পেনাল্টি যে কেউই মিস করতে পারে : ইংলিশ অধিনায়ক

স্পোর্টস ডেস্ক
স্পোর্টস ডেস্ক স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত: ১২:৩৩ পিএম, ১২ জুলাই ২০২১

নির্ধারিত ৯০ মিনিটে ১-১ গোলে ড্র। খেলা গড়াল অতিরিক্ত ত্রিশ মিনিটে। সেখানে গোল করতে পারল না ইংল্যান্ড-ইতালির কেউই। অবধারিতভাবেই ফল নির্ধারণের জন্য দ্বারস্থ হতে হয় টাইব্রেকারের। যেখানে ৩-২ ব্যবধানে জিতে ৫৩ বছর ইউরো কাপের চ্যাম্পিয়ন হয়েছে ইতালি।

অতিরিক্ত ত্রিশ মিনিটের একদম শেষ দিকে টাইব্রেকারের জন্য দুইজন খেলোয়াড় পরিবর্তন করেন ইংল্যান্ডের কোচ গ্যারেথ সাউথগেট। জর্ডান হেন্ডারসন ও কাইল ওয়াকারকে তুলে নিয়ে মাঠে নামান জেডন সানচো ও মার্কাস র‍্যাশফোর্ডকে।

মূলত পেনাল্টি স্পেশালিস্ট হিসেবে নামানো হয় এ দুজনকে। কিন্তু নিয়তির কী খেল! টাইব্রেকারে তৃতীয় ও চতুর্থ শটে পরপর গোল করতে ব্যর্থ হন একদম শেষ সময়ে মাঠে আসা এ দুজনই। এরপর পঞ্চম শটে পারেননি বুকায়ো সাকাও। যার ফলে নিশ্চিত হয়ে যায় ইতালির জয়।

ম্যাচ শেষে পেনাল্টি মিস করা খেলোয়াড়দের পাশে দাঁড়িয়েছেন ইংল্যান্ডের অধিনায়ক হ্যারি কেইন। টাইব্রেকারে প্রথম শটে গোল করেছিলেন কেইন। এরপর দ্বিতীয় শটে জাল কাঁপান হ্যারি মাগুইরে। কিন্তু পরের তিনটাই মিস করেন তিন তরুণ র‍্যাশফোর্ড, সানচো ও সাকা।

তাদেরকে পেনাল্টি মিসের জন্য কোনো দায় না দিয়ে ম্যাচ পরবর্তী সংবাদ সম্মেলনে কেইন বলেছেন, ‘আপনাকে অবশ্যই মাথা উঁচু রাখতে হবে। এটা দুর্দান্ত একটা টুর্নামেন্ট ছিল। যে কেউই পেনাল্টি মিস করতে পারে। আমরা একসাথে জিতি, একসাথেই হারি।’

ইংলিশ অধিনায়ক আরও বলেন, ‘আমরা এখান থেকে শিখব এবং আরও বড় হবো। ছেলেরা এখান থেকে পরের ধাপে যাওয়ার শিক্ষা পাবে। পরবর্তী বিশ্বকাপের জন্য এটা আমাদের অনুপ্রেরণা দেবে।’

ফাইনাল সম্পর্কে কেইনের মূল্যায়ন, ‘আমরা ভালো একটি দলের বিপক্ষে খেলেছি। শুরুটা দারুণ হয়েছিল আমাদের। তবে কিছু কিছু সময় খানিক নুইয়ে পড়েছি আমরা। তারা অনেক বেশি বল পেয়েছে। তবে আমাদেরও নিয়ন্ত্রণ ছিল। তারা শেষ পর্যন্ত সেট পিস থেকে ম্যাচ জিতে নিয়েছে।’

এসএএস/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]