খালেদা জিয়ার মুক্তির জন্য রাজপথের বিকল্প নেই: দুদু

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০২:০১ পিএম, ২৮ নভেম্বর ২০২১

বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদু বলেছেন, দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে চাইলে, বিদেশে সুচিকিৎসার জন্য পাঠাতে চাইলে একমাত্র পথ জনগণকে সঙ্গে নিয়ে রাজপথে নামতে হবে। রাজপথে নামা ছাড়া কোনো বিকল্প নেই। এখন আর বসে থাকলে চলবে না।

রোববার (২৮ নভেম্বর) জাতীয় প্রেস ক্লাবের আবদুস সালাম হলে আয়োজিত প্রতিবাদ সমাবেশে তিনি এসব কথা বলেন। বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে উন্নত চিকিৎসার জন্য বিদেশে যেতে অনুমতি না দেওয়ার প্রতিবাদে জাতীয়তাবাদী সাংস্কৃতিক দল এ প্রতিবাদ সমাবেশের আয়োজন করে।

অনুষ্ঠানে শামসুজ্জামান দুদু বলেন, একে অপরের সমালোচনা করার অনেক জায়গা আছে। তবে কে আসলো, কে থাকলো আর কে চলে গেল- এটা দেখার বিষয় না। যে আসবে তাকে নিয়েই রাজপথে নামতে হবে।

তিনি বলেন, এইভাবে একটি দেশ চলতে পারে না। সরকার চাইলে আলোচনা করতে পারে। আর সরকার যদি না চায় তাহলে রাজপথে নামতে হবে। সেখানে (রাজপথ) কে থাকলো আর কে থাকলো না সেটা বিষয় না। এটা এদেশের জনগণ করবে। শহীদ জিয়া ও বেগম খালেদা জিয়াকে দেখেছি ওনারা কিভাবে আন্দোলন করেছেন। আমরা তো তাদেরই উত্তরসূরী। তাই আসুন সবাই ঐক্যবদ্ধ হই এবং রাজপথে নেমে বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্ত করি।

আওয়ামী লীগের মন্ত্রীদের মাথা একটু একটু করে নষ্ট হচ্ছে মন্তব্য করে বিএনপির এ নেতা বলেন, রাস্তা কিন্তু একটু একটু করে উত্তাপ হচ্ছে। মন্ত্রীদের কথা শুনলে বোঝা যায় তাদের মাথা নষ্ট হচ্ছে, সমস্যা হচ্ছে।

‘হায়াত-মউত আল্লাহর হাতে’- আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের এ কথা টেনে ছাত্রদলের সাবেক সভাপতি বলেন, ওবায়দুল কাদের বলেছেন হায়াত-মউত আল্লাহর হাতে। আমাদের সময় (বিএনপি যখন ক্ষমতায়) আমাদের এক মন্ত্রী বলেছিলেন আল্লাহর মাল আল্লাহ নিয়ে গেছে। তখন তারা (আওয়ামী লীগ) যেভাবে প্রচার করেছিল! তখন আপনাদের খুব খারাপ লেগেছিল? আর এখন কেন আপনি বসে আছেন? এয়ারবাস নিয়ে চিকিৎসা করাতে বিদেশে গিয়েছিলেন। দেবী শেঠীকে নিয়ে এসেছিলেন- তিনি বলেছিলেন, এখনি নিয়ে যান। আর ১০-১২ জন ডাক্তার বেগম খালেদা জিয়ার কথা বলেছেন- ‘এখন না গেলে পরে নিয়ে গিয়ে লাভ হবে না’।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উদ্দেশ্যে শামসুজ্জামান দুদু বলেন, আপনি শুধু বেগম খালেদা জিয়াকে উন্নত চিকিৎসার জন্য বিদেশে যেতে দেন, তাহলে আপনি একজন মহৎ ব্যক্তি হিসেবে চিহ্নিত হবেন। আর যদি কোনোক্রমে কোনো দুর্ঘটনা ঘটে, তাহলে ইতিহাসে যে ব্যক্তি হিসেবে চিহ্নিত হবেন তা বলার অপেক্ষা রাখে না।

নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, দায় আমাদের আছে। সবাই ঐক্যবদ্ধ হয়ে পার্টির নির্দেশ অনুযায়ী রাস্তায় আসেন তাহলে আমরা আমাদের নেত্রী কে বাঁচাতে পারবো। তাহলে বাংলাদেশকে বাঁচাতে পারবো।

আয়োজক সংগঠনের সভাপতি হুমায়ুন কবির বেপারীর সভাপতিত্বে সভায় আরও বক্তব্য দেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য বেগম সেলিমা রহমান, যুগ্ম মহাসচিব খায়রুল কবির খোকন, স্বনির্ভর বিষয়ক সম্পাদক শিরিন সুলতানা, নির্বাহী কমিটির সদস্য আবু নাসের মো. রহমাতুল্লাহ, দেশ বাঁচাও মানুষ বাঁচাও আন্দোলনের সভাপতি কে এম রকিবুল ইসলাম রিপন প্রমুখ।

এএএম/কেএসআর/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]