৯ শ্রীলংকা ৫,৬৩,৯৮৯ ১৪,৩৪৬ ৫,২৯,৬৬২
৬০ সৌদি আরব ৫,৪৯,৭৫২ ৮,৮৩৬ ৫,৩৮,৯১৩
৬১ বলিভিয়া ৫,৩৭,৫৫৯ ১৯,১৭১ ৪,৯২,৯২১
৬২ ইকুয়েডর ৫,২৬,৬১৫ ৩৩,২১৯ ৪,৪৩,৮৮০
৬৩ মায়ানমার ৫,২১,৯৩১ ১৯,০৯৭ ৪,৯৬,৬৬০
৬৪ ডেনমার্ক ৪,৮৭,৪০১ ২,৮৯৫ ৪,০৩,১১৮
৬৫ পানামা ৪,৭৭,৬০৮ ৭,৩৬২ ৪,৬৭,৫৯৮
৬৬ লিথুনিয়া ৪,৭০,২৯৮ ৬,৭৩৭ ৪,৩৫,৭৬৮
৬৭ প্যারাগুয়ে ৪,৬৩,০০১ ১৬,৪৬৯ ৪,৪৫,৭২৩
৬৮ দক্ষিণ কোরিয়া ৪,৪৭,২৩০ ৩,৬২৪ ৩,৯৬,০৭০
৬৯ ভেনেজুয়েলা ৪,৩১,২৯৬ ৫,১৪৪ ৪,১৮,৪৭২
৭০ ফিলিস্তিন ৪,৩০,০৮৩ ৪,৫৩১ ৪,২২,৬৬১
৭১ স্লোভেনিয়া ৪,২০,৮৯৮ ৫,২২৪ ৩,৭৮,৫৩৬
৭২ কুয়েত ৪,১৩,৩২৭ ২,৪৬৫ ৪,১০,৬১০
৭৩ ডোমিনিকান আইল্যান্ড ৪,০৭,২৫১ ৪,২০৪ ৩,৯৯,৮৯৬
৭৪ উরুগুয়ে ৩,৯৯,৫০৪ ৬,১৩০ ৩,৯১,২৮৮
৭৫ মঙ্গোলিয়া ৩,৮১,৫২৮ ২,০০৩ ৩,১৩,২৫৬
৭৬ হন্ডুরাস ৩,৭৭,৮৮৮ ১০,৪০৩ ১,২০,৩০৮
৭৭ লিবিয়া ৩,৭২,৬৩৬ ৫,৪৫৬ ৩,৪৫,৯৮৬
৭৮ ইথিওপিয়া ৩,৭১,৩৪৬ ৬,৭৫০ ৩,৪৮,৮৮৬
৭৯ মলদোভা ৩,৬৩,১১০ ৯,০৯০ ৩,৪৭,১১৮
৮০ মিসর ৩,৫৭,৬২৯ ২০,৪১২ ২,৯৬,৮৯৭
৮১ আর্মেনিয়া ৩,৩৮,৫১৮ ৭,৫৬৭ ৩,১৭,১৭৫
৮২ ওমান ৩,০৪,৫৫৪ ৪,১১৩ ৩,০০,০০৫
৮৩ বাহরাইন ২,৭৭,৬২৮ ১,৩৯৪ ২,৭৫,৯২৯
৮৪ বসনিয়া ও হার্জেগোভিনা ২,৭৫,০৬৫ ১২,৫৮৬ ১৩,৪৯,৯৫৬
৮৫ নরওয়ে ২,৬৩,৭৯৮ ১,০৫০ ৮৮,৯৫২
৮৬ সিঙ্গাপুর ২,৬৩,৪৮৬ ৭১০ ২,৫০,১৩৪
৮৭ কেনিয়া ২,৫৪,৯৭৯ ৫,৩৩৪ ২,৪৮,৩০৮
৮৮ লাটভিয়া ২,৫৩,৬৫৯ ৪,১৭৯ ২,৩৬,৯৯৭
৮৯ কাতার ২,৪৩,২৯০ ৬১১ ২,৪০,৬৬৬
৯০ এস্তোনিয়া ২,২২,৫৮৪ ১,৭৯৮ ২,০২,১৭৪
৯১ উত্তর ম্যাসেডোনিয়া ২,১৫,১২৫ ৭,৫৬৯ ১,৯৯,৪৬০
৯২ নাইজেরিয়া ২,১৪,১১৩ ২,৯৭৬ ২,০৭,২৯২
৯৩ আলজেরিয়া ২,১০,৫৩১ ৬,০৭১ ১,৪৪,৪৫০
৯৪ অস্ট্রেলিয়া ২,১০,২৩৭ ২,০০৬ ১,৯২,৭৪৬
৯৫ জাম্বিয়া ২,১০,১৬৯ ৩,৬৬৭ ২,০৬,৪০৬
