পেয়ারা নিয়ে ছাত্রলীগ নেত্রীদের সংঘর্ষের ঘটনায় মামলা

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি বরিশাল
প্রকাশিত: ০১:২২ পিএম, ১৭ জুলাই ২০১৭

গাছের পেয়ারা পাড়াকে কেন্দ্র করে বরিশাল ব্রজমোহন (বিএম) কলেজের বনমালী গাঙ্গুলী ছাত্রীনিবাসে ছাত্রলীগের দুই নেত্রী ও তাদের অনুসারীদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনায় আদালতে মামলা করা হয়েছে।

সোমবার সংঘর্ষে আহত বিএম কলেজের গণিত দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্রী শারমীন আক্তার বাদী হয়ে ছাত্রলীগ নেত্রী হেনা আক্তার এবং তার অনুসারী ঝুমুর আক্তার ও ফাতেমা আক্তারকে আসামি করে চিফ ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে মামলাটি করেন। 

আদালতের বিচারক মোহাম্মদ আলী হোসাইন বনমালী গাঙ্গুলী ছাত্রীনিবাসে তত্ত্বাবধায়ককে তদন্ত সাপেক্ষে আগামী ৭ কার্য দিবসের মধ্যে প্রতিবেদন জমা দেয়ার নির্দেশ দেন। 

মামলায় শারমীন আক্তার উল্লেখ করেন, আসামিরা পুরুষ সন্ত্রাসী ও মাদকসেবীদের ছত্রছায়ায় বিভিন্ন ধরনের অপরাধমূলক কর্মকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত। এমনকি তারা অনৈতিক কর্মকাণ্ডেও জড়িত রয়েছে। 

হোস্টেলের সাধারণ ছাত্রীদের অপরাধমূলক কর্মকাণ্ডে জড়িত করার চেষ্টা করে ব্যর্থ হয় তারা। তাদের ওই সকল কর্মকাণ্ডে বাধা দিলে তারা ক্ষুব্ধ হয়। এসব ঘটনাকে কেন্দ্র করে গত ১৪ জুলাই আসামিরা পূর্ব পরিকল্পিতভাবে আমাদের ওপর হামলা চালায়। 

এ সময় শারমীন ও মারিয়াকে হত্যার উদ্দেশ্যে ওড়না দিয়ে গলায় ফাঁস দেয় আসামিরা। পরে তাদের ব্যবহৃত লাখ টাকা মূল্যের দুই স্বর্ণের চেইন ছিনিয়ে নেয়া হয় বলেও মামলায় উল্লেখ করা হয়। 

প্রসঙ্গত, গত ১৪ জুলাই বিএম কলেজের বনমালী গাঙ্গুলীতে পেয়ারা পাড়াকে কেন্দ্র করে ছাত্রলীগের দুই নেত্রী ও তাদের অনুসারীদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়।

এ সময় গণিত দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্রী শারমিন আক্তার, একই বিভাগের প্রথম বর্ষের ছাত্রী মারিয়া হোসেন ও ইসরাত জাহান, উদ্ভিদবিদ্যা বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্রী কান্তা ইসলাম এবং ব্যবস্থাপনা বিভাগের ছাত্রী মুনিরা আক্তার আহত হন। এদের মধ্যে শারমিন, মারিয়া ও ইসরাতকে মেডিকেলে ভর্তি করা হয়। আহতরাও ছাত্রলীগের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত।

সাইফ আমীন/এএম/এমএস

বিনোদন, লাইফস্টাইল, তথ্যপ্রযুক্তি, ভ্রমণ, তারুণ্য, ক্যাম্পাস নিয়ে লিখতে পারেন আপনিও - [email protected]