কিছু একটা নিয়ে দেশে ফিরতে চাই : সাইফউদ্দিন

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০৬:১৩ পিএম, ০৪ মার্চ ২০২১

প্রায় দেড় মাসের জন্য নিউজিল্যান্ড সফরে গিয়ে অবশেষে মাঠে নামার সুযোগ পেয়েছে বাংলাদেশ দল। আজ (বৃহস্পতিবার) থেকে ৭ জনের দলে ভাগ হয়ে গুচ্ছ অনুশীলন করতে পেরেছে টাইগাররা। ক্রাইস্টচার্চের লিংকন গ্রিন পার্কে হয়েছে অনুশীলন।

সাতদিন রুমে থাকার পর অনুশীলন করতে পেরে বেজায় খুশি দলের ক্রিকেটাররা। পেস বোলিং অলরাউন্ডার মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন জানিয়েছেন প্রথম দিনের অনুশীলনের কথা। পরিস্থিতিটি সবার জন্য নতুন হলেও, পেশাদার ক্রীড়াবিদ হিসেবে মানিয়ে নেয়ার চেষ্টা করছেন তারা।

বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) কর্তৃক সরবরাহকৃত ভিডিওবার্তায় সাইফউদ্দিন বলেছেন, ‘আলহামদুলিল্লাহ! প্রথম ৭ দিন হোম কোয়ারেন্টাইন করার পর আজ অষ্টম দিনে প্রথম ছোট ছোট গ্রুপে অনুশীলনে গেলাম। সবমিলিয়ে ভাল ছিল।’

তিনি আরও যোগ করেন, ‘এরকম হোম কোয়ারেন্টাইন মেইনটেইন করে নিউজিল্যান্ড ট্যুরে আসা। এমন অভিজ্ঞতা প্রথমবার হলো। আলহামদুলিল্লাহ! সবমিলিয়ে ভালো ছিল। যেহেতু আমরা ক্রীড়াবিদ, সবধরনের পরিস্থিতিতে নিজেদের মানিয়ে নিতে চেষ্টা করি।’

নিউজিল্যান্ডে এখনও পর্যন্ত ১৪টি ওয়ানডে খেলে বাংলাদেশের জয় মাত্র একটি। তবে সেটি স্বাগতিকদের বিপক্ষে নয়। ২০১৫ সালের বিশ্বকাপে নিউজিল্যান্ডের মাটিতে স্কটল্যান্ডকে হারিয়েছিল বাংলাদেশ দল। এছাড়া কিউইদের বিপক্ষে খেলা ১৩ ম্যাচেই মিলেছে পরাজয়।

এবার আগের সব পরিসংখ্যান বদলে প্রাপ্তির খাতায় কিছু একটা নিয়ে দেশে ফিরতে চান সাইফউদ্দিন, ‘প্রত্যাশা অবশ্যই থাকবে। কারণ ওয়ানডেতে আমরা অনেক ভালো দল। আমরা যদি ভালো খেলতে পারি, দিনটা যদি আমাদের হয়, অবশ্যই ফলাফল আমাদের পক্ষে কথা বলবে। আমাদের প্রাপ্তির খাতা একদমই শূন্য, তো আমাদের চেষ্টা থাকবে এ সিরিজ থেকে কিছু নিয়ে যেন দেশে যেতে পারি ইনশাআল্লাহ। বাকিটা আল্লাহর হাতে।’

প্রথমদিনের গুচ্ছ অনুশীলনের বিষয়ে পেস বোলিং অলরাউন্ডার বলেছেন, ‘আজকে প্র্যাকটিসে সবার আগে ফিল্ডিং নিয়ে কাজ করেছি, শর্ট ক্যাচ এবং হাই ক্যাচ নিয়ে। কারণ এখানে বাতাসের একটা ব্যাপার থাকে। এটা মানিয়ে নিতে ক্যাচিং করা।’

‘এরপর আমরা ছোট ছোট সেশনে ব্যাটিং-বোলিং করি। শেষে একটু ফিটনেস করি, যেহেতু আমরা সাত দিন ফিটনেস খুব বেশি করতে পারিনি। যার কারণে আমরা রানিং করি, ট্রেইনারের নির্দেশনা অনুযায়ী আমরা রানিংটা করলাম। তো আরও যতদিন সময় পাব, ছোট ছোট ট্রেনিং করে নিজেকে মানিয়ে নেয়ার চেষ্টা করব ইনশাআল্লাহ।’

এআরবি/এসএএস/জিকেএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]