সেই রায়হানকে ছাত্রলীগ থেকে অব্যাহতি, ছাত্রদলের বহিষ্কার

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি ফরিদপুর
প্রকাশিত: ০৭:১৩ পিএম, ১৯ জুন ২০২১ | আপডেট: ০৩:৩৭ পিএম, ২০ জুন ২০২১

ফরিদপুরের আলফাডাঙ্গায় ছাত্রলীগ ও ছাত্রদলের উভয় পদ হারালেন মোহাম্মদ রায়হান রনি। তাকে ছাত্রলীগের পদ থেকে অব্যাহতি দেয়া হয়। আর ছাত্রদল থেকে বহিষ্কার করা হয়।

এদিকে একই নামের ব্যক্তি ছাত্রদল ও ছাত্রলীগের গুরুত্বপূর্ণ পদে অধিষ্ঠিত হওয়ায় বিব্রত দুই দলের নেতারা।

শনিবার (১৯ জুন) জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি তামজিদুল রশিদ চৌধুরী রিয়ান ও ফাহিম আহমেদ স্বাক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, সংগঠনের শৃঙ্খলা পরিপন্থী কার্যকলাপের অভিযোগ এনে তাকে আলফাডাঙ্গা পৌর ছাত্রলীগের সাংগঠনিক পদ থেকে অব্যাহতি প্রদান করা হলো।

এদিকে ফরিদপুর জেলা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক তানজিমুল হাসান কায়েস বলেন, রায়হান রনি ছাত্রলীগের পদ নিয়েছেন- এমন অভিযোগ আমাদের কাছে এসেছে। এ অভিযোগের ভিত্তিতে জরুরি সভা করে তাকে দল থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে।

এ ব্যাপারে ফরিদপুর জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি সৈয়দ তামজিদুল রশিদ চৌধুরী রিয়ান জানান, প্রথমে জানা যায় ছাত্রদলের রায়হান রনি আর ছাত্রলীগের রায়হান রনি এক ব্যক্তি নন। তারপরও যেহেতু তাকে নিয়ে বিতর্ক চলছে, মিডিয়াতে ফলাও করে সংবাদ প্রকাশ হয়েছে। দুইজন যে আলাদা ব্যক্তি তাও প্রমাণ পাওয়া যায়নি। অভিযুক্ত ব্যক্তি নিজেও প্রমাণ করতে পারেননি যে, তিনি ছাত্রদলে নাম থাকা ব্যক্তি নন। তাছাড়া রায়হান রনি নামে আলফাডাঙ্গায় অন্য কাউকে খুঁজে পাওয়া যায়নি। এ কারণে আমরা প্রাথমিকভাবে তার বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগ সত্যতা বলে ধরে নিয়ে তাকে পদ থেকে অব্যাহতি দিয়েছি।

এ ব্যাপারে রায়হান রনি বলেন, আমি আজীবন ছাত্রলীগ করি। ছাত্রদল কোনো দিন করিনি। ছাত্রলীগের ও ছাত্রদলের রায়হান রনি একই ব্যক্তি নন। দুইজন আলাদা ব্যক্তি। তবে আলাদা ব্যক্তি ছাত্রদলের রায়হান রনি নামের কাউকে তিনি চেনেন না। বাড়ি কোথায় তাও জানেন না।

রায়হান রনি আরও বলেন, কোনো প্রকার তদন্ত না করে, সত্যতা না পেয়ে আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগের ভিত্তিতে এমন সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। যা আমার বিরুদ্ধে অন্যায় করা হয়েছে। এটা আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র। আমি অসহায়।

এ নিয়ে জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সহ সভাপতি তন্ময়-উ-দৌল্লা জানান, মোহাম্মদ রায়হান রনি শুরু থেকেই ছাত্রলীগ করেন। ছাত্রদল কোনো দিন করেন নাই। তিনি ষড়যন্ত্রের শিকার। তার বিরুদ্ধে অন্যায় করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, আলফাডাঙ্গা উপজেলা সদরের বাসিন্দা রায়হান রনি গত জানুয়ারি মাসে অনুমোদিত আলফাডাঙ্গা পৌর ছাত্রদলের কমিটিতে যুগ্ম আহ্বায়কের পদ পান। গত জানুয়ারিতে জেলা ছাত্রদলের সভাপতি সৈয়দ আদনান হোসেন অনু ও সাধারণ সম্পাদক তানজিমুল হাসান স্বাক্ষরিত ২১ সদস্যবিশিষ্ট আলফাডাঙ্গা পৌর ছাত্রদলের আহ্বায়ক কমিটি গঠন করা হয়। ওই কমিটিতে ১ নম্বর যুগ্ম আহ্বায়ক পদে রায়হান রনির নাম দেখা যায়।

এদিকে গত ১২ জুন আলফাডাঙ্গা পৌর ছাত্রলীগের কমিটিতে সাংগঠনিক সম্পাদক পদ হিসেবে রয়েছে মোহাম্মদ রায়হান রনির নাম। একই নাম একই বানান। এক জায়গায় নামের আগে মোহাম্মদ লেখা অন্য জায়গায় কিছুই লেখা নেই।

জেডএইচ/এএসএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]