‘রূপের মাইয়া’ গানের সেই গায়ক মামুন এখন কোথায়?

বিনোদন প্রতিবেদক
বিনোদন প্রতিবেদক বিনোদন প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০১:৫৫ পিএম, ১৯ অক্টোবর ২০২০

এদেশের মানুষ চিরকাল ফোক গানকে ভালোবেসেছে। এসব গানে তারা খুঁজে পেয়েছে নিজের শেকড়ের পরিচয়। মানুষের মুখে মুখে ফেরা নানা গল্প-কথা কিংবা শব্দ যখনই গান হয়ে সুর পেয়েছে তখনই তা লুফে নিয়েছেন শ্রোতারা। তেমনি ২০০২ সালে প্রকাশ হয়েছিল একটি লোকজ গান, যা এ দেশের অডিও ইন্ডাস্ট্রিতে সাফল্যের একটা মাইলফল হয়ে আছে।

‘রূপের মাইয়া’ শিরোনামের সেই গান জয় করে নিয়েছিলে কোটি মানুষের হৃদয়। রাতারাতি মানুষের মুখে ছড়িয়ে পড়ে এ গানের গায়ক মামুনের নাম। এটি তার প্রথম অ্যালবাম ‘রূপের মাইয়া’র টাইটেল সং। কিন্তু এরপর আরও ৩৫টির মতো অ্যালবাম প্রকাশ হয়েছে মামুনের। কোনোটিই প্রথম অ্যালবামের মতো সাড়া পায়নি। মূলত ‘রূপের মাইয়া’র সাফল্যকে কখনোই আর ছাড়িয়ে যেতে পারেননি তিনি।

কোথায় আছেন সেই মামুন? নানামুখী বাদ্যযন্ত্র আর তথ্যপ্রযুক্তিতে সংগীতের পৃথিবী যখন আরও উপভোগ্য হয়ে উঠেছে তখন এই শিল্পীর দেখা নেই। আকাশছোঁয়া সাফল্য আর সম্ভাবনার দুয়ার খুলে দিয়ে কোথায় হারিয়ে গেলেন তিনি? কোন মেঘের আড়ালে ঢেকে গেল মামুন নামের নক্ষত্রটি?

এসব প্রশ্নের উত্তর সামনে রেখে সপ্তাহ খানেকের খোঁজখবর করেও তেমন কিছু জানা যায়নি। শুধু নিশ্চিত হওয়া গেল সিলেটের ছেলে গায়ক মামুন এখন লন্ডন প্রবাসী। গত ১৫ বছরেরও বেশি সময় ধরে সেখানেই পরিবার নিয়ে স্থায়ীভাবে বসবার করেন। সময়-সুযোগ হলে দেশে আসেন। কিছুদিন বিশ্রাম নিয়ে, ঘুরে ফিরে আবার ফিরে যান।

বেশকিছু সংগীত প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান বললো, ‘মামুন আর কখনো গান করবেন কি না সেটিও অজানা। তেমন কোনো আভাসই নেই।’ তবে জানা গেছে, মামুন সুযোগ পেলে এখনো গান করেন। লন্ডনে বিভিন্ন অনুষ্ঠান-কনসার্টে তাকে গাইতে দেখা যায়।

বিবিসি সূত্রে জানা গেছে, মামুনের গাওয়া ‘রূপের মাইয়া’ গানের ক্যাসেটটি ৪১ লাখ কপি বিক্রি হয়েছিল, যা বিশেষভাবে উল্লেখ করার মতো সাফল্য। এ গানটি পরে ভিডিও আকারেও প্রকাশ হয়। সেখানে মামুনের সঙ্গে মডেল হিসেবে উপস্থিত হয়ে তুমুল জনপ্রিয়তা পান অভিনেতা বুলবুল আহমেদের মেয়ে ঐন্দ্রিলা আহমেদ।

লোকগানের শিল্পী মামুনের শুরুটা ছিল বাংলাদেশ বেতারে গান করার মধ্য দিয়ে। নানামাত্রিক গানেই তার পদচারণা ছিল। তবে গানের গুরুর পরামর্শে তিনি ফোক গানকেই বেছে নিলেন ভালোবাসার জায়গা হিসেবে। তিনি লোকগানের সাধনাও করেন। দীর্ঘদিন করেছেন গবেষণা। মামুন ১০৫ জন সাধকের জীবনী ও তাদের গান সংগ্রহ করেছেন পাঁচ বছরেরও বেশি সময় ধরে।

দেশে সর্বপ্রথম মামুনই ফোক গান দিয়ে পুরো অ্যালবাম তৈরি করে তা বাজারে এনেছিলেন। এর আগে আর কোনো শিল্পী কেবল ফোক গান দিয়ে একক অ্যালবাম করেননি। বিবিসির কাছে ২০১৪ সালে এমনটাই দাবি করেন মামুন।

তিনি বলেন, ‘কেউ কল্পনাও করতে পারেনি যে শুধু ১০টি ফোক গান দিয়ে সেখানে এত ফিউশন করে ব্যয়বহুল অ্যালবাম তৈরি করা যায় এবং সেটি বিক্রিও করা যায়। অনেকেই কিন্তু আমার অ্যালবামটি কিনতে চায়নি অনেক খরচের কথা শুনে। পরে দেশের খুব জনপ্রিয় প্রতিষ্ঠান সংগীতা আমার পাশে এসেছিল। তারা অ্যালবামটি বাজারে আনে। বাকিটুকু তো ইতিহাস’।

‘রূপের মাইয়া’ গানের পর আরও কিছু গান মামুনের হিট হয়েছিল। তার মধ্যে ‘আমার বাংলাদেশের একতারা সুর কতোই ভালোবাসি’ উল্লেখযোগ্য। এটি ছিল শিল্পীর দ্বিতীয় অ্যালবামের গান। মামুনের কণ্ঠে ‘ঈদ মোবারক’ গানটিও বেশ শ্রোতাপ্রিয় হয়েছিল।

মামুনের কণ্ঠ মিস করেন আজও ভক্তরা।

এলএ/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]