ইতালিকে ইউরোপের রাজা বানিয়ে আবেগাপ্লুত কোচ মানচিনি

স্পোর্টস ডেস্ক
স্পোর্টস ডেস্ক স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত: ১২:০০ পিএম, ১২ জুলাই ২০২১

বছর তিনেক আগে যখন দায়িত্ব নিলেন, তখন ব্যর্থতার চোরাবালিতে হাবুডুবু খাচ্ছে ইতালির ফুটবল। বাছাইপর্বে আটকে যাওয়ায় মেলেনি রাশিয়া বিশ্বকাপের টিকিট। নিজেদের ইতিহাসে ৬০ বছরের মধ্যে প্রথমবার টুর্নামেন্টের বাইরে থেকে ফিফা বিশ্বকাপ দেখতে হয়েছে ইতালিকে।

ঠিক সেই অবস্থায় কোচ হিসেবে দায়িত্ব নেন রবার্তো মানচিনি। প্রাথমিকভাবে চুক্তি করা হয় ২০২০ সাল পর্যন্ত। শর্ত একটাই, ইউরো কাপের বাছাইপর্ব পার করতে হবে দলকে। বাছাইয়ে তিন ম্যাচ হাতে রেখেই ইউরোর টিকিট নিশ্চিত করে আজ্জুরিরা আর মানচিনি পান ২০২২ পর্যন্ত ইতালির কোচের দায়িত্ব।

তবে দলকে শুধু ইউরোতে উঠিয়েই ক্ষান্ত দেয়ার পাত্র ছিলেন না মানচিনি। তার মাথায় ছিল ভিন্ন পরিকল্পনা। তাই তো ধীরে ধীরে গড়ে তুলেছেন আত্মবিশ্বাসী ও ঐক্যবদ্ধ একটি দল। যারা রোববার দিবাগত রাতে জিতে নিয়েছে নিজেদের ইতিহাসের দ্বিতীয় ইউরো শিরোপা। সবমিলিয়ে গত ৩৪ ম্যাচ ধরে হারে না মানচিনির শিষ্যরা।

এমন অবিশ্বাস্য পারফরম্যান্সের পর পাওয়া ইউরোপিয়ান শ্রেষ্ঠত্বের মুকুট পরে আবেগাপ্লুত ইতালির কোচ। টাইব্রেকারে ইংল্যান্ডকে হারানোর পর যেনো বুঝতেই পারছিলেন না কী করবেন। যাকে সামনে পেয়েছেন পরম আনন্দে তাকেই জড়িয়ে ধরেছেন আর চোখ দিয়ে বেয়ে পড়েছে আনন্দাশ্রু।

এমনকি সংবাদ মাধ্যমে কথা বলার সময়েও আবেগে নিমজ্জিত ইতালির কোচ। নিঃসংকোচেই বললেন, ‘অবিশ্বাস্য কিছু অর্জনের আবেগের প্রকাশ এটি। ছেলেদের উদযাপন করতে দেখে, গ্যালারিতে সমর্থকদের উল্লাস দেখে সুখের অনুভূতির প্রকাশ এটি।’

তিনি আরও যোগ করেন, ‘গত তিন বছরে যা কিছু আমরা করেছি, যতকিছুর ভেতর দিয়ে আমরা গিয়েছি… বিশেষ করে, গত ৫০ দিনে যতটা কঠোর পরিশ্রম আমরা করেছি, এই সবকিছুর কারণেই এমন আবেগ।’

নিজ দলের সাফল্যের পেছনের মূল রসদের কথা জানিয়ে মানচিনি বলেন, ‘আমরা একে অপরের সঙ্গে দারুণ মানিয়ে নিয়েছি। কখনোই কোনো সমস্যা হয়নি, সেই কৃতিত্ব ফুটবলারদেরই প্রাপ্য। শুধু মাঠেই নয়, সেখানে তো তারা অসাধারণ করেছেই, কিন্তু মাঠের বাইরেও, আমরা দারুণ টিম স্পিরিট গড়ে তুলতে পেরেছি।’

মানচিনি আরও যোগ করেন, ‘ওরা এমন একটি বন্ধন গড়ে তুলেছে, যা সামনেও কখনোই ছিন্ন হবে না। এই সাফল্যের প্রতিশব্দ হয়ে থাকবে ওরা, কারণ পরস্পরের প্রতি ওদের শ্রদ্ধা ও সম্মান তীব্র।’

এসএএস/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]