পূর্ণাঙ্গ কমিটি নিয়ে সহযোগীদের চাপে রাখার কৌশল

আমানউল্লাহ আমান
আমানউল্লাহ আমান আমানউল্লাহ আমান , নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১০:৪৮ এএম, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০

পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠন নিয়ে সহযোগী সংগঠনগুলোর শীর্ষ দুই নেতাকে চাপে রাখার কৌশল নিয়েছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ। দলটির নেতাদের কাছ থেকে জানা যায়, পদ-পদবি পেতে সংগঠনের কর্মীরা সবসময় সক্রিয়ভাবে রাজনৈতিক কর্মকাণ্ডে অংশগ্রহণ করছে। এই অংশগ্রহণ অব্যাহত রাখতেই সহযোগী সংগঠনগুলোকে চাপে রাখার কৌশল নেয়া হয়েছে।

আওয়ামী লীগ সূত্রে জানা যায়, জাতীয় শ্রমিক লীগ, কৃষক লীগ ও আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগ প্রস্তাবিত কেন্দ্রীয় কমিটির চূড়ান্ত অনুমোদনের জন্য আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার কাছে জমা দেয়া হয়েছে। কমিটিগুলো যাচাই-বাছাই করেই অনুমোদন দেয়া হবে বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা।

আওয়ামী লীগের নেতাদের ভাষ্য অনুযায়ী, পূর্ণাঙ্গ কমিটির অনুমোদনের পরই সাংগঠনিক কর্মকাণ্ডে পদ পাওয়া নেতাদের আগ্রহ হারিয়ে যেতে পারে। এমন পরিস্থিতি যেন তৈরি না, মাঠের রাজনীতি আরও সক্রিয় যাতে থাকে সেজন্য পূর্ণাঙ্গ কমিটির চূড়ান্ত অনুমোদনের আগে কিছুটা সময় নেয়া হচ্ছে।

করোনা পরিস্থিতির কারণে টানা ছয় মাস সাংগঠনিক কর্মকাণ্ড স্থগিত রাখে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ। চলতি মাসে দলটির সম্পাদকমণ্ডলীর বৈঠকে ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের দুই অংশ এবং সম্মেলন হওয়া পাঁচ সহযোগী সংগঠনের (কৃষক লীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ, যুবলীগ, মৎস্যজীবী লীগ ও জাতীয় শ্রমিক লীগ) পূর্ণাঙ্গ কমিটি জমা দেয়ার নির্দেশ দেয়া হয়। চলতি মাসের ১৬ তারিখে (সেপ্টেম্বর) দলটির সভাপতিমণ্ডলীর সভায় জমা পড়া কমিটি নিয়ে আলোচনা হয়।

আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতারা জানান, প্রস্তাবিত কমিটিগুলোতে বিতর্কিত কাউকে পদায়নের প্রস্তাব করা হয়ে থাকলে তাদের বাদ দেয়া হবে। সংগঠনকে আরও বেশি বিকশিত করার জন্য দলের সর্বোচ্চ নীতিনির্ধারণী ফোরাম সভাপতিমণ্ডলীর সভায় গৃহীত সিদ্ধান্ত অনুযায়ী প্রস্তাবিত কমিটিগুলো চূড়ান্ত অনুমোদন পাবে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক সভাপতিমণ্ডলীর এক সদস্য বলেন, করোনাকালে এতকিছুর পরও কমিটির অগ্রগতি হচ্ছে, সেটা প্রশংসার যোগ্য। এটাই বাস্তবতা। এর মাধ্যমে তাদের আমরা চাপে রেখেছি। তারাও চাপে থাকুক।

আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য মো. আব্দুর রহমান বলেন, জমা দেয়া কমিটিগুলো যাচাই-বাছাই করতে হবে। এর মধ্যে কোনো অযাচিত লোক থাকলে খুঁজে বের করতে হবে। বিতর্কিত থাকলে তাদের বাদ দিয়ে কমিটির অনুমোদন দেয়া হবে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক আওয়ামী লীগের সর্বোচ্চ নীতিনির্ধারণী ফোরামের অপর এক নেতা বলেন, আগামী ৩ অক্টোবর দলের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির সভা আহ্বান করা হয়েছে। ওই সভায় ঢাকা মহানগর উত্তর, দক্ষিণ আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনসমূহের পূর্ণাঙ্গ কমিটির বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হবে বলে আশা করা যাচ্ছে।

এইউএ/এমএআর/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]