দিনে ১৬-১৭ ঘণ্টা নির্যাতন করা হতো শ্রীশান্তকে

স্পোর্টস ডেস্ক
স্পোর্টস ডেস্ক স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত: ০২:৩৭ পিএম, ০৩ জুলাই ২০২০

আইপিএলে ফিক্সিং করার অপরাধে দীর্ঘ সাত বছর সাজা ভোগ করে দুই মাস পর পুরোপুরি মুক্ত হতে চলেছেন ভারতের সাবেক পেসার শ্রীশান্ত। ঠিক এমন সময় তার তখনকার অবস্থা এবং কীভাবে মুহূর্তের মধ্যে বদলে গেছে সবকিছু, সে বিষয়ে কথা বলেছেন শ্রীশান্ত।

জানিয়েছেন আইপিএলের ম্যাচ পরবর্তী পার্টি থেকে তাকে সরাসরি নিয়ে যাওয়া হয় জেলে। যেখানে দাগী আসামীদের মতো আচরণ করা হয় তার সঙ্গে। টানা ১২ দিন ধরে প্রতিনিয়ত ১৬-১৭ ঘণ্টা করে জিজ্ঞাসাবাদের নামে নির্যাতন করা হতো শ্রীশান্তকে। সেসব দিনগুলোর কথা মনে পড়লে এখনও শিউরে ওঠেন শ্রীশান্ত।

ক্রিকেটভিত্তিক ওয়েবসাইট ক্রিকট্র্যাকারের সঙ্গে এক সাক্ষাৎকারে তিনি বলেছেন, ‘আপনি আমার জীবনের দিকে তাকান, মাত্র কয়েক মুহূর্তের ব্যাপার ছিল। আমি তখন ম্যাচ পরবর্তী পার্টিতে, সেখান থেকে নিয়ে যাওয়া হলো টেরোরিস্ট ওয়ার্ডে। আমার মনে হচ্ছিল, আমাকে বলির পাঠা বানানো হলো। পরে ১২ দিন ধরে, দিনে ১৬-১৭ ঘণ্টা আমাকে নির্যাতন করা হতো।’

তখন পরিবারের কথা জেনে নিজেকে সামলে রাখতেন শ্রীশান্ত, ‘আমি তখন আমার পরিবারের কথা ভাবতাম। কিছুদিন পর আমার বড়ভাই দেখতে আসেন, তিনি জানান যে বাসার সবাই ভালো আছে। আমার পরিবারের মানুষেরা আমাকে সাহস জুগিয়েছে, আমার পাশে থেকেছে। আমার পরিবারের জন্য কঠিন সময় ছিল এটি। আমরা মন্দিরে পর্যন্ত যেতে পারতাম না। অনেক কিছু সহ্য করতে হয়েছে।’

তবে এত কিছুর পরেও ভালভাবে মাঠে ফিরতে আশাবাদী শ্রীশান্ত, ‘যেকোন লড়াইয়ে জয় পাওয়াটাই মূখ্য। শচিন টেন্ডুলকার কোন ম্যাচে সেঞ্চুরি করলেও, পরের ম্যাচে কিন্তু শূন্য থেকেই শুরু করতে হবে। যেকোন সিদ্ধান্ত নেয়ার আগে ১০ সেকেন্ড ভাবুন। আপনার জানা থাকতে হবে যে আপনি সফল হবেন।’

এসএএস/পিআর

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]