যারা খুনের রাজনীতি করে তাদেরকেই পালাতে হবে : মেয়র আইভী

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি নারায়ণগঞ্জ
প্রকাশিত: ০৯:৪৭ এএম, ০৯ মার্চ ২০২১

যারা খুনের রাজনীতি করে তাদেরকেই পালাতে হবে বলে মন্তব্য করেছেন নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের মেয়র সেলিনা হায়াৎ আইভী।

সোমবার (৮ মার্চ) রাতে নারায়ণগঞ্জ শহরের ৫ নম্বর খেয়াঘাট এলাকায় তানভীর মুহাম্মদ ত্বকীর হত্যাকাণ্ডের আট বছর উপলক্ষে শীতলক্ষ্যায় আলোর ভাসান অনুষ্ঠানে তিনি এমন মন্তব্য করেন।

আইভী বলেন, ‘নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের এমপি শামীম ওসমানের ওয়াইফ (স্ত্রী) লিপি ভাবিকে বলতে চাই, আপনারা বলেন- পালানোর পথ পাবেন না। লিপি ভাবী বোধহয় ভুলে গেছেন ২০০১ সালে কিভাবে আপনারা পালিয়েছিলেন। উনি বোধহয় ভুলে গেছেন ওনার স্বামী বর্তমান এমপি শামীম ওসমান বোরকা পরে কিভাবে পালিয়েছিল।’

নারায়ণগঞ্জ সিটি মেয়র বলেন, ‘সাহস থাকলে প্রশাসন ছেড়ে রাস্তায় নামুন, দেখি কার কত ক্ষমতা। যারা খুনের রাজনীতি করে তাদেরকেই পালাতে হবে। আমরা পালাবো না।’

তিনি বলেন, ‘আমি নারায়ণগঞ্জের প্রশাসনকে অনুরোধ করছি, খুনিদের পৃষ্ঠপোষকতা বন্ধ করুন। একপেশে বক্তব্য দেবেন না। এ শহরের চরিত্র এখনো জানেন না। নিত্য নতুন প্রশাসনের লোকজন আসেন তাদের গরম গরম বক্তব্য শুনে তাদের অভিভাবক বানিয়ে ফেলেন। তাদের ইতিহাস জানুন। তাদের অভিভাবকত্ব লুটপাটের। সাধারণ মানুষ কী বলে শুনুন। জনগণের ট্যাক্সের পয়সায় বেতন নিয়ে খুনিদের পক্ষ নেবেন না।’

মেয়র আইভী বলেন, ‘দেখুন কী বিচিত্র ব্যাপার। মণ্ডলপাড়ায় প্রধানমন্ত্রীর অনুদানে মসজিদ হচ্ছে। গণপূর্তের ইঞ্জিনিয়ারকে কাজ বন্ধ রাখতে বলেছেন জেলা প্রশাসক। কারণ শামীম ওসমান নাকি বলেছেন, সেখানে তিনি মসজিদ করতে দেবেন না। মসজিদ নাকি আইভী উদ্বোধন করেছে। কী বিচিত্র আমার প্রশাসন। আমরা সবাই মনে হয় একটু চুপসে গিয়েছি। তাই সবাই কথা বলুন। নাগরিক সমাজকে অনুরোধ করবো আবারও কথা বলুন। আট বছরে যেহেতু ত্বকী হত্যার বিচার হয়নি তাই বোধহয় হবে না। খুনিরা মসনদে বসে প্রশাসনের সহযোগিতা নিয়ে নারায়ণগঞ্জে যা খুশি তাই করতে চাচ্ছে। আমরা পালাবো না। পালাতে হবে আপনাকে, আপনার গোষ্ঠীকে।’

নারায়ণগঞ্জের এই মেয়র আরও বলেন, ‘ত্বকী আমাদের প্রতিবাদের প্রতীক। ত্বকী আমাদের অন্যায় অত্যাচারের প্রতীক হিসেবে দাঁড়িয়েছে। শুধু নারায়ণগঞ্জ না বরং সারাবিশ্বে আজ ত্বকীর নাম ছড়িয়ে আছে। অবশ্যই ত্বকী হত্যার বিচার হবে। আল্লাহ মানুষকে বাড়তে দেয়। নিশ্চয় একদিন আল্লাহ টান দেবেন, তখন বিচার হবে। আমি রাষ্ট্র ও প্রধানমন্ত্রীর কাছে বিচার চাইছি। আমি প্রধানমন্ত্রীর কাছে প্রশ্ন রাখবো অনেক হত্যার বিচার হলেও কেন ত্বকী হত্যার বিচার হচ্ছে না। কারা এ হত্যাকাণ্ডে জড়িত আপনি জানেন। তারা কি এতই ক্ষমতাধর? ত্বকী হত্যার বিচার করা যাবে না। আমি প্রধানমন্ত্রীকে অনুরোধ করছি বিচার করুন।’

বক্তব্যের এক পর্যায়ে বিদ্যুৎ গেলে আইভী বলেন, ‘আমি যখনই কথা বলি তখনই বিদ্যুৎ চলে যায়। বাসায় যখন ইন্টারভিউ দেই তখনো বিদ্যুৎ চলে যায়। কিন্তু আমার মুখ তো বন্ধ করতে পারবেন না। আমাকে দাবিয়ে রাখতে পারবেন না।’

নারায়ণগঞ্জ সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি ভবানী শংকর রায়ের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন নিহত ত্বকীর বাবা রফিউর রাব্বি প্রমুখ।

মো. শাহাদাত হোসেন/এমআরআর/এমকেএইচ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]