নির্বাচনের ৪ দিন সেন্টমার্টিনে পর্যটক নিষিদ্ধ

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি কক্সবাজার
প্রকাশিত: ০৮:৫৯ এএম, ২৩ ডিসেম্বর ২০১৮
ফাইল ছবি

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে কক্সবাজারের টেকনাফ-সেন্টমার্টিন নৌ-রুটে পর্যটকবাহী জাহাজ চলাচল বন্ধ রাখার নির্দেশ দিয়েছে প্রশাসন। নির্বাচনে নিরাপত্তার কথা চিন্তা করে ২৮ থেকে ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত ৪ দিন টেকনাফ-সেন্টমার্টিন নৌরুটে সব ধরনের পর্যটকবাহী জাহাজ চলাচল বন্ধ থাকবে। এ ক’দিন দেশি-বিদেশি কোনো পর্যটক সেন্টমার্টিন ভ্রমণ করতে পারবে না।

শনিবার সন্ধ্যায় বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন কক্সবাজারের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) আশরাফুল আফসার।

তিনি বলেন, নির্বাচনের সময় নিরাপত্তার কথা বিবেচনা করে বিকেলে (শনিবার) এ সিন্ধান্ত নেয়া হয়েছে। তবে এ বিষয়ে আবার আলোচনা হবে বলে জানিয়েছেন তিনি।

বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ-পরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআইডব্লিউটিএ) টেকনাফ অঞ্চলের পরির্দশক (পরিবহন) মোহাম্মদ হোসেন বলেন, নির্বাচনকে সামনে রেখে ৩ অথবা ৪ দিনের জন্য টেকনাফ-সেন্টমার্টিন নৌরুটে পর্যটকবাহী জাহাজ চলাচল বন্ধ রাখা হবে।

তিনি বলেন, গত ২৬ অক্টোবর এই নৌরুটে দুইটি পর্যটকবাহী জাহাজ চলাচল শুরু হয়। বর্তমানে টেকনাফ-সেন্টমার্টিন নৌরুটে ছয়টি জাহাজ চলাচল করছে। সেগুলো হচ্ছে-কেয়ারি সিন্দাবাদ, কেয়ারি ক্রুজ অ্যান্ড ডাইন, বে-ক্রুস, এলসিটি কাজল, এমভি ফারহান ও গ্রীন লাইন।

জাতীয় সংসদ নির্বাচনের সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা ও টেকনাফ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. রবিউল হাসান বলেন, নির্বাচনের সময় নিরপত্তার কথা চিন্তা করে ২৮ ডিসেম্বর থেকে টেকনাফ-সেন্টমার্টিন রুটে পর্যটকবাহী জাহাজগুলো চলাচল বন্ধ করে দেয়া হবে। ৪ দিন জাহাজ চলাচল বন্ধ থাকবে।

সেন্টমার্টিন আবাসিক হোটেল মালিক সমিতির সভাপতি ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মুজিবুর রহমান বলেন, খবরটি ইতোমধ্যে আমরা পেয়েছি। মৌসুমে যৎসামান্য ক্ষতি হলেও রাষ্ট্রীয় সুবিধার কথা মাথায় রেখে বিষয়টিকে সাধুবাদ যোগ্য।

উল্লেখ্য, কক্সবাজার-৪ (উখিয়া-টেকনাফ) আসনে একটি পৌরসভা ও ১১টি ইউনিয়ন। এ আসনে মোট ভোটার সংখ্যা ২ লাখ ৬৬ হাজার ১৪৬ জন। এরমধ্যে পুরুষ ভোটার এক লাখ ৩৪ হাজার ১৪৫ জন এবং নারী ভোটার এক লাখ ৩২ হাজার একজন। ৩০ ডিসেম্বর এই নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। এ আসনে সেন্টমার্টিন ইউনিয়নও একটি গুরুত্বপূর্ণ কেন্দ্র। এখানে প্রায় ৭ হাজার ভোটার রয়েছে।

সায়ীদ আলমগীর/এফএ/এমএস

আপনার মতামত লিখুন :