সর্বোচ্চ ৯৩ কিলোমিটার বেগে আঘাত হানে ‘বুলবুল’

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০২:৪৭ পিএম, ১০ নভেম্বর ২০১৯

ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’ বাংলাদেশের উপকূলীয় এলাকায় ঘণ্টায় সর্বোচ্চ ৯৩ কিলোমিটার বেগে আঘাত হানে বলে জানিয়েছেন আবহাওয়া অধিদফতরের পরিচালক শামছুদ্দিন আহমেদ।

রোববার সচিবালয়ে ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’ পরিস্থিতি নিয়ে সংবাদ সম্মেলনে পরিচালক এ তথ্য জানান। আগামী ২ দিনের মধ্যে আবহাওয়া স্বাভাবিক হয়ে যাবে বলেও জানান তিনি।

সংবাদ সম্মেলনে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী মো. এনামুর রহমান, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয় সংক্রান্ত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি এবি তাজুল ইসলাম, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব মো. শাহ কামাল উপস্থিত ছিলেন।

আবহাওয়া অধিদফতরের পরিচালক বলেন, গত ৪ নভেম্বর উত্তর আন্দামান সাগরে একটি লঘুচাপ সৃষ্টি হয়েছিল। সেখান থেকে লঘুচাপটি ধীরে ধীরে শক্তি সঞ্চয় করে একটি প্রবল তীব্র ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হয়। ঘূর্ণিঝড়টির নাম ছিল ‘বুলবুল’।

তিনি বলেন, ‘বুলবুল’ দীর্ঘ পথ পরিক্রমায় যখন বাংলাদেশের উপকূলের দিকে এগিয়ে আসে। এক সময় বাংলাদেশ আবহাওয়া অধিদফতর থেকে এর তীব্রতা অনুযায়ী মহাবিপদ সংকেত দেয়া হয়েছিল। রোববার (১০ নভেম্বর) প্রথমে এটি ভারতের একটি অংশে আঘাত হানে, এরপর ভারতের পশ্চিমবঙ্গ ও আমাদের খুলনা-এই পথ ধরে অগ্রসর হতে থাকে। অগ্রসর হতে হতে এটি বাংলাদেশের বিভিন্ন অঞ্চলে দমকা ও ঝোড়ো হাওয়ার পরিস্থিতি সৃষ্টি করে। ভারী বৃষ্টিপাত হয়।

‘আজকে সকাল ৫টার দিকে বুলবুল বাংলাদেশের খুলনা, বরগুনা, বাগেরহাট অঞ্চলে এসে দুর্বল হয়ে স্থলভাগে একটি গভীর নিম্নচাপ হিসেবে অবস্থান করে। এজন্য আমরা মহাবিপদ সংকেত নামিয়ে ওই সব জায়গায় ৩ নম্বর স্থানীয় সতর্ক সংকেত রাখতে বলেছি। সকাল সাড়ে ৯টায় মহাবিপদ সংকেত তুলে নেয়া হয়।’

শামছুদ্দিন আহমেদ বলেন, ‘৩ নম্বর স্থানীয় সতর্ক সংকেত রাখতে বলেছি কারণ এখনও সারাদেশে বিভিন্ন জায়গায় ৭০ থেকে ৮০ কিলোমিটার বেগে দমকা হাওয়া বয়ে যাচ্ছে স্থল নিম্নচাপের কারণে। কোথাও কোথাও ভারী বর্ষণ হচ্ছে। অন্যদিকে সমুদ্রে ছোট ছোট মাছ ধরার নৌকাগুলোকে এখনও নিরাপদ আশ্রয়ে থাকার জন্য পরামর্শ দিয়েছি। এখনই তারা সমুদ্রে যেন মাছ ধরতে না যায়।’

পরিচালক বলেন, ‘ঘূর্ণিঝড়ের সর্বোচ্চ বাতাসের গতিবেগ রেকর্ড হয়েছে, খেপুপাড়ায় একবার ঘণ্টায় ৬৩ কিলোমিটার, আরেকবার ৮২ কিলোমিটার। খুলনায় ৪১ কিলোমিটার, মোংলায় একবার ৫৯ কিলোমিটার ও আরেকবার ৭৮ কিলোমিটার, সাতক্ষীরায় ৮১ কিলোমিটার, যশোরে ৭০ কিলোমিটার।

খুলনার কয়রায় ঘণ্টায় সর্বোচ্চ ৯৩ কিলোমিটার বাতাসের গতি নিয়ে ‘বুলবুল’ আঘাত হেনেছে বলেও জানান শামছুদ্দিন আহমেদ।

তিনি বলেন, ‘বাতাসের গতিবেগ সর্বোচ্চ ৪০ থেকে ৯০ কিলোমিটার ছিল। বৃষ্টিপাত সর্বোচ্চ রেকর্ড করা হয়েছে ১৫৯ মিলিমিটার মোংলায়। বৃষ্টিপাত ৫০ থেকে ১৬০ মিলিমিটারের মধ্যে উঠানামা করেছে।’

আগামী ২ দিনের মধ্যে আবহাওয়া ধীরে ধীরে অনুকূল হতে থাকবে জানিয়ে পরিচালক বলেন, ‘তখন বিদ্যমান যে সংকেতটি আছে সেটিও প্রত্যাহার করে নেয়া হবে।’

আরএমএম/এসএইচএস/এমএস

টাইমলাইন