ময়লা আবর্জনায় ভরে যাচ্ছে মেঘনা নদীর পাড়

উপজেলা প্রতিনিধি উপজেলা প্রতিনিধি ভৈরব (কিশোরগঞ্জ)
প্রকাশিত: ১০:৫৫ এএম, ০৪ নভেম্বর ২০১৭

ময়লা আবর্জনায় ভরে যাচ্ছে ভৈরবের বাণিজ্য নৌবন্দর মেঘনা নদীর পাড়। এ কারণে বন্দরে নৌযান ভিড়তে পারছেনা।

হাওর জনপদসহ দেশের বিভিন্নস্থান থেকে প্রতিদিন এই বন্দরে লঞ্চ, কার্গো জাহাজসহ অসংখ্য ইঞ্জিনের ট্রলার যাত্রী ও মালামাল নিয়ে আসা যাওয়া করে এই বন্ধরে। অথচ এসব ময়লা আবর্জনার কারণে নৌযানগুলো ভৈরব বাজারে আসলেও পাড়ে ভিড়তে পারছে না।

ভৈরব-আশুগঞ্জ গুদারা ঘাটটিতে প্রতিদিন ময়লা আবর্জনা ফেলার কারণে ইতোমধ্যে অর্ধেক ঘাট দখল হয়ে গেছে। যাত্রীরা ঘাটে নামার পর ময়লার গন্ধে নাকে রুমাল চেপে যাতায়াত করছে।

অপরদিকে, বাগানবাড়ী জিল্লুর রহমান রোডের ঘাটটিও দিন দিন ভরে যাচ্ছে ময়লা আবর্জনায়। বিশেষ করে বর্ষা মৌসুমে ঘাটগুলোতে নৌযান ভিড়ানো যায় না।

পৌর কর্তৃপক্ষ বলছে, এসব দেখার দায়িত্ব বিআইডব্লিওটিএ কর্তৃপক্ষের। কারণ, তারা নদী ইজারা দিয়ে যাত্রী ও মালামাল থেকে ট্যাক্স আদায় করে। অপরদিকে বিআইডব্লিওটিএ কর্তৃপক্ষ বলছে এই দায়িত্ব পৌর কর্তৃপক্ষসহ পানি উন্নয়ন বোর্ড কর্তৃপক্ষের।

বিআইডব্লিওটিএ এর সিলেট জোনের দায়িত্বপ্রাপ্ত ভৈরব অফিসের পরিবহন পরিদর্শক মো. শাহ আলম জাগো নিউজকে জানান, এসব দেখার দায়িত্ব পৌর কর্তৃপক্ষ আর পানি উন্নয়ন বোর্ডের। নদী দেখাশুনা করার দায়িত্ব আমাদের হলেও নদীর পাড় পাহারা দিয়ে রাখা সম্ভব নয়।

এ ব্যাপারে ভৈরব পৌরসভার মেয়র ফখরুল আলম আক্কাছ জাগো নিউজকে জানান, মানুষের সচেতনতার অভাব রয়েছে। পৌরসভার ডাস্টবিনে ময়লা না ফেলে অসচেতন মানুষ রাতের আধাঁরে নদীর পাড়ে ময়লা আবর্জনা ফেলে। পৌরসভার সুইপারদেরকে নদীর পাড়ে ময়লা না ফেলতে নির্দেশ দিয়েছেন বলে তিনি জানান। ভবিষ্যতে নদীর পাড়ে যেন ময়লা না ফেলা হয় তিনি এই চেষ্টা করে যাচ্ছেন বলে জানিয়েছেন।

ফারুক/এমএএস/এমএস

আপনার মতামত লিখুন :