পাঁচ বছর পর ইংল্যান্ডের মাঠে সিরিজ জিতল অস্ট্রেলিয়া

স্পোর্টস ডেস্ক
স্পোর্টস ডেস্ক স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৮:৫৮ এএম, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২০

২০১৫ সালের নভেম্বরে সবশেষ ইংল্যান্ডের মাটি থেকে ওয়ানডে সিরিজ জিতে ফিরেছিল অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট দল। মাঝে ২০১৮ সালে পাঁচ ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ হেরেছিল ০-৫ ব্যবধানে। পাঁচ বছর পর আরেক সেপ্টেম্বরে এসে পুনরায় ইংল্যান্ডের মাঠে সিরিজ জেতার স্বাদ পেলো অসিরা।

বুধবার রাতে তিন ম্যাচ সিরিজের শেষ ওয়ানডেতে স্বাগতিক ইংল্যান্ডকে ৩ উইকেটে হারিয়ে ২-১ ব্যবধানে সিরিজের শিরোপা জিতেছে অ্যারন ফিঞ্চের দল। আগে ব্যাট করে ৩০২ রানের লড়াকু সংগ্রহ দাঁড় করিয়েছিল ইংল্যান্ড। জবাবে ৭ উইকেট হারিয়ে ২ বল বাকি থাকতে জয়ের বন্দরে পৌঁছে যায় সফরকারীরা।

তবে এতটা সহজ ছিল না অস্ট্রেলিয়ার জয়। টপঅর্ডারের ব্যর্থতায় মাত্র ৭৩ রানেই ৫ উইকেট হারিয়ে ফেলে তারা। দলীয় ১০০ রানের আগে ৫ উইকেট হারিয়ে ফেলার পর ৩০০'র বেশি রান তাড়া করার রেকর্ড একটিও ছিল না ওয়ানডে ক্রিকেটে। বুধবার সেটিই করে দেখান অ্যালেক্স ক্যারে ও গ্লেন ম্যাক্সওয়েল।

প্রায় সাড়ে পাঁচ বছর পর ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় ওয়ানডে সেঞ্চুরি করেন ম্যাক্সওয়েল, ক্যারে করেন নিজের প্রথম সেঞ্চুরি। দুজন মিলে ২১২ রানের জুটি গড়ে অসিদের জয়ের পথ দেখান। বলা বাহুল্য, ওয়ানডেতে ম্যাচের দ্বিতীয় ইনিংসে ৫ উইকেট পড়ার পর দুইশ রানের জুটি এটিই প্রথম।

ম্যাচের শেষদিকে গিয়ে সাজঘরে ফিরে যান দুজনই। ম্যাক্সওয়েল খেলেন ৯০ বলে ১০৮ রানের ইনিংস, ক্যারের ব্যাট থেকে আসে ১০৬ রান। ম্যাক্সওয়েল ফেরেন দলীয় ২৮৫ রান, ক্যারে ফেরেন ২৯৩ রানে। এ দুজনের জুটির পরেও শেষ ওভারে জয়ের জন্য বাকি ছিল ১০ রান, উইকেটে ছিলেন প্যাট কামিনস ও মিচেল স্টার্ক।

তখনই ছোট্ট একটি ভুল করেন ইংলিশ অধিনায়ক ইয়র মরগ্যান। দুই পেসার মার্ক উড এবং টম কুরানের ওভার বাকি থাকতেও শেষ ওভার দেন লেগস্পিনার আদিল রশিদকে। সেই ওভারের প্রথম বলে ৬ ও চতুর্থ বলে ৪ মেরে অসিদের জয় নিশ্চিত করেন মিচেল স্টার্ক।

এর আগে ম্যানচেস্টারের ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে টস জিতে ব্যাট করতে নেমে ইনিংসের শুরুতেই মিচেল স্টার্কের যে আঘাত লেগেছিল ইংল্যান্ডের ইনিংসে, তাতে মনে হচ্ছিল আর কোমর সোজা করেই দাঁড়াতেই পারবে না তারা। ইনিংসের প্রথম দুই বলেই ওপেনার জেসন রয় এবং ওয়ানডাউনে নামা জো রুটকে ফিরিয়ে দিয়েছিলেন মিচেল স্টার্ক।

কিন্তু বেয়ারেস্টর সেঞ্চুরি আর লেট মিডল অর্ডারে স্যাম বিলিংস আর ক্রিস ওকসের দুটি হাফ সেঞ্চুরির ওপর ভর করে অস্ট্রেলিয়ার সামনে জয়ের জন্য ৩০৩ রানের লক্ষ্য বেধে দিয়েছে ইংল্যান্ড। ১১২ রান করে আউট হয়েছিলেন জনি বেয়ারেস্ট। ১২৬ বল খেলে ১২টি বাউন্ডারি আর ২টি ছক্কার বিনিময়ে এই ইনিংস খেলেন বেয়ারেস্ট।

৬ নম্বরে ব্যাট করতে নামা স্যাম বিলিংস ৫৮ বল খেলে করেন ৫৭ রান। ৪টি বাউন্ডারির সঙ্গে তিনি মারেন ২টি ছক্কার মার। এছাড়া ৭ নম্বরে ব্যাট করতে নামা ক্রিস ওকস ৩৯ বল খেলে করেন অপরাজিত ৫৩ রান। ৬টি বাউন্ডারির মার মারেন তিনি।

ইয়ন মরগ্যান করেন ২৩ রান। টম কুরান করেন ১৯ রান। আদিল রশিদ অপরাজিত থাকেন ১১ রানে। ৩টি করে উইকেট নেন মিচেল স্টার্ক এবং অ্যাডাম জাম্পা। প্যাট কামিন্স নেন ১টি উইকেট।

এসএএস/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]