কে এই আনিসুল ইমন? খুঁজছেন বিসিবি সভাপতি

শাহাদাৎ আহমেদ সাহাদ
শাহাদাৎ আহমেদ সাহাদ শাহাদাৎ আহমেদ সাহাদ , স্পোর্টস রিপোর্টার
প্রকাশিত: ০৯:০৫ পিএম, ২৮ নভেম্বর ২০২০

চলতি বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টি কাপের উদ্বোধনী ম্যাচে বেক্সিমকো ঢাকার কাছে রীতিমত চমক হিসেবে আবির্ভূত হয়েছিলেন মিনিস্টার গ্রুপ রাজশাহীর ডানহাতি ওপেনার আনিসুল ইসলাম ইমন। ঢাকার বোলিংয়ের সামনে রাজশাহীর টপঅর্ডার যেখানে হিমশিম খাচ্ছিল, সেখানে সাহসী ব্যাটিং করেন ইমন, খেলেন ২৩ বলে ৩৫ রানের ইনিংস।

সেদিন রাজশাহীর ২ রানের জয়ে মূল নায়ক ছিলেন শেখ মেহেদি হাসান, ব্যাট হাতে ফিফটির পর বল হাতে দলকে পাইয়ে দেন শ্বাসরুদ্ধকর জয়। পাশাপাশি ২০ বলে ৩৯ রানের ইনিংস খেলেন উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান নুরুল হাসান সোহান। তবে এ দুজনই পরিচিত মুখ হওয়ায় সবার আগ্রহের কেন্দ্রে পরিণত হন আনিসুল ইমন। যে তালিকায় রয়েছেন খোদ বিসিবি প্রেসিডেন্ট নাজমুল হাসান পাপনও।

অনেকের কাছে অচেনা ঠেকলেও, ঢাকা প্রিমিয়ার লিগের গত দুই আসরেই খেলেছেন আনিসুল ইমন। ২০১৯ সালের প্রিমিয়ার লিগে উত্তরা স্পোর্টিং ক্লাবের হয়ে খেলেছেন সবক’টি ম্যাচ। ইনিংস সূচনার পাশাপাশি মাঝের ওভারগুলোতে বোলিংয়েও ভরসার প্রতীক হয়েছিলেন তিনি। পরে অসমাপ্ত ২০২০ সালের প্রিমিয়ার লিগে ওল্ড ডিওএইচএসের হয়ে খেলা একমাত্র ম্যাচেও হাঁকান ফিফটি।

প্রিমিয়ার লিগ থেকে প্রায় নিয়মিতই এমন সব খেলোয়াড়ের সন্ধান মেলে বলে মনে করেন টুর্নামেন্টটির আয়োজক কমিটি সিসিডিএম চেয়ারম্যান কাজী ইনাম। প্রিমিয়ার লিগে ১২টি দল ও অনেক বেশি ম্যাচ থাকায় তুলনামূলক বেশি খেলোয়াড় নিজেদের সামর্থ্য দেখানোর সুযোগ পান। যারা পরে অন্যান্য টুর্নামেন্টেও নিজেদের জাত চেনাতে পারেন।

Anisul Emon

শনিবার সংবাদমাধ্যমে কাজী ইনাম বলেছেন, ‘ঢাকা প্রিমিয়ার লিগের ক্ষেত্রে দুইটা জিনিস গুরুত্বপূর্ণ। যে কারণে আমি মনে করি এটার বিকল্প কোন কিছু নেই। এখানে আমাদের সবচেয়ে বেশি খেলোয়াড় খেলে। আমাদের সবগুলো ফরম্যাটই গুরুত্বপূর্ণ, সেটা বিসিএল (চারদিনের ফরম্যাটে বাংলাদেশ ক্রিকেট লিগ) হোক বা জাতীয় লিগ।’

