নবীনগরে জাসদ-হেফাজতের সভা ঘিরে উত্তেজনা

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি ব্রাহ্মণবাড়িয়া
প্রকাশিত: ০৯:২৩ পিএম, ১১ জুলাই ২০১৮

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর উপজেলায় একই দিনে একই স্থানে জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল (জাসদ) ও হেফজাতে ইসলামের ডাকা পৃথক জনসভা ও শানে রেসালত (সা.) সম্মেলন ঘিরে উত্তেজনা দেখা দিয়েছে।

নবীনগর সরকারি পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ে আগামী ২৬ জুলাই বিকেল ৩টায় পৃথক জনসভা ও শানে রেসালত (সা.) সম্মেলন ডেকেছে উপজেলা জাসদ ও হেফাজতে ইসলাম। ইতোমধ্যে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে দুটি অনুষ্ঠানের পোস্টার।

জাসদের জনসভায় দলটির কেন্দ্রীয় সভাপতি ও তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু এবং হেফাজতে ইসলামের সম্মেলনে সংগঠনটির আমির আল্লামা শাহ্ আহমদ শফী উপস্থিত থাকবেন বলে জানা গেছে।

তবে জাসদের জনসভার বিষয়ে জানলেও হেফাজতের সম্মেলনের বিষয়ে অবগত নয় নবীনগর থানা পুলিশ। অবশ্য হেফাজতে ইসলামের সম্মেলন ডাক দেয়ার বিষয়টিকে নাশকতার চেষ্টা বলছে জাসদ।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ২৬ জুলাই বিকেল ৩টায় নবীনগর সরকারি পাইলট উচ্চ বিদ্যলয় মাঠে জনসভা ডেকেছে উপজেলা জাসদ। এতে দলটির কেন্দ্রীয় সভাপতি ও তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু, সাধারণ সম্পাদক শিরীন আখতার, স্থায়ী কমিটির সদস্য অধ্যাপক আনোয়ার হোসেন, ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৫ (নবীনগর) আসনের সাবেক এমপি শাহ জিকরুল আহমেদ খোকনসহ দলটির বিভিন্ন স্তরের নেতাকর্মী উপস্থিত থাকার কথা রয়েছে।

ইতোমধ্যে তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনুর নবীনগর সফরের ব্যাপারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপারের কাছে সফরসূচি পাঠানো হয়েছে।

অন্যদিকে, নবীনগর উপজেলা হেফাজতে ইসলামও একই সময় একই স্থানে শানে রেসালত (সা.) সম্মেলনের ডাক দিয়েছে। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে সংগঠনটির আমীর আল্লামা শাহ আহমদ শফী উপস্থিত থাকবেন বলে জানা গেছে।

এছাড়া সংগঠনের নায়েবে আমির আল্লামা শায়খ সাজিদুর রহমান, ঢাকা মহানগর কমিটির সদস্য মাওলানা মেহেদী হাসানসহ কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ উপস্থিত থাকবেন বলে জানা গেছে।

উভয় আয়োজকরাই ইতোমধ্যে তাদের প্রচারণা শুরু করে দিয়েছেন। উভয় পক্ষই অনুষ্ঠান আয়োজনে নিজেদের অনড় অবস্থানের কথা জানিয়েছেন।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে জাসদের স্থায়ী কমিটির সদস্য শাহ জিরুল আহমেদ খোকন জাগো নিউজকে বলেন, সরকারিভাবে তথ্যমন্ত্রীর প্রোগ্রাম দেয়া হয়েছে। হেফাজতে ইসলামের সম্মেলন নাশকতামূলক চেষ্টা।

তবে হেফাজতে ইসলামের ঢাকা মহানগর কমিটির সদস্য মাওলানা মেহেদী হাসান জাগো নিউজকে বলেন, আমরা আমাদের সম্মেলন সফল করার জন্য কাজ করছি। তবে জাসদের অনুষ্ঠানে সম্পর্কে আমরা অবগত ছিলাম না। তাই আমরা দাবি জানাচ্ছি জাসদের অনুষ্ঠানটি যেন পেছানো হয়।

নবীনগর থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আসলাম সিকদার জাগো নিউজকে বলেন, তথ্যমন্ত্রীর সরকারি প্রোগ্রাম আমরা পেয়েছি। আমরা শুনেছি হেফাজতে ইসলামও সম্মেলনের ডাক দিয়েছে। তবে আমাদেরকে আনুষ্ঠানিকভাবে কিছু জানানো হয়নি। সম্মেলন করার জন্য তারা কোনো অনুমতিও নেয়নি।

আজিজুল সঞ্চয়/এএম/এমএস

আপনার মতামত লিখুন :