ভাইরাল ভিডিও নিয়ে দুঃখ প্রকাশ ও ব্যাখ্যা দিলেন ধর্ম প্রতিমন্ত্রী

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০৩:৩২ পিএম, ১০ নভেম্বর ২০১৯

সম্প্রতি ফেসবুকসহ সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল হওয়া একটি বক্তব্যের ভিডিওর বিষয়ে ব্যাখ্যা প্রদান ও দুঃখ প্রকাশ করে বিবৃতি দিয়েছেন ধর্ম প্রতিমন্ত্রী অ্যাডভোকেট শেখ মো. আব্দুল্লাহ। অভিযোগ উঠেছে ওই ভিডিওতে দেয়া তার বক্তব্যে সুন্নি আলেম-ওলামাদের হেয় করা হয়েছে।

ধর্ম প্রতিমন্ত্রী বর্তমানে লন্ডনে অবস্থান করছেন। ভাইরাল হওয়া ভিডিওটি তার নজরে এসেছে। এ নিয়ে দুদিন ধরে সুন্নি আলেম-ওলামাদের বিক্ষোভের খবরও পৌঁছে গেছে তার কাছে। এক পর্যায়ে সেখান থেকে ওই ভিডিওর ব্যাপারে দুঃখ প্রকাশ করে বিবৃতি দেন প্রতিমন্ত্রী।

ধর্ম মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র তথ্য কর্মকর্তা আনোয়ার হোসাইন স্বাক্ষরিত ওই বিবৃতি আজ (রোববার) সকালে গণমাধ্যমে পাঠানো হয়।

বিবৃতিতে ধর্ম প্রতিমন্ত্রী শেখ মো. আব্দুল্লাহ বলেন, ‘এ বছর আমরা ধর্মবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের তত্ত্বাবধানে বাংলাদেশের ইতিহাসে সর্বপ্রথম দেশের সকল ধারার শীর্ষস্থানীয় ৫৮ জন হাক্কানি ওলামায়ে কেরামের সমন্বয়ে হজ ওলামা মাশায়েখ টিম গঠন করে পবিত্র হজে প্রেরণ করি। আমরা অত্যন্ত আন্তরিকতা এবং সম্মানের সঙ্গে তাদের জন্য পবিত্র মক্কা, মিনা, আরাফা এবং মদিনা শরিফে আবাসন, পরিবহন, খাবারসহ হজের বিধি-বিধান পালনে যাবতীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করি।’

‘ওলামায়ে কেরামগণ পবিত্র হজের মূল আনুষ্ঠানিকতা শুরুর পূর্বে পবিত্র মক্কা শরিফে ছোট ছোট দলে ভাগ হয়ে বাংলাদেশি হাজি সাহেবদের আবাসস্থলে গিয়ে সঠিকভাবে হজপালনে হজের বিধি-বিধানের ওপর আলোচনা করেন। একইভাবে মিনা এবং আরাফায় অবস্থানকালে বিভিন্ন তাঁবুতে গিয়ে তারা বাংলাদেশি হাজিদের পবিত্র হজের ইবাদতের বিষয়ে বয়ান করেন। বাংলাদেশের সম্মানিত হাজি সাহেবগণ, ওলামায়ে কেরাম ও দেশ-বিদেশের বিভিন্ন শ্রেণি পেশার বাংলাদেশি নাগরিকগণ সরকারের এ উদ্যোগের ভূয়সী প্রশংসা করেন।’

বিবৃতিতে ধর্ম প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘সম্প্রতি দেশের ওলামা-মাশায়েখদের এক আলোচনা সভায় দেশের হাক্কানি ওলামায়ে কেরামগণের হজে প্রেরণের ব্যবস্থাপনা নিয়ে আলোচনা করতে গিয়ে আমি স্বাধীনতাবিরোধী জামায়াত-শিবিরচক্রের প্রতি ইঙ্গিত করে বক্তব্য প্রদান করি। আলিয়া মাদরাসা কিংবা আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাতের কোনো আলেমকে হেয় করে বক্তব্য প্রদান আমার উদ্দেশ্য ছিল না। মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী সকল ধারার হাক্কানি ওলামায়ে কেরামের প্রতি আমার সর্বোচ্চ শ্রদ্ধা ও সম্মান রয়েছে। তারপরও আমার বক্তব্যে কেউ আঘাত পেয়ে থাকলে অনিচ্ছাকৃত ভুলের জন্য আমি দুঃখ প্রকাশ করছি।’

দুদিন আগে মধ্যরাতে ফেসবুকসহ সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ধর্ম প্রতিমন্ত্রীর ডিভিওটি ভাইরাল হয়। তারপর থেকে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ধর্ম প্রতিমন্ত্রীর ওপর ক্ষুব্ধ হন আলিয়া মাদরাসার আলেম-ওলামা, বিশেষ করে সুন্নি আলেম-ওলামা ও শিক্ষার্থীরা।

তারা সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ক্ষুব্ধ মনোভাব প্রকাশের পাশাপাশি মাঠপর্যায়ে কর্মসূচি ঘোষণা করেন। শনিবার বিকেলে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে ধর্ম প্রতিমন্ত্রীর বিরুদ্ধে ইসলামী ছাত্রসেনা মানববন্ধন করে।

আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাতের পক্ষে উপাধ্যক্ষ আল্লামা আবুল কাসেম ফজলুল হক অনলাইনে ভিডিও বার্তায় ধর্ম প্রতিমন্ত্রীর এ হেন বক্তব্যের নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে এই বক্তব্য দ্রুত প্রত্যাহারের জন্য প্রতিমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করেন।

ধর্ম প্রতিমন্ত্রীর বক্তব্যে ক্ষুব্ধ হয়ে সংবাদ সম্মেলনসহ কর্মসূচি দেয়ার কথা বলেন মহাজোটের শরিক তরিকত ফেডারেশনের নেতারা। এক পর্যায়ে ধর্ম প্রতিমন্ত্রী লন্ডন থেকে ক্ষুব্ধ আলেম-ওলামা ও আহলে সুন্নাত জামায়াতের নেতাদের সঙ্গে কথা বলেন। তাদের কাছে দুঃখ প্রকাশ করেন।

এমইউ/বিএ/পিআর