অপহরণের পর দুই দিন আটকে রেখে স্কুলছাত্রীকে দলবেঁধে ধর্ষণ

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি নারায়ণগঞ্জ
প্রকাশিত: ০৮:৪৫ পিএম, ১৬ জুন ২০২১ | আপডেট: ০৮:৫০ পিএম, ১৬ জুন ২০২১
ফাইল ছবি

নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁ থেকে অপহরণের পর অষ্টম শ্রেণির স্কুলছাত্রীকে অজ্ঞাত স্থানে দুইদিন আটকে রেখে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে তিন বন্ধুর বিরুদ্ধে।

বুধবার (১৬ জুন) দুপুরে উপজেলার বাগবাড়িয়া কবরস্থান এলাকা থেকে তাকে উদ্ধার করে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য নারায়ণগঞ্জ ভিক্টোরিয়া হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। এ ঘটনায় ওই স্কুল ছাত্রীর বাবা থানায় মামলা করেছেন।

পুলিশ ও মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, ওই স্কুলছাত্রী সোমবার (১৪ জুন) সদাই করতে মুদি দোকানে যান। এসময় স্থানীয় পেচাইন গ্রামের আম্বর আলীর ছেলে রমজান আলী, জাকারিয়া, রাউৎগাঁও গ্রামের মৃত আব্দুল মান্নানের ছেলে রায়হান ও আবু তালেবের ছেলে মেহেদী হাসান মিলে তাকে অপহরণ করে অজ্ঞাত স্থানে নিয়ে যান। স্বজনরা তাকে অনেক খোঁজাখুঁজি করে না পেয়ে পরদিন ওই স্কুলছাত্রীর বাবা মামলা করেন। পরে বুধবার দুপুরে বাগবাড়িয়া কবরস্থান এলাকায় ওই ছাত্রীকে রাস্তায় ফেলে যায় অপহরণকারীরা। খবর পেয়ে ওই ছাত্রীকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যান।

ছাত্রীর বাবার অভিযোগ, অপহরণ করে দুইদিন অজ্ঞাত স্থানে আটকে রেখে মেয়েকে তারা গণধর্ষণ করেছে। অপহরণকারীরা আমাদের সঙ্গে যোগাযোগ করে তার মেয়েকে রাস্তার মধ্যে ফেলে যায়। তাদের শর্ত ছিল মেয়েকে ফিরে পেতে ওই সড়কে আমাদের কোনো লোকজন থাকতে পারবে না। ফেলে যাওয়ার পর আমাদের খবর দিলে আমরা বাগবাড়িয়া কবরস্থানে এলাকা থেকে মেয়েকে নিয়ে আসি।

সোনারগাঁ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ হাফিজুর রহমান বলেন, ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য ভিকটিমকে হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। আসামিদের গ্রেফতারের জন্য পুলিশি অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

মো. শাহাদাত হোসেন/আরএইচ/জিকেএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]