দেখে নিন লংকান প্রিমিয়ার লিগের সব স্কোয়াড

স্পোর্টস ডেস্ক
স্পোর্টস ডেস্ক স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৩:২২ পিএম, ২০ অক্টোবর ২০২০

আগামী ২১ নভেম্বর থেকে শুরু হতে যাওয়া লংকান প্রিমিয়ার লিগের (এলপিএল) প্লেয়ার্স ড্রাফট সম্পন্ন। যেখানে দল পেয়েছেন ক্রিস গেইল, আন্দ্রে রাসেল, শহিদ আফ্রিদি, ফাফ ডু প্লেসিস, কার্লোস ব্রাথওয়েটদের মতো বড় তারকারা। সোমবার অনলাইনে আয়োজিত হয়েছে প্লেয়ার্স ড্রাফট পর্বটি।

অভিনব পদ্ধতিতে হওয়া এ প্লেয়ার্স ড্রাফটের নিয়ম ও খেলোয়াড় কেনার উপায় সম্পর্কে অনেক মালিকই যথাযথ অবগত ছিলেন না। ফলে শুরুতে একটা হ-য-ব-র-ল অবস্থার সৃষ্টি হয়। তবে শেষপর্যন্ত সব দলের স্কোয়াড গোছানোর মাধ্যমেই শেষ হয়েছে এই প্লেয়ার্স ড্রাফট।

গল গ্ল্যাডিয়েটরস দলের মেন্টর হিসেবে প্লেয়ার্স ড্রাফটে অংশ নিয়েছিলেন পাকিস্তানের কিংবদন্তি ওয়াসিম আকরাম। পাকিস্তান সুপার লিগের দল কোয়েটা গ্ল্যাডিয়েটরসের মালিকই গল গ্ল্যাডিয়েটরসের মালিক।

ওয়াসিম ছাড়াও ড্রাফটে অংশ নেন হাসান তিলকারাত্নে (ক্যান্ডি তাস্কার্সের কোচ), থিলিনা কান্দাম্বি (জ্যাফনা স্ট্যালিয়নসের কোচ) এবং জন লুইস (ডাম্বুলা হকসের টিম মেম্বার)। কলম্বো কিংস ফ্র্যাঞ্চাইজির পক্ষ থেকে ডেভ হোয়াটমোরের থাকার কথা থাকলেও ড্রাফটে দেখা যায়নি তাকে।

প্রতিটি দল দুইজন করে বিদেশি মারকুই খেলোয়াড়কে নিতে পেরেছে। যাদেরকে ড্রাফটের বাইরে আলাদা চুক্তি করে দলভুক্ত করতে পেরেছে তারা। এছাড়া স্থানীয়দের মধ্যেও একজন করে মারকুই খেলোয়াড় নেয়ার সুযোগ রাখা হয়েছিল। এর বাইরে থাকা খেলোয়াড়দের ড্রাফটের মাধ্যমে নিয়েছে দলগুলো।

তবে ড্রাফট শেষেও কিছু দল নিজেদের স্কোয়াডের জায়গা খালি রেখেছে যাতে করে বিদেশি খেলোয়াড়দের পাওয়া গেলে তাদের দলে নিতে পারে। এছাড়া প্রায় সব দলই ১৬ থেকে ২০ জন খেলোয়াড় নিয়ে স্কোয়াড সাজিয়েছে। সব বিদেশি খেলোয়াড়কে মানতে হবে ১৪ দিনের কোয়ারেন্টাইন।

আগামী ২১ নভেম্বর থেকে শুরু হতে যাওয়া লংকান প্রিমিয়ার লিগের পর্দা নামবে ১৩ ডিসেম্বর। শুরুর ম্যাচগুলো হবে সুরিয়া স্টেডিয়ামে। পরে লিগ পর্বের শেষদিকের ম্যাচ ও নকআউট পর্বের ম্যাচগুলো অনুষ্ঠিত হবে পাল্লেকেলে স্টেডিয়ামে।

এলপিএলে অংশগ্রহণকারী দলগুলোর চূড়ান্ত স্কোয়াড

জাফনা স্ট্যালিয়নস
থিসারা পেরেরা, ডেভিড মালান, ভানিন্দু হাসারাঙ্গা, শোয়েব মালিক, উসমান শিনওয়ারি, আভিশকা ফার্নান্দো, ধনঞ্জয় ডি সিলভা, সুরাঙ্গা লাকমল, বিনুরা ফার্নান্দো, আসিফ আলি, মিনোদ ভানুকা, চাতুরাঙ্গা ডি সিলভা, মহেশ থিকশানা, চরিথ আসালাঙ্কা, নুভিনিদু ফার্নান্দো, কানাগারাত্নাম কপিলরাজ, থাইভেনদিরাম দিনোশান এবং ইয়াকান্থ ইয়াশকান্ত।

ডাম্বুলা হকস
দাসুন শানাকা, ডেভিড মিলার, কার্লোস ব্রাথওয়েট, সামিত প্যাটেল, নিরোশান ডিকভেলা (উইকেটরক্ষক), লাহিরু কুমারা, ওশাদা ফার্নান্দো, কাসুন রাজিথা, পল স্টারলিং, লাহিরু মাদুশঙ্কা, উপুল থারাঙ্গা, অ্যাঞ্জেলো পেরেরা, রমেশ মেন্ডিস, পুলিনা থারাঙ্গা, আশেন বান্দারা, দিলশান মাদুশঙ্কা, শচীন্দু কলমবাগে।

ক্যান্ডি তাস্কার্স
ক্রিস গেইল, কুশল পেরেরা, লিয়াম প্লাংকেট, ওয়াহাব রিয়াজ, কুশল মেন্ডিস, নুয়ান প্রদীপ, সেকুগে প্রসন্ন, আসেলা গুনারাত্নে, নবীন উল হক, কামিন্দু মেন্ডিস, দিলরুয়ান পেরেরা, প্রিয়ামল পেরেরা, কাভিশকা আনজুলা, লাসিথ এম্বুলদেনিয়া, লাহিরু সামারাকুন, নিশান ফার্নান্দো, চামিকা এডিরিসিংহে এবং ইশান জয়ারত্নে।

কলম্বো কিংস
আন্দ্রে রাসেল, ফাফ ডু প্লেসিস, অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুজ, মানপ্রিত সিং গনি, মানভিন্দার বিসলা, ইসুরু উদানা, দিনেশ চান্দিমাল, আমিলা আপোনসো, রবিন্দরপল সিং, আশান প্রিয়ঞ্জন, দুশমন্থ চামিরা, জেফরে ভেন্ডারসাই, থিকশিলা ডি সিলভা, থারিন্দু কুশল, লাহিরু উদারা, হিমেশ রামানায়েক, কালানা পেরেরা, থারিন্দু রত্নায়েকে এবং নাভোদ পারানাভিথানা।

গল গ্ল্যাডিয়েটরস
লাসিথ মালিঙ্গা, শহিদ আফ্রিদি, কলিন ইনগ্রাম, মোহাম্মদ আমির, হযরতউল্লাহ জাজাই, দানুশকা গুনাথিলাকা, ভানুকা রাজাপাকশে, আকিলা ধনঞ্জয়, মিলিন্দা সিরিওয়ার্দেনে, সরফরাজ আহমেদ, আজম খান, লাকশান সান্দাকান, শেহান জয়াসুরিয়া, আসিথা ফার্নান্দো, নুয়ান থুসারা, মোহাম্মদ সিরাজ, ধনঞ্জয় লাকশান, চানাকা রুয়ানসিরি এবং সাহান আরাচ্চি।

এসএএস/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]