দুর্গোৎসবকে ঘিরে রঙিন নরসিংদী

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি নরসিংদী
প্রকাশিত: ০৫:২৭ পিএম, ১৩ অক্টোবর ২০১৮

বর্ণিল সাজ-সজ্জায় শারদীয় দুর্গোৎসবের আয়োজনে নরসিংদী রঙিন হয়ে উঠেছে। বৈচিত্র সাজসজ্জা, চোখ ধাঁধানো আলোকসজ্জা ও সাউন্ড সিস্টেমে আগন্তুকদের মুগ্ধ করার জন্য আয়োজকরা কেনো কমতি রাখেনি। জেলা শহর থেকে শুরু করে গ্রামের পূজা মণ্ডপগুলোতে দেবী দুর্গাকে বরণ করে নেয়ার শেষ পর্যায়ের প্রস্তুতি চলছে।

প্রতি বছরের মতো এবারও নরসিংদীর পূজা মণ্ডপগুলোতে জেলার পাশাপাশি দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে কয়েক লাখ হিন্দু ধর্মালম্বীদের সমাগম হবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন সংশ্লিষ্টরা। এদিকে নিদিষ্ট সময়ের মধ্যে দেবীর প্রতিমাকে মণ্ডপে পৌঁছে দিতে মৃৎশিল্পীদের চোখে যেন এখন ঘুম নেই। শেষ মুহূর্তে প্রতিমাকে তুলির আঁচরে জীবন্ত করে তোলার চেষ্টায় মগ্ন তারা।

Narsingdi-Durga-Puja

নরসিংদী জেলা পূজা উদযাপন পরিষদ সূত্র জানায়, জেলায় এ বছর ৩৪৩টি পূজা মণ্ডপে দুর্গাপূজা অনুষ্ঠিত হবