বিশ্বকাপ ফাইনালের সেই ওভার থ্রো পর্যালোচনা করবে এমসিসি

স্পোর্টস ডেস্ক
স্পোর্টস ডেস্ক স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৫:০৬ পিএম, ১৩ আগস্ট ২০১৯

এক ওভার থ্রোয়ে পুরো ফাইনাল হয়ে পড়লো বিতর্কিত। ইংল্যান্ড বিশ্বকাপ ফাইনালের শেষ ওভারে মার্টিন গাপটিলের বিতর্কিত ওভার থ্রো-টি উঠছে এবার ক্রিকেটের আইন তৈরি করা সংস্থা মেরিলিবোর্ন ক্রিকেট ক্লাব বা এমসিসির টেবিলে।

আগামী সেপ্টেম্বরই সেই বিতর্কিত ওভার থ্রো রিভিউ করা হবে বলে জানিয়েছে এমসিসি। বিশ্বকাপ ফাইনালে নিউজিল্যান্ডের ২৪২ রান তাড়া করতে নেমে প্রায় একাই ইংল্যান্ডকে টেনে নিয়ে যান বেন স্টোকস। ম্যাচের শেষ ওভারে রান নিতে গিয়ে ডিপ মিড উইকেট অঞ্চল থেকে মার্টিন গাপ্তিলের ছোড়া বল স্টোকসের ব্যাটে লেগে বাউন্ডারি পার হয়ে যায়।

এরপরই বড় বিতর্কের জন্ম দেন আম্পায়ার কুমার ধর্মসেনা। তিনি আগ-পাছ বিবেচনা না করেই ছয় রান দিয়ে দেন ইংল্যান্ডকে। ইনিংস শেষে ম্যাচ টাই হওয়ায় খেলা গড়ায় সুপারওভারে; কিন্তু সেখানেও টাই। এরপর ইনিংসে বাউন্ডারির সংখ্যার ভিত্তিতে প্রথমবার বিশ্বজয়ীর খেতাব ছিনিয়ে নেন বেন স্টোকসরা।

এরপরেই বিতর্কের ঝড় বয়ে যায় বিশ্ব ক্রিকেটে। বিশ্বকাপের ফাইনালে অন ফিল্ড আম্পায়ার কুমার ধর্মসেনা এবং মারিয়াস ইরাসমাস ওভার থ্রো হিসাবে ছয় রান দিলেও সাবেক আইসিসি এলিট প্যানেলে থাকা আম্পায়ার সাইমন টাফেল দাবি করেন, মার্টিন গাপ্টিল বল ছোঁড়ার সময় ক্রিজে দুই ব্যাটসম্যান একে অপরকে ক্রস করেননি। ফলে ছয় রান দেয়ার প্রশ্নই আসে না। ইংল্যান্ডের প্রাপ্য ছিল পাঁচ রান।

ফাইনাল শেষে ইংল্যান্ড প্রথমবারের মত বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন হলেও এই ওভার থ্রো নিয়ে বিতর্ক চরমে ওঠে। বিতর্কের গুরুত্ব বুঝে নড়চড়ে বসলো এবার এমসিসিও। ওভার থ্রো’র নিয়ম নিয়ে শিগগিরই পর্যালোচনা করা হবে বলে জানায় ক্রিকেট নীতি নির্ধারণী এই সংস্থা।
সোমবার এমসিসির তরফ থেকে জানানো হয়, আগামী মাসেই এ বিষয়ে পর্যালোচনায় বসবেন তারা। সোমবার আইসিসির তরফ থেকে এক বিবৃতিতে জানানো হয়, ‘আইসিসি ক্রিকেট বিশ্বকাপের ফাইনালে ওভার থ্রো নিয়ে বিতর্কের দিকে নজর রেখে ওভার থ্রো-এর ১৯.৮ ধারা নিয়ে আলোচনা করা হবে। এ বিষয়ে যা আইন আছে তা স্পষ্ট হলেও ফাইনালের বিতর্কিত ওভার থ্রো নিয়ে সেপ্টেম্বরেই সাব কমিটি পর্যালোচনায় বসবে।’

রোববার ও সোমবার লর্ডসের এই বিষয়ে বৈঠকে বসে এমসিসির সদস্যরা। সেই বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন ইংল্যান্ডের সাবেক ব্যাটসম্যান তথা এমসিসির সদস্য মাইক গাটিং। তবে এমসিসির সদস্য সাবেক ভারত অধিনায়ক সৌরভ গাঙ্গুলি ব্যক্তিগত কারণে সেই বৈঠকে উপস্থিত হতে পারেননি।

আইএইচএস/পিআর

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]