হংকংয়ের বিশেষ সুবিধা বাতিল ট্রাম্পের, প্রতিশোধের হুঁশিয়ারি চীনের

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৫:১১ পিএম, ১৫ জুলাই ২০২০

চীনের নতুন জাতীয় নিরাপত্তা আইনের প্রতিক্রিয়ায় হংকংয়ের বিশেষ বাণিজ্য সুবিধা বাতিল করেছে যুক্তরাষ্ট্র। মঙ্গলবার হংকংয়ের অগ্রাধিকারমূলক এই সুবিধার ইতি টানতে নির্বাহী এক আদেশে স্বাক্ষর করেছেন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

পাশাপাশি হংকংয়ের বাসিন্দাদের মানবাধিকার লঙ্ঘনকারী চীনা ও হংকংয়ের কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা আরোপের একটি আইনেও স্বাক্ষর করেছেন মার্কিন এই প্রেসিডেন্ট। নতুন নিরাপত্তা আইন জারির মাধ্যমে হংকংয়ের স্বাধীনতা চীন ছিনিয়ে নেয়ায় তিনি এ ব্যবস্থা নিয়েছেন বলে জানিয়েছেন।

তবে মার্কিন প্রেসিডেন্টের এই সিদ্ধান্তের নিন্দা জানিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের বিরুদ্ধে প্রতিশোধমূলক ব্যবস্থা নেয়ার ঘোষণা দিয়েছে বেইজিং। যুক্তরাষ্ট্রের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা এবং প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হবে বলে জানিয়েছে চীন।

সাবেক ব্রিটিশ উপনিবেশ হংকংয়ে চীনের নতুন জাতীয় নিরাপত্তা আইনকে ‘দমনমূলক পদেক্ষপ’ বলে মন্তব্য করেছেন ট্রাম্প। হংকংয়ের বিশেষ বাণিজ্য সুবিধা বাতিলের নির্বাহী আদেশে স্বাক্ষরের সময় প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেন, কোনও বিশেষ সুবিধা থাকবে না, বিশেষ অর্থনৈতিক ব্যবস্থাও থাকবে না এবং স্পর্শকাতর কোনও প্রযুক্তিও রফতানি হবে না।

চীন নতুন জাতীয় নিরাপত্তা আইন জারি করার পর দেশটির সঙ্গে যেসব ব্যাংক ব্যবসায়িক কার্যক্রম পরিচালনা করবে, মার্কিন কংগ্রেসে পাস হওয়া সেসব ব্যাংকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার একটি বিলেও স্বাক্ষর করেছেন তিনি।

হোয়াইট হাউজের রোজ গার্ডেনে এক সংবাদ সম্মেলনে ট্রাম্প বলেন, আজ আমি হংকংয়ের বাসিন্দাদের বিরুদ্ধে চীনের আগ্রাসী ব্যবস্থার দায়ে একটি নির্বাহী আদেশ ও বিলে স্বাক্ষর করেছি। হংকংকে এখন থেকে চীনের মূল ভূখণ্ড হিসেবে বিবেচনা করা হবে।

ট্রাম্পের নির্বাহী আদেশের ফলে হংকংয়ের গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়াকে হেয় করে এমন বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট যেকোনও ব্যক্তির যুক্তরাষ্ট্রে সম্পত্তি থাকলে তা বাজেয়াপ্ত করা হবে। এর আগে, গত মে মাসে হংকংয়ের বিশেষ মর্যাদা ফিরিয়ে দেয়ার প্রক্রিয়া মার্কিন প্রশাসন শুরু করবে বলে ঘোষণা দিয়েছিলেন ট্রাম্প।

এদিকে, ট্রাম্পের এমন পদক্ষেপের পর বুধবার বেইজিংয়ে প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। তারা বলেছে, ব্যাংক টার্গেট করে আদেশ জারির সঙ্গে সংশ্লিষ্ট যুক্তরাষ্ট্রের কর্মকর্তা ও প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে প্রতিশোধমূলক নিষেধাজ্ঞা আরোপ করবে বেইজিং।

চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এই প্রতিক্রিয়া প্রকাশ করা হলেও সেখানে ট্রাম্পের নির্বাহী আদেশের ব্যাপারে কোনও কিছুই উল্লেখ করা হয়নি। তবে মন্ত্রণালয় বলছে, হংকংয়ের বিষয়গুলো একেবারে চীনের অভ্যন্তরীণ এবং এতে কোনও বিদেশি দেশের হস্তক্ষেপের সুযোগ নেই।

সূত্র: বিবিসি, রয়টার্স।

এসআইএস/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]