৯৬ আলবেনিয়া ১,৯৯,৭৫০ ৩,০৯২ ১,৮৯,২২৭
৯৭ বতসোয়ানা ১,৯৫,০৬৮ ২,৪১৮ ১,৯২,০৪৮
৯৮ উজবেকিস্তান ১,৯৩,২০৮ ১,৪০২ ১,৮৯,৮৫৯
৯৯ ফিনল্যাণ্ড ১,৮৬,৫৩৮ ১,৩৩৫ ৪৬,০০০
১০০ কিরগিজস্তান ১,৮৩,৩৫১ ২,৭৪৬ ১,৭৮,২৩০
১০১ আফগানিস্তান ১,৫৭,২৮৯ ৭,৩৬৫ ১,৪০,৫৪৯
১০২ মন্টিনিগ্রো ১,৫৭,০৮৫ ২,৩০০ ১,৫২,১৮৬
১০৩ মোজাম্বিক ১,৫১,৫২৮ ১,৯৪১ ১,৫১,৩৮২
১০৪ জিম্বাবুয়ে ১,৩৪,২২৬ ৪,৭০৬ ১,২৮,৭০৩
১০৫ সাইপ্রাস ১,৩৩,৮৬০ ৫৯৪ ১,২৪,৩৭০
১০৬ ঘানা ১,৩০,৯২০ ১,২০৯ ১,২৯,০৪২
১০৭ নামিবিয়া ১,২৯,১৮৭ ৩,৫৭৩ ১,২৫,৪৮৭
১০৮ উগান্ডা ১,২৭,৫১২ ৩,২৫২ ৯৭,৮৪৭
১০৯ কম্বোডিয়া ১,২০,১৩৪ ২,৯৪০ ১,১৬,৫০৭
১১০ এল সালভাদর ১,১৯,৮০৩ ৩,৭৭৬ ১,০২,৯৮২
১১১ ক্যামেরুন ১,০৬,৭৯৪ ১,৭৯১ ১,০২,৭১৬
১১২ রুয়ান্ডা ১,০০,৩৪৪ ১,৩৪২ ৪৫,৫২১
১১৩ চীন ৯৮,৭১১ ৪,৬৩৬ ৯৩,২৮৫
১১৪ মালদ্বীপ ৯১,৫৪৩ ২৫০ ৮৯,৫৪৭
১১৫ জ্যামাইকা ৯১,২২২ ২,৩৯১ ৬২,৫৩৯
১১৬ লুক্সেমবার্গ ৮৯,১৮১ ৮৭৫ ৮৩,৯১৯
১১৭ সেনেগাল ৭৩,৯৮৭ ১,৮৮৫ ৭২,০৯১
১১৮ লাওস ৭৩,৭৩৮ ১৭০ ৭,৩৩৯
১১৯ ত্রিনিদাদ ও টোবাগো ৭০,৫৯৮ ২,১৩৪ ৫৭,৯০৬
১২০ অ্যাঙ্গোলা ৬৫,১৫৫ ১,৭৩৩ ৬৩,২০৬
১২১ মালাউই ৬১,৯০১ ২,৩০৫ ৫৮,৭৯৫
১২২ আইভরি কোস্ট ৬১,৭১২ ৭০৪ ৬০,৭২১
১২৩ রিইউনিয়ন ৫৯,০৪৮ ৩৮১ ৫৬,০৪০
১২৪ ড্যানিশ রিফিউজি কাউন্সিল ৫৮,২৩৪ ১,১০৭ ৫০,৯৩০
১২৫ গুয়াদেলৌপ ৫৫,১৪৭ ৭৪৬ ২,২৫০
১২৬ ফিজি ৫২,৫০৬ ৬৯৬ ৫১,০৩৭
১২৭ সুরিনাম ৫০,৮২৩ ১,১৬৬ ২৯,৫৭০
১২৮ সিরিয়া ৪৮,০৬৮ ২,৭৪৪ ২৯,০৭৮
১২৯ ইসওয়াতিনি ৪৬,৫৮২ ১,২৪৮ ৪৫,২৪১
১৩০ ফ্রেঞ্চ গায়ানা ৪৫,৯৩৯ ৩২৭ ১১,২৫৪
১৩১ ফ্রেঞ্চ পলিনেশিয়া ৪৫,৬০৯ ৬৩৬ ৩৩,৫০০
১৩২ মাদাগাস্কার ৪৪,৩৩০ ৯৬৭ ৪২,৯১৫
১৩৩ মার্টিনিক ৪৪,৩১৮ ৭০০ ১০৪
১৩৪ সুদান ৪২,৮২৬ ৩,১৪১ ৩২,৯০৫
১৩৫ মালটা ৩৯,৪৩৫ ৪৬৮ ৩৭,৩৮৬
১৩৬ মৌরিতানিয়া ৩৯,২১৩ ৮৩১ ৩৭,৪৬৮
১৩৭ কেপ ভার্দে ৩৮,৩৬৭ ৩৫০ ৩৭,৯৪৯
১৩৮ গায়ানা ৩৭,৮২৫ ৯৯২ ৩৫,৩৭৯
১৩৯ গ্যাবন ৩৭,৩৪২ ২৭৯ ৩২,২৯৬
১৪০ পাপুয়া নিউ গিনি ৩৫,১৭৯ ৫৪৬ ৩৩,৯৮৯
১৪১ গিনি ৩০,৭৭০ ৩৮৭ ২৯,৭২৫
১৪২ বেলিজ ৩০,৩৩৮ ৫৭৪ ২৮,৬৪৬
১৪৩ তানজানিয়া ২৬,২৬১ ৭৩০ ১৮৩
১৪৪ টোগো ২৬,২৫০ ২৪৩ ২৫,৯০৭
১৪৫ হাইতি ২৫,১৭৫ ৭৩৮ ২১,২৬২
১৪৬ বার্বাডোস ২৫,১৫২ ২২৮ ২১,৭২৭
১৪৭ বেনিন ২৪,৮৫০ ১৬১ ২৪,৫৪৬
১৪৮ সিসিলি ২৩,১৯৭ ১২৫ ২২,৫৯০
১৪৯ সোমালিয়া ২৩,০১৬ ১,৩২৭ ১২,০৪৬
১৫০ বাহামা ২২,৭৬৩ ৬৭১ ২১,৬০৭
১৫১ লেসোথো ২১,৭৭৯ ৬৬২ ১৩,৬৮৯
১৫২ মরিশাস ২১,৩৮৬ ৪৫৫ ১৯,৫৪৩
১৫৩ মায়োত্তে ২০,৯৬০ ১৮৫ ২,৯৬৪
১৫৪ বুরুন্ডি ২০,৪১৫ ৩৮ ৭৭৩
১৫৫ পূর্ব তিমুর ১৯,৮২২ ১২২ ১৯,৬৯৭
১৫৬ কঙ্গো ১৮,৯০৫ ৩৫৪ ১২,৪২১
১৫৭ আইসল্যান্ড ১৭,৮৯৪ ৩৫ ১৬,৩১৮
১৫৮ চ্যানেল আইল্যান্ড ১৭,৮৮৪ ১০৩ ১৫,৭১৩
১৫৯ কিউরাসাও ১৭,৪০১ ১৭৮ ১৭,১১৯
১৬০ মালি ১৭,৩৬৪ ৬০৬ ১৫,১৩৫
১৬১ নিকারাগুয়া ১৭,১৫২ ২০৯ ৪,২২৫
১৬২ তাজিকিস্তান ১৭,০৯৫ ১২৪ ১৬,৯৬৬
১৬৩ এনডোরা ১৬,৭১২ ১৩১ ১৫,৭৭০
১৬৪ তাইওয়ান ১৬,৬০১ ৮৪৮ ১৫,৬০৮
১৬৫ আরুবা ১৬,৩৩৫ ১৭৪ ১৫,৯৮৬
১৬৬ বুর্কিনা ফাঁসো ১৫,৭১১ ২৮১ ১৫,২১১
১৬৭ ব্রুনাই ১৫,০৫৮ ৯৭ ১৪,৪৫১
১৬৮ ইকোয়েটরিয়াল গিনি ১৩,৫৭৯ ১৭৩ ১৩,৩২৩
১৬৯ জিবুতি ১৩,৫০৪ ১৮৬ ১৩,২৯৩
১৭০ সেন্ট লুসিয়া ১২,৯৮৯ ২৮০ ১২,৫৯২
১৭১ দক্ষিণ সুদান ১২,৭৫৫ ১৩৩ ১২,৪৬৩
১৭২ হংকং ১২,৪৩৭ ২১৩ ১২,১৩৩
১৭৩ নিউ ক্যালেডোনিয়া ১২,১৫৯ ২৭৬ ১১,৫৯১
১৭৪ সেন্ট্রাল আফ্রিকান রিপাবলিক ১১,৭০৮ ১০১ ৬,৮৫৯
১৭৫ নিউজিল্যান্ড ১১,৫৭৬ ৪৪ ৫,৬৫৪
১৭৬ আইল অফ ম্যান ১১,২৩০ ৬৬ ১০,৫২২
১৭৭ ইয়েমেন ৯,৯৯৫ ১,৯৪৯ ৬,৮৭৩
১৭৮ গাম্বিয়া ৯,৯৮৯ ৩৪২ ৯,৬৩৮
১৭৯ ইরিত্রিয়া ৭,৩৪১ ৬০ ৭,০৮৪
১৮০ জিব্রাল্টার ৭,২৪৮ ৯৮ ৬,৬৯৮
১৮১ কেম্যান আইল্যান্ড ৭,০৭৪ ২,৯৯০
১৮২ নাইজার ৬,৯৮৯ ২৫৮ ৬,৫৮১
১৮৩ গিনি বিসাউ ৬,৪৪০ ১৪৮ ৬,২৬৮
১৮৪ সিয়েরা লিওন ৬,৪০২ ১২১ ৪,৩৯৩
১৮৫ সান ম্যারিনো ৫,৯৭৯ ৯৩ ৫,৬১০
১৮৬ ডোমিনিকা ৫,৯৫৫ ৩৮ ৫,৪৭৫
১৮৭ লাইবেরিয়া ৫,৯১৫ ২৮৭ ৫,৫২৩
১৮৮ গ্রেনাডা ৫,৮৯৪ ২০০ ৫,৬২৪
১৮৯ বারমুডা ৫,৭৪৮ ১০৬ ৫,৬০৯
১৯০ সেন্ট ভিনসেন্ট ও গ্রেনাডাইন আইল্যান্ড ৫,৫২৫ ৭৪ ৪,৯৯১
১৯১ চাদ ৫,১০৫ ১৭৫ ৪,৮৭৪
১৯২ লিচেনস্টেইন ৪,৬৩৩ ৬১ ৪,২০৬
১৯৩ সিন্ট মার্টেন ৪,৫৮৪ ৭৫ ৪,৪৮৫
১৯৪ কমোরস ৪,৫০১ ১৫০ ৪,২৯৬
১৯৫ অ্যান্টিগুয়া ও বার্বুডা ৪,১৪১ ১১৭ ৪,০০৮
১৯৬ সেন্ট মার্টিন ৩,৯৪৯ ৫৬ ১,৩৯৯
১৯৭ মোনাকো ৩,৭৩৮ ৩৬ ৩,৫৬০
১৯৮ ফারে আইল্যান্ড ৩,৫৫৩ ১৩ ৩,১১০
১৯৯ টার্কস্ ও কেইকোস আইল্যান্ড ৩,০৯৬ ২৪ ৩,০২১
২০০ ক্যারিবিয়ান নেদারল্যান্ডস ২,৯০৫ ২২ ৬,৪৪৫
২০১ সেন্ট কিটস ও নেভিস ২,৭৮২ ২৮ ২,৭৩২
২০২ ব্রিটিশ ভার্জিন দ্বীপপুঞ্জ ২,৭৬৫ ৩৮ ২,৬৪৯
২০৩ ভুটান ২,৬৪০ ২,৬২৩
২০৪ সেন্ট বারথেলিমি ১,৬০১ ৪৬২
২০৫ গ্রীনল্যাণ্ড ১,৪৫৬ ১,১৫৬
২০৬ এ্যাঙ্গুইলা ১,৩৮৬ ১,২৭৩
২০৭ ডায়মন্ড প্রিন্সেস (প্রমোদ তরী) ৭১২ ১৩ ৬৯৯
২০৮ ওয়ালিস ও ফুটুনা ৪৪৫ ৪৩৮
২০৯ ফকল্যান্ড আইল্যান্ড ৭৯ ৬৮
২১০ ম্যাকাও ৭৭ ৭৭
২১১ সেন্ট পিয়ের এন্ড মিকেলন ৫৯ ৩২
২১২ মন্টসেরাট ৪৪ ৪৩
২১৩ ভ্যাটিকান সিটি ২৭ ২৭
২১৪ সলোমান আইল্যান্ড ২০ ২০
২১৫ পশ্চিম সাহারা ১০
২১৬ জান্ডাম (জাহাজ)
২১৭ পালাও
২১৮ ভানুয়াতু
২১৯ মার্শাল আইল্যান্ড
২২০ সামোয়া
২২১ সেন্ট হেলেনা
২২২ টাঙ্গা
তথ্যসূত্র: চীনের জাতীয় স্বাস্থ্য কমিশন (সিএনএইচসি) ও অন্যান্য।

টাইমলাইন  

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]