ঢাকা প্রিমিয়ার লিগের ২০১৯ সালের আসরে ১৩ ম্যাচ খেলে ৩২.৬১ গড়ে ৪২৪ রান করেছিলেন আনিসুল ইমন। উত্তরাকে ঝড়ো সূচনা এনে দেয়ার দায়িত্ব নিয়ে খেলেন প্রায় ৮৮ স্ট্রাইকরেটে, গাজী গ্রুপের বিপক্ষে একটি ম্যাচে মাত্র ২৮ বলে হাঁকান ফিফটি। সবমিলিয়ে সেবার ৪টি ফিফটি করেন তিনি। এছাড়া বল হাতেও ৭ ইনিংসে নেন ৬টি উইকেট। তার কার্যকরি মিডিয়াম পেস বোলিং মাঝের ওভারগুলোতে অধিনায়কের জন্য এক ভরসার জায়গা হয়ে ছিল।

পরে অসমাপ্ত ২০২০ সালের ওল্ড ডিওএইচসের হয়ে খেলতে নেমে লিজেন্ডস অব রুপগঞ্জের বিপক্ষে করেন ৫৯ রান। করোনা লকডাউনের পর শুরু হওয়া ক্রিকেটে বিসিবি প্রেসিডেন্টস কাপের কোনো দলে সুযোগ মেলেনি তার। তবে এবার বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টি কাপের প্লেয়ার্স ড্রাফটে ১১ নম্বরেই আনিসুল ইমনকে ডেকে নিয়েছে মিনিস্টার গ্রুপ রাজশাহী। টুর্নামেন্টের প্রথম ম্যাচে প্রায় ১৫২ স্ট্রাইকরেটে ৩৫ রান করে বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনেরও নজর কেড়েছেন তিনি।

Anisul Emon 2

আনিসুল ইমনের ব্যাপারে খোঁজ নিয়েছেন বোর্ড প্রেসিডেন্ট, এমনটা জানিয়ে কাজী ইনাম বলেছেন, ‘আমাদের বোর্ড প্রেসিডেন্ট প্রথম খেলায় বলল যে, আনিসুল প্লেয়ারটা কোন টিম থেকে? সে কোন সিস্টেমের কোন জায়গা থেকে আমাদের তেমন ধারণা নাই। অথচ সে কিন্তু গত দুই বছর ঢাকা প্রিমিয়ার লিগ খেলেছে, ভালো খেলেছে। এই ধরনের খেলোয়াড়দের কিন্তু আলাদা আলাদা ক্লাব তৈরি করে। প্রিমিয়ার লিগে তারা নিজেদের দেখানোর সুযোগটা পায়।’

বিসিবি প্রেসিডেন্টের চোখে পড়া ইমনের জন্মস্থান নারায়ণগঞ্জ। সেখানেই নারায়ণগঞ্জ ক্রিকেট একাডেমিতে শুরু তার ক্রিকেটের পাঠ। শহরের আই.ই.টি. সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের হয়ে খেলেছেন নির্মাণ স্কুল ক্রিকেটেও। জাতীয় পর্যায়ে কোনো বয়সভিত্তিক দলে সুযোগ না পেলেও, লম্বা সময় নারায়ণগঞ্জ জেলা অনূর্ধ্ব-১৪, ১৬ ও ১৮ দলের অধিনায়কত্ব করেছেন তিনি। পরে প্রথম বিভাগ ক্রিকেটে খেলে সুযোগ পেয়েছেন প্রিমিয়ার লিগে।

উল্লেখ্য, প্রথম ম্যাচে ২৩ বলে ৩৫ রান ইনিংস খেলা আনিসুল ইমন পরের দুই ম্যাচে প্রত্যাশা মেটাতে পারেননি। জেমকন খুলনার বিপক্ষে ৫ বলে ২ রান করে আউট হওয়ার পর আজ (শনিবার) তৃতীয় ম্যাচে ২৪ রান করতে খেলেছেন ২৭ বল। এর বাইরে দ্বিতীয় ম্যাচ এক ওভার হাত ঘুরিয়ে ৫ রান খরচ করেছেন তিনি।

এসএএস/এমএমআর/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]