টুইটারে ট্রেন্ডিং ‘ইসরায়েলের পক্ষে ভারত’

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৪:৪৩ পিএম, ১২ মে ২০২১ | আপডেট: ০৫:০৮ পিএম, ১২ মে ২০২১

ফিলিস্তিনিদের ওপর সপ্তাহখানেক ধরে ব্যাপকহারে দমন-পীড়ন, হামলা, হত্যাযজ্ঞ চালাচ্ছে দখলদার ইসরায়েল। তাদের হামলায় গত তিন দিনে অবরুদ্ধ গাজা উপত্যকায় প্রাণ হারিয়েছেন অন্তত ৩৬ জন। ইসরায়েলিদের এমন বর্বরতার প্রতিবাদে ফুঁসছে বিশ্বের শান্তিপ্রিয় মানুষজন। অথচ এর মধ্যেও ইসরায়েলকেই সমর্থন করছেন ভারতীয়দের বিশাল একটি অংশ।

ইন্টারনেটের যুগে কোনো বিষয়ে সমর্থন বা প্রতিবাদ জানানোর অন্যতম মাধ্যম হয়ে উঠেছে টুইটার। ভারতেও বেশ জনপ্রিয় সামাজিক যোগাযোগের এ মাধ্যমটি। গত দু’দিন ধরে সেখানে ট্রেন্ডিং দেখা যাচ্ছে ‘ভারত উইথ ইসরায়েল ইরফান’ (ভারত ইসরায়েলের পক্ষে, ইরফান) ও ‘ইন্ডিয়া স্ট্যান্ডস উইথ ইসরায়েল’ হ্যাশট্যাগ।

টুইটারট্রেন্ডস নামে একটি ওয়েবসাইটের হিসাবে, বুধবার দেশটিতে টুইটার ট্রেন্ডিংয়ে যথাক্রমে দ্বিতীয় ও পঞ্চম অবস্থানে রয়েছে ইসরায়েলকে সমর্থনকারী হ্যাশট্যাগ দুটি।

‘ভারত উইথ ইসরায়েল ইরফান’ হ্যাশট্যাগ ব্যবহার করে ভারতে এ পর্যন্ত ৪৫ হাজারের বেশি টুইট করা হয়েছে। আর ‘ইন্ডিয়া স্ট্যান্ডস উইথ ইসরায়েল হ্যাশট্যাগ দিয়ে টুইট করা হয়েছে ১ লাখ ৩২ হাজারেরও বেশি।

এদের মধ্যে অনেকেই ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ও ইসরায়েলি প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহুর ছবি ব্যবহার করে ‘বেস্ট ফ্রেন্ড’, ‘এ দোস্তি নেহি তোড়েঙ্গে’ (এই বন্ধুত্ব ভাঙবে না) জাতীয় কথাবার্তা লিখেছেন।

জানা যায়, ঘটনার শুরু গত বুধবার। এদিন ভারতের জাতীয় দলের সাবেক ক্রিকেটার ইরফান পাঠান ফিলিস্তিনে ইসরায়েলি আগ্রাসনের প্রতিবাদ জানিয়ে একটি টুইট করেন। তিনি লেখেন, ‘আপনার ভেতর যদি বিন্দুমাত্র মানবতা থাকে, তবে কখনোই ফিলিস্তিনে যা হচ্ছে তাতে সমর্থন করবেন না।’ টুইটের শেষে ‘সেভ হিউম্যানিটি’ (মানবতা বাঁচাও) হ্যাশট্যাগ যোগ করেন এ তারকা।

এরপরেই ইরফানের সমালোচনায় হুমড়ি খেয়ে পড়ে একশ্রেণির মানুষ। তারা ইসরায়েলের পক্ষ নিয়ে পাল্টা ‘ভারত উইথ ইসরায়েল ইরফান’ হ্যাশট্যাগ চালু করেন। আর দেখতে দেখতেই সেটি গোটা ভারতে ‘টপ টু’ ট্রেন্ডিংয়ে পরিণত হয়।

অবশ্য জনগণের একাংশ সরাসরি ইসরায়েলকে সমর্থন করলেও ইসরায়েল-ফিলিস্তিনের মধ্যে সাম্প্রতিক উত্তেজনা বৃদ্ধিতে ‘গভীর উদ্বেগ’ জানিয়েছে ভারত সরকার।

জাতিসংঘে ভারতের স্থায়ী প্রতিনিধি টিএস ত্রিমূর্তি এক টুইটে জানিয়েছেন, মঙ্গলবার নিরাপত্তা পরিষদের বৈঠকে পূর্ব জেরুজামের উত্তেজনাকর পরিস্থিতি নিয়ে উদ্বেগ জানিয়েছেন তিনি।


এ কর্মকর্তা বলেছেন, হারাম আল শরিফে সংঘর্ষ-সহিংসতার পাশাপাশি শেখ জাররাহ ও সিলোয়ান এলাকা থেকে ফিলিস্তিনিদের উচ্ছেদ নিয়ে গভীরভাবে উদ্বিগ্ন ভারত। ওই অঞ্চলের ‘স্থিতিশীলতায়’ পরিবর্তন না আনতে উভয়পক্ষের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন তিনি। পাশাপাশি, গাজা থেকে ইসরায়েলকে লক্ষ্য করে রকেট হামলারও নিন্দা জানিয়েছেন এ ভারতীয় কর্মকর্তা।

ভারতীয়দের সঙ্গে ইসরায়েলিদের বন্ধুত্ব অবশ্য নতুন কিছু নয়। গত রোববারই ইসরায়েল থেকে পাঠানো মেডিক্যাল সরঞ্জামের তৃতীয় চালান পৌঁছেছে ভারতে। করোনা মহামারিতে বিপর্যস্ত দেশটিকে এ পর্যন্ত ৬০ টন মেডিক্যাল সরঞ্জাম, তিনটি অক্সিজেন জেনারেটর, ১ হাজার ৭১০টি অক্সিজেন কনসেন্ট্রেটর ও ৪২০টি ভেন্টিলেটর দিয়েছে ইসরায়েল।

কেএএ/জিকেএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]