এসএ গেমস অ্যাথলেটিকসে বাড়তে পারে বাংলাদেশের পদক

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০৯:৪২ পিএম, ২৬ মে ২০২০

গত বছর ১ থেকে ১০ ডিসেম্বর নেপালের কাঠমান্ডু, পোখারা ও জানাকপুরে অনুষ্ঠিত সাউথ এশিয়ান (এসএ) গেমসের অ্যাথলেটিকস ডিসিপ্লিনে বাংলাদেশ পেয়েছিল দুটি পদক। রৌপ্য পেয়েছিলেন ছেলেদের হাইজাম্পে মাহফুজুর রহমান এবং লংজাম্পে আল আমিন। গেমস শেষ হওয়ার ৬ মাস পর বাংলাদেশের ঝুলিতে আরেকটি পদক যোগ হওয়ার সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে।

গেমসে অ্যাথলেটদের যে ডোপটেস্ট করা হয়েছিল সেখানে পাকিস্তানের তিনজনের পজিটিভ এসেছে। তিনজনই অ্যাথলেটিকসের। তারা হলেন ১১০ মিটার হার্ডলসে স্বর্ণজয়ী মোহাম্মদ নাঈম, ৪০০ মিটার হার্ডলসে স্বর্ণজয়ী মেহবুব আলী ও ১০০ মিটার স্প্রিন্টে ব্রোঞ্জ পাওয়া সামি উল্লাহ।

পাকিস্তান ৪*১০০ মিটার রিলেতে পেয়েছিল ব্রোঞ্জ পদক। এ ইভেন্টে বাংলাদেশ হয়েছিল চতুর্থ। পাকিস্তানের রিলে দলে ডোপটেস্টে পজিটিভ হওয়া অ্যাথলেটরাও ছিলেন। নিয়ম অনুযায়ী ডোপটেস্টে কেউ পজিটিভ হলে ৪ বছরের জন্য নিষিদ্ধ হবেন এবং তার পদক বাতিল হবে।

সে ক্ষেত্রে হাসান আলী, মোহাম্মদ ইসমাইল, আবদুর রউফ ও সাইফুলের নাম উঠবে পদকের তালিকায়। বাংলাদেশের এই চারজনই রিলেতে চতুর্থ হয়েছিলেন।

বাংলাদেশ অ্যাথলেটিকস ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট আবদুর রকিব মন্টু বলেন, ‘বিষয়টি জানার পর আমরা বাংলাদেশ অলিম্পিক অ্যাসোসিয়েশনেকে (বিওএ) জানিয়েছি। এখন তারাই এ বিষয়টা দেখবে। আমরা জানি কোনো অ্যাথলেট ডোপটেস্টে পজিটিভ হলে সে চার বছর নিষিদ্ধ হবে। সে কোনো পদক পেলে তাও বাতিল হবে।’

বাংলাদেশ অলিম্পিক অ্যাসোসিয়েশনের (বিওএ) সূত্রে জানা গেছে, ডোপটেস্টে পজিটিভ হওয়ার বিষয়টি আয়োজক কমিটি সাউথ এশিয়ান অলিম্পিক কমিটিকে জানাবে। কমিটির সভায় সিদ্ধান্ত হবে। যদি ডোপটেস্টে পজিটিভ হওয়া অ্যাথলেটদের রেজাল্ট বাতিল করে সাউথ এশিয়ান অলিম্পিক কমিটি, তাহলে অ্যাথলেটিকসে বাংলাদেশের একটি ব্রোঞ্জ বাড়বে।

আরআই/আইএইচএস/

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]l.com