ছাত্রলীগ নেতা রানার চিকিৎসায় ২ লাখ টাকা দিলেন প্রধানমন্ত্রী

উপজেলা প্রতিনিধি উপজেলা প্রতিনিধি মির্জাপুর (টাঙ্গাইল)
প্রকাশিত: ০৬:১৮ পিএম, ১৩ অক্টোবর ২০১৮

মরণব্যাধি ক্যানসারে আক্রান্ত টাঙ্গাইলের মির্জাপুর উপজেলার মহেড়া ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি মো. তাওহিদুজ্জামান রানার চিকিৎসায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দুই লাখ টাকা অনুদান দিয়েছেন। শুক্রবার ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে রানার মা রেখা বেগমের হাতে প্রধানমন্ত্রীর দেয়া দুই লাখ টাকার চেক তুলে দেন।

গত ৩০ আগস্ট জাগো নিউজে ‘ছাত্রলীগ নেতা রানাকে বাঁচান’ , ১৩ সেপ্টেম্বর ‘রানাকে বাঁচাতে ছাত্রলীগের যুদ্ধ’ শিরোনামে সংবাদ প্রকাশিত হয়। সংবাদটি বিত্তবানদের নজরে আসার পর অনেকেই রানার প্রতি সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন। বিত্তবানদের দেয়া অর্থেই এখন রানার চিকিৎসা চলছে।

পরিবার সূত্রে জানা গেছে, টাঙ্গাইল শাহজালাল (র.) মেডিকেল ইনস্টিটিউশন থেকে মেডিকেল অ্যাসিস্ট্যান্ট পাস করা তাওহিদুজ্জামান রানা উপজেলার মহেড়া ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি। তিনি উপজেলার মহেড়া গ্রামের আবুল হোসেনের ছেলে। রানার বড় দুই বোন রয়েছে। এক বোনের বিয়ে দিয়েছেন। সংসারে রানার বড় এক বোন ও মা-বাবা রয়েছেন।

বাবা আবুল হোসেন পেশায় একজন পশুচিকিৎসক। গ্রামে গ্রামে গিয়ে পশুচিকিৎসা করে যা আয় করেন তা দিয়েই সংসার চালাতে হয়। এর মধ্যে ছেলের গলায় ক্যান্সার ধরা পড়ায় আয়-রোজগার বন্ধ করে ছেলের সঙ্গে ভারতের হায়দরাবাদে রয়েছেন। একদিকে সংসার চালানো অন্যদিকে ছেলের চিকিৎসা সব মিলিয়ে রানার পরিবার এখন হতাশায় দিন কাটাচ্ছেন। তাওহিদুজ্জামান রানা বর্তমানে গলায় ও ঘাড়ে ক্যান্সারে (ননহসকিন লিস্ফোমা) আক্রান্ত হয়ে ভারতের হায়দরাবাদের যশোদা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন বলেন, ছাত্রলীগ নেতা রানা ক্যানসারে আক্রান্ত- বিভিন্ন গণমাধ্যমে এমন সংবাদ দেখে জননেত্রী শেখ হাসিনাকে বিষয়টি অবহিত করা হয়। পরে তিনি রানার চিকিৎসার জন্য দুই লাখ টাকার অনুদান দেন।

রানার মা রেখা বেগম বলেন, আমার ছেলেকে বাঁচাতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দুই লাখ টাকা অনুদান দিয়েছেন। এছাড়াও স্থানীয় আওয়ামী লীগ ও ছাত্রলীগ নেতাকর্মীসহ বিভিন্নজন রানাকে বাঁচাতে যুদ্ধ করে চলছেন। আমি সবার কাছে কৃতজ্ঞ।

এস এম এরশাদ/আরএআর/জেআইএম

আপনার মতামত লিখুন :