ফাইনাল ম্যাচে খেলতে পারবেন তো মুশফিক?

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০৩:১৯ পিএম, ২২ অক্টোবর ২০২০

তার সামনে আসর সেরা হওয়ার হাতছানি। এখন পর্যন্ত দুই ফিফটি আর আসরের একমাত্র শতরানের ইনিংস খেলে চার ম্যাচে ২০৭ রান নিয়ে টপ স্কোরার মুশফিকুর রহীম। কিন্তু মিস্টার ডিপেন্ডেবলকে কি ফাইনাল ম্যাচে পাবে নাজমুল হোসেন শান্ত একাদশ?- এ প্রশ্নটিই দেখা দিয়েছে বড় হয়ে।

বুধবার রাতে তামিম বাহিনীর বিপক্ষে রবিন লিগের শেষ ম্যাচে কাঁধে ব্যথা পেয়েছেন মুশফিক। তামিম একাদশের মিডলঅর্ডার ইয়াসির আলী রাব্বির আকাশে ওঠা ক্যাচ ধরতে ১০-১২ গজ পিছনে ছুটে মাটিতে ডাইভ দিয়ে ধরতে চেষ্টা করেন মুশফিক। তখন ডান কাঁধে ব্যথা পেয়ে মাঠ ছাড়তে হয় তাকে।

ড্রেসিংরুমে ফিরে ফিজিও ক্যালেফেতোর নিবিড় পর্যবেক্ষণ ও পরিচর্যায় ছিলেন মুশফিক। তাই আর ম্যাচের বাকি সময়ে মাঠে নামা হয়নি তার।

রাত পার হয়ে গেছে। আজ (বৃহস্পতিবার) দুপুরের পর থেকেই মুশফিক ভক্তদের কৌতূহলি প্রশ্ন, নাজমুল একাদশের সমর্থকদেরও রাজ্যের কৌতূহল, মুশফিক কি শুক্রবারের ফাইনালে খেলতে পারবেন? তার ডান কাঁধের ব্যথা কি বেশি? আঘাত কি গুরুতর কিছু?

প্রশ্নের উত্তর খুঁজতে জাতীয় দলের প্রধান চিকিৎসক দেবাশিষ চৌধুরীর শরণাপন্ন হওয়া। তিনি বিকেল গড়ানোর আগে জাগো নিউজকে জানিয়েছেন, যেহেতু ক্রিকেটাররা সবাই হোটেল সোনারগাঁয় জৈব সুরক্ষা বলয়ের ভেতরে আছেন, তাই সেখানে তার (দেবাশিষ) প্রবেশাধিকার নেই। স্বাস্থ্য সুরক্ষা ও ক্রিকেটারদের নিরাপত্তার কথা ভেবেই তিনি দূরে আছেন।

তাই মুশফিককে আসলে স্বচক্ষে তিনি দেখার সুযোগ পাননি। মুশফিকের পরিচর্যা ও পর্যবেক্ষণের দায়িত্ব পালন করছেন জাতীয় দলের ফিজিও জুলিয়ান ক্যালেফাতো। তার সঙ্গেই কথা হয়েছে দেবাশিষ চৌধুরীর।

সেই কথার উদ্ধৃতি দিয়ে দেবাশিষ চৌধুরী জানিয়েছেন, মুশফিক আজ (বৃহস্পতিবার) হোটেলের সুইমিংপুলে সুইমিং করেছেন, ভাল আছেন। ব্যথা বা ইনজুরি কোনটাই খুব গুরুতর নয়। ফিজিও তার দেখভাল করছেন। তিনিই তার সর্বশেষ অবস্থা দেখে সিদ্ধান্ত নেবেন।

এমনিতে মুশফিকের ইনজুুরি খুব ব্যাপক নয়। তারপরও ফিজিও জানিয়েছেন, তারা আজ সন্ধ্যা নাগাদ আরও একবার মুশফিককে দেখবেন। আর তার খেলা না খেলার সিদ্ধান্তটা শুক্রবার ফাইনালের আগে সকালেই চূড়ান্ত হবে।

এআরবি/এসএএস/এমকেএইচ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]