‘একদিকে বলছে বয়কট, অথচ আইপিএলে থাকছে চীনা স্পন্সর’

স্পোর্টস ডেস্ক
স্পোর্টস ডেস্ক স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত: ১০:০৮ পিএম, ০৩ আগস্ট ২০২০

রোববার অনুষ্ঠিত গভর্নিং কাউন্সিলের বৈঠকে আইপিএলের তেরোতম সংস্করণের রূপরেখা তৈরি হয়ে গেছে। এ বছর এই মেগা টুর্নামেন্ট আরব আমিরাতে আয়োজন করার অনুমতি দিয়েছে ভারতের কেন্দ্রীয় সরকারও।

তবে এসবের চেয়েও বড় খবর হচ্ছে এই মৌসুমের জন্য আইপিএল কর্তৃপক্ষ আগের মতোই সব স্পনসর রেখে দিয়েছে। অর্থাৎ এ বছরও আইপিএলের টাইটেল স্পনসর থাকছে চীনা মোবাইল প্রস্তুতকারক সংস্থা ‘ভিভো’।

যা নিয়ে ইতিমধ্যেই সোশ্যাল মিডিয়ায় শুরু হয়েছে প্রতিবাদ। টুইটারে টপ ট্রেন্ডিংয়ে #BoycottIPL। এ প্রতিবাদে এবার শামিল রাজনৈতিক মহলও। ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের সঙ্গে ভারত সরকারের সিদ্ধান্তের তীব্র সমালোচনা করলেন জম্মু-কাশ্মীরের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী ওমর আবদুল্লাহ।

ওমরের অভিযোগ সরকারের চীন নীতি ভীষণ বিভ্রান্তিকর। আর এই বিভ্রান্তির জন্যই চীন ভারতের উপর জেঁকে বসার সুযোগ পাচ্ছে। টুইটারে তিনি লিখেছেন, ‘চীনা মোবাইল প্রস্তুতকারী কোম্পানি এ বছরও আইপিএলের স্পনসর থাকছে। অথচ আমাদের বলা হচ্ছে চীনা পণ্য বয়কট করতে। চীনারা যে আমাদের উপর জেঁকে বসেছে, এতে অবাক হওয়ার কিছু নেই। কারণ, আমরা বুঝতেই পারছি না চীনাদের নিয়ে কী করা উচিত।’

রীতিমতো আক্রমণাত্মক সুরে ন্যাশনাল কনফারেন্সের নেতা বলছেন, ‘বিসিসিআই সমস্ত চীনা স্পনসর ধরে রাখল। এরপর চীনারা জেনে যাবে, যে ওদের স্পনসরশিপ ছাড়া আমরা চলতে পারব না। অথচ কিছু নির্বোধ মানুষ নিজেদের চীনা টিভিগুলি ছুঁড়ে ফেলে দিয়েছিল।’

প্রসঙ্গতঃ ‘ভিভো’, ‘আলিবাবা’, ‘পে-টিএম’সহ সমস্ত চীনা কোম্পানিই ভারতীয় ক্রিকেটে বড় অঙ্কের টাকা ঢালে। ভারতীয় বোর্ডের ‘সোনার হরিণ’ আইপিএলের টাইটেল স্পনসর ‘ভিভো’। যারা কিনা চীনা মোবাইল কোম্পানি। শুধুমাত্র ভিভোই প্রতি বছর আইপিএল আয়োজনের জন্য বিসিসিআইকে দেয় ৪৪০ কোটি রুপি।

পাঁচ বছরে বিসিসিআইর মোট ২ হাজার ২০০ কোটি রুপির চুক্তি আছে সংস্থাটির সঙ্গে। এ ছাড়াও খুচরো কিছু চীনা সংস্থা ভারতীয় ক্রিকেট টিমের সঙ্গে জড়িত। করোনার জেরে এই মুহূর্তে বিশ্ব অর্থনীতি এমনিতেই দুর্দিনের মধ্যে দিয়ে যাচ্ছে।

একই অবস্থা ক্রিকেট জগতেরও। এই অবস্থায় যদি চীনা স্পনসরদের বাতিল করতে হয়, তাহলে নতুন করে ওই বিপুল অঙ্কের স্পনসরশিপ জোগার করাটা বোর্ডের পক্ষে সহজ নয়। সে কারণেই এবছরের জন্য চীনা স্পনসরদের রেখে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিল বিসিসিআই।

আইএইচএস/পিআর

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]