উভয় সিটির সক্ষমতা বাড়েনি, এভাবে চলতে পারে না

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০১:৫৫ পিএম, ২৪ এপ্রিল ২০১৯

ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের (ডিএসসিসি) মেয়র সাঈদ খোকন বলেছেন, আমাদের জনবল বাড়েনি। আমরা যে পরিমাণ আয় করি তার চেয়ে চারগুণ উন্নয়ন ব্যয় হয়। সুতরাং আমাদের আর্থিক দিকটিও বাড়াতে হবে। আমাদের উভয় সিটির সক্ষমতা সেভাবে বাড়েনি। এভাবে চলতে পারে না। তাই প্রতিষ্ঠানটির (ডিএসসিসি) সক্ষমতা আমরা বাড়াতে চাই।

বুধবার নগর ভবনে মেয়র মোহাম্মদ হানিফ অডিটরিয়ামে ‘পৌরকর মেলা ২০১৯’ এর উদ্বোধনকালে তিনি এসব কথা বলেন।

এ মেলা ১২ দিনব্যাপী চলবে। ডিএসসিসির রাজস্ব আদায় বৃদ্ধির স্বার্থে এবং নগরবাসীকে বিশেষ সুবিধা দেয়ার জন্য এ মেলার আয়োজন করা হয়েছে।

মেলায় ডিএসসিসি নগরবাসীকে হোল্ডিং ট্যাক্স (পৌরকর) মোট বকেয়ার ওপর ১৫ শতাংশ মওকুফ এবং চলতি অর্থ বছরের হালনাগাদ পৌরকর একত্রে পরিশোধ করলে আরও ১০ শতাংশ (রিবিট) ছাড়া দেয়া হবে।

মেয়র বলেন, সিটি কর্পোরেশন আইন ২০০৯ অনুযায়ী সিটি কর্পোরেশনগুলো তার এলাকায় সরকারের অর্জিত আয়ের ওপর উপকর আরোপ করতে পারবে। আইনটি যদি বাস্তবায়ন করা যায় তাহলে এ দুর্দশা কেটে যাবে।

এ জন্য অর্থ মন্ত্রণালয়ের প্রতি আহ্বান জানিয় মেয়র বলেন, ‘সিটি কর্পোরেশনগুলোর অধিক্ষেত্র এলাকাগুলেতে কেন্দ্রীয় সরকার যেসব কর আহরণ করছে সেখান থেকে উপকর দেয়ার জন্য আমি অর্থ মন্ত্রণালর প্রতি আহ্বান জানাচ্ছি। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ থাকার পরও আমলাতান্ত্রিক জটিলতার কারণে এটি বাস্তবায়ন হচ্ছে না। এ আইন কার্যকর করতে হবে।

বদলে দেব এ শহর

তিনি বলেন, আমি যেদিন ঢাকা দক্ষিণের দায়িত্বভার গ্রহণ করেছিলাম তার ১০ দিনের মাথায় বকেয়া বিদ্যুৎ বিলের কারণে সংযোগ বিচ্ছিন্নের উপক্রম ছিল। কিন্তু আজ এ নগরী এলইডি বাতিতে আলোকিত। শতকরা ৯৯ভাগ বাতি জ্বালিয়ে দিতে সক্ষম হয়েছি। ৮৫ ভাগ রাস্তা চলাচলের উপযোগী।

তিনি বলেন, জলসবুজে ঢাকা প্রকল্পের মাধ্যমে মাঠ ও পার্কগুলো বদলে যেতে শুরু করেছে। আজ আমরা গর্বের সঙ্গে বলতে পারি ঢাকা দক্ষিণ সিটির ইতিবাচক পরিবর্তন করতে পেরেছি। উন্নয়নের মাধ্যেমে আমরা বদলে দিতে চাই এ শহর।

এএস/জেডএ/এমকেএইচ

আপনার মতামত লিখুন :