আইয়ুব বাচ্চুকে উৎসর্গ করে আরমান খানের ‘আসা যাওয়া’

বিনোদন প্রতিবেদক
বিনোদন প্রতিবেদক বিনোদন প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৫:৩২ পিএম, ১৩ অক্টোবর ২০২১

বাবা প্রখ্যাত সংগীতজ্ঞ আলম খান। চাচা ব্যান্ডগুরু আজম খান। স্বভাবতই বলা চলে তার রক্তে বহমান গানের প্রতি ভালোবাসা। তিনি আরমান খান। বাবা-চাচার নামের আড়ালে চাপা পড়ে থাকেননি। নিজেও হয়ে উঠেছেন এদেশের গানের আঙিনায় দুর্দান্ত সফল একজন।

অনেক জনপ্রিয় গান তিনি উপহার দিয়েছেন। বিশেষ করে ব্যান্ডসংগীতে তার সাফল্যটা মোটা দাগে উল্লেখ করার মতো। যাদের হাত ধরে নব্বই দশকের সেরা ব্যান্ড তারকার এক ক্যাসেটে যুগলবন্দি হয়ে কণ্ঠের মাদকতায় তারুণ্যকে মাতিয়ে দিয়েছিলেন তাদের একজন আরমান খান। প্রচারে বরাবরই পিছিয়ে। বলা চলে অনাগ্রহী। নীরবে নিভৃতে গান তৈরি করে গেছেন।

সেসব গান গেয়ে জনপ্রিয়তার আকাশ ছুঁয়ে প্রচারের রাজত্ব করেছেন আইয়ুব বাচ্চু, জেমস, হাসান, বিপ্লবের মতো ব্যান্ডসংগীতের মহাতারকারা।

বর্তমানে সিলেটের গ্র্যান্ড সুলতানের সহকারী মহাব্যবস্থাপকের দায়িত্ব পালন করছেন তিনি। গানে নিয়মিত নন। প্রায় ১০ বছরেরও বেশি সময় ছিলেন না গানের সঙ্গে। গত বছর ‘বন্ধু’ শিরোনামের একটি গান নিয়ে হাজির হয়েছিলেন, যার কথা, সুর ও সংগীতায়োজন করেছেন আরমান খান নিজেই।

সেই তিনি আবারও ফিরলেন গানে। এবার উপলক্ষ ও আয়োজনের কেন্দ্রবিন্দুতে আছেন দেশের ব্যান্ড লিজেন্ড আইয়ুব বাচ্চু। এলআরবি বসের মৃত্যুবার্ষিকী ১৮ অক্টোবর। সে উপলক্ষে প্রকাশ পাচ্ছে আরমান খানের গান ‘আসা যাওয়া’। মজার ব্যাপার হলো, গানটি লিখেছেন ‘এখন অনেক রাত’সহ আইয়ুব বাচ্চুর বেশকিছু জনপ্রিয় গানের গীতিকার বাপ্পী খান।

গানটি প্রসঙ্গে জাগো নিউজের সঙ্গে একান্ত আলাপচারিতায় আরমান খান বলেন, ‘এটা একটা ইমোশন, একটা ভালোবাসার জায়গা থেকে করা। আইয়ুব বাচ্চু মানেই আমার কাছে দারুণ কিছু, বিশেষ কিছু। অনেক দিন ধরেই ভাবছিলাম উনাকে নিয়ে কিছু একটা করবো। অবশেষে সিদ্ধান্ত নিলাম একটা গান করি। কয়েকটা গান লিখেও ফেললাম। কিন্তু মনমতো হচ্ছে না।

অবশেষে আলাপ হলো বাপ্পী খান ভাইয়ের সঙ্গে। উনি বাচ্চু ভাইয়ের অনেক জনপ্রিয় গানের গীতিকার। আমার সঙ্গে অল্প বিস্তর পরিচয় ছিল। যোগাযোগ হওয়ার পর তিনিও পরিকল্পনা শুনে খুশি হলেন। একটি গান লিখে দিলেন। এটি মূলত আইয়ুব বাচ্চুকে নিয়ে লেখা নয়। বরং উনার জন্য লেখা। গানটি উনাকে উৎসর্গ করেছি আমরা।’

‘বাচ্চু ভাই এদেশের ব্যান্ডসংগীতের মহাতারকা, যা তিনি দিয়ে গেছেন সে ঋণ এই মিউজিক ইন্ডাস্ট্রি কোনো দিন পূরণ করতে পারবে না। অনেক অনেক মানুষের রিজিকের ব্যবস্থা করে গেছেন তিনি এই সংগীতাঙ্গনে। সেই মানুষটার জন্য কিছু করতে পারার যে তৃপ্তি তা বলে বোঝানো যাবে না। খুব ভালো লাগছে’- যোগ করেন আরমান খান।

স্মৃতিচারণ করতে গিয়ে আবেগাক্রান্ত হয়ে পড়েন আরমান খান। মুঠোফোনের ওপারে ভেসে আসে তার চাপা স্বর। বোঝা যায় কাঁদছেন। খানিকটা নিজেকে সামলে নিয়ে বললেন, ‘জানেন, গানটি তৈরি হওয়ার পর থেকেই ভাবছি সবচেয়ে ভালো হতো এটি আইয়ুব বাচ্চু নিজে গাইলে। তার ভয়েসের তুলনা হয় না। একটা সময় তো ছিল যখন গান করতাম ‘হিট করাতে হবে’ এই ভাবনা নিয়ে।

jagonews24

প্রযোজক, গায়ক থেকে শুরু করে সবাই এটা বলতাম যে, গান হিট করাতে হবে। ঈদ, পূজা, বৈশাখ আসছে বা যে কোনো উপলক্ষ; গান করলে তা হিট করাতে হবে। ‘চান্দের বাত্তির কসম দিয়া’ হিট করেছে, ‘শীত নয় গ্রীষ্ম নয় এসেছে বসন্ত’ হিট করেছে, ‘লাল বন্ধু নীল বন্ধু’ হিট করেছে, ‘নান্টু ঘটক’ হিট করেছে। এ ভাবনাটা অনেক দিন ভাবি না। সেই সময়টা ফেলে এসেছি। আমার নতুন গানটি হিট করবে কি না জানি না। তবে গানটি শ্রোতারা খুব ভালোবাসবেন এমন একটা প্রত্যাশা থেকে তৈরি করেছি।’

আরমান খান জানান, গানটি প্রকাশ হবে জি-সিরিজের ব্যানারে। আইয়ুব বাচ্চুর মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে এটি ১৭ বা ১৮ তারিখ প্রকাশ হবে ভিডিও আকারে। এর ভিডিও পরিচালনা করেছেন রায়হান খান। ভিডিওতে দেখা যাবে গানটির সুরকার, সংগীত পরিচালক ও গায়ক আরমান খানকেই।

প্রসঙ্গত, আইয়ুব বাচ্চু আরমান খানের সুর-সংগীতে বেশকিছু গান গেয়েছেন। ২০০২ হাসান, বিপ্লবের সঙ্গে আইয়ুব বাচ্চু আরমান খানের সুরে গেয়েছেন ‘পরীক্ষা’ অ্যালবামে। সেখানে তিনি গেয়েছেন ‘বয়স বাড়লে’, ‘অবুঝ মন’ ও ‘অনেক দিনের পর’ শিরোনামের তিনটি গান।

তার মধ্যে জেমসের সঙ্গে ডুয়েট ‘দোস্ত দুশমন’ অ্যালবাম উল্লেখযোগ্য। এখানে তিনি ‘পারেনা পারিনা’, ‘এগারো দিবা রাত্রির’, ‘চুপচাপ প্রেম’, ‘এত কাছে’, ‘একটু প্রেম দাও’ শিরোনামে গানগুলো গেয়েছেন আরমান খানের সুর সংগীতে। এটি প্রকাশ হয় ২০০৫ সালে।

এলএ/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]