মগবাজারে বিস্ফোরণের পর ‘উৎকণ্ঠিত’ জনতার ভিড়

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০১:৪৩ এএম, ২৮ জুন ২০২১

রাজধানীর মগবাজারে বিস্ফোরণের পর থেকেই ঘটনাস্থলে উৎসুক জনতার চাপ সামলাতে দেখা গেছে পুলিশ ও স্বেচ্ছাসেবীদের। মধ্যরাতেও এ চাপ লক্ষ্য করা যায়। পুলিশ ও স্বেচ্ছাসেবীরা ঘটনাস্থল থেকে প্রায় চারশ গজ দূর থেকে ব্যারিকেড দিয়ে রাখলেও ঘটনাস্থলে আসতে উৎসুক জনতাকে উদগ্রীব হতে দেখা যায়।

সরেজমিনে দেখা গেছে, বিস্ফোরণের খবর ছড়িয়ে পড়ার পরপরই উৎসুক জনতা ভিড় করে ওই এলাকায়। ঘটনার পরপরই বন্ধ করে দেয়া হয় মগবাজারের মৌচাক রাস্তা। উৎসুক জনতার প্রত্যেকের হাতে মোবাইল ক্যামেরায় ভিডিও ও ছবি তুলতে দেখা গেছে। কেউ কেউ আবার নিজের ব্যক্তিগত ফেসবুকে লাইভও করেন।

রাত বাড়লেও উৎসুক জনতার ভিড় কমেনি বরং তা বাড়তে দেখা যায়। খবর শুনে অনেকেই ঘটনাস্থলে দেখতে আসেন।

jagonews24

ঘটনাস্থল দেখতে আসা আলমগীর হোসেন নামে একজন জাগো নিউজকে বলেন, বাসায় টিভিতে লাইভ দেখছিলাম। লাইভ দেখা মনে হলো বাসার পাশেই যেহেতু ঘটনা, তাই একবার দেখে আসি।

ভিড় এমন পর্যায়ে গিয়ে ঠেকেছে যে ফায়ার সার্ভিস, আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ও স্বেচ্ছাসেবীদের কাজে শেষ পর্যন্ত ব্যাঘাত ঘটার মতো পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে। পুলিশ তাদের সরে যেতে বারবার অনুরোধ করলেও সেদিকে তারা কর্ণপাত করেনি।

রেডক্রিসেন্টের স্বেচ্ছাসেবী নাজমুল হক জাগো নিউজকে বলেন, ঘটনার পর থেকে এলাকার আশপাশ থেকে উৎসুক জনতা এসে ভিড় করতে থাকে। আমাদের স্বেচ্ছাসেবীরা তাদেরকে অনুরোধ করার পরেও তারা জোর করে ঘটনাস্থলে প্রবেশের চেষ্টা করছে।

উল্লেখ্য, মগবাজারে বিস্ফোরণের ঘটনায় এখন পর্যন্ত সাতজন নিহত হয়েছেন। ঢাকা মহানগর পুলিশ কমিশনার মোহা. শফিকুল ইসলাম ঘটনাস্থল পরিদর্শন শেষে উপস্থিত সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান।

টিটি/এআরএ

টাইমলাইন  

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]