উপকূলের মানুষকে সাইক্লোন শেল্টারে নেয়া হচ্ছে

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি পটুয়াখালী
প্রকাশিত: ০৯:৪৫ এএম, ০৯ নভেম্বর ২০১৯
ফাইল ছবি

বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট প্রবল ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের কারণে পায়রা সমুদ্র বন্দরে ১০ নম্বর মহাবিপদ সংকেত জারি করেছে আবহাওয়া অফিস। ইতোমধ্যে পটুয়াখালী উপকূলের মানুষকে সরিয়ে সাইক্লোন শেল্টারে নিতে কাজ শুরু করেছে জেলা প্রশাসন। শনিবার সকাল সাড়ে ৯টার দিকে জেলা প্রশাসক মো. মতিউল ইসলাম চৌধুরী বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের প্রভাবে পটুয়াখালীতে গত দুইদিন ধরে হালকা থেকে মাঝারি ধরনের বৃষ্টি হচ্ছে। গত রাত থেকে বাতাসের গতিবেগ কিছুটা বৃদ্ধি পেয়েছে। আর সাগর উত্তাল রয়েছে। নদ-নদীর পানি স্বাভাবিকের চেয়ে সামান্য বৃদ্ধি পেয়েছে। দুর্যোগের সর্বশেষ খবর জানতে উপকূলের মানুষ অনলাইন গণমাধ্যম ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও চোখ রাখছেন। টেলিভিশন ও রেডিও শুনছেন অনেকেই।

পটুয়াখালী আবহাওয়া অফিসের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা বশির আহমেদ জানান, ১০ মিনিট আগে পায়রা সমুদ্রবন্দরকে ৭ নম্বর বিপদ সংকেত নামিয়ে তার পরিবর্তে ১০ নম্বর মহাবিপদ সংকেত দেখিয়ে যেতে বলা হয়েছে। শুক্রবার মধ্যরাত থেকে শনিবার সকাল ৯টা পযর্ন্ত ২৭.৬ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে।

গতকাল শুক্রবার জেলা প্রশাসক মো. মতিউল ইসলাম চৌধুরী জানান, ইতোমধ্যে সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে। দুর্যোগে ত্রাণ কার্যক্রম পরিচালনার জন্য ১৬৬ বান্ডিল টিন, ২ লাক ৭৫ হাজার টাকা, ১০০ মেট্রিকটন চাল, ৪০৩টি সাইক্লোন শেল্টার, ৩ হাজার ৫০০ কম্বল প্রস্তুত রয়েছে।

তিনি আরও জানান, জেলা প্রশাসন ও জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে সকল উপজেলায় কন্ট্রোল রুম চালু করা হয়েছে। কন্ট্রোল রুমের নম্বর : টেলিফোন-০৪৪১৬২৩৯৪ , মোবাইল-০১৩১৭৩৬৫১১৩।

পটুয়াখালী ইয়ুথ ফোরামের সভাপতি মো. জহিরুল ইসলাম জানান, পটুয়াখালী, কলাপাড়া, রাঙ্গাবালী, গলাচিপা, বাউফল, দশমিনা মির্জাগঞ্জ ও দুমকির বেড়িবাঁধ এলাকায় ফায়ার সার্ভিস, কমিউনিটি ভলান্টিয়ার, পটুয়াখালী ইয়ুথ ফোরাম, রেড ক্রিসেন্টে, সিপিপি ও পুলিশ মানুষকে সাইক্লোন শেল্টারে নিতে কাজ করছে।

মহিব্বুল্লাহ্ চৌধুরী/আরএআর/এমএস

টাইমলাইন  

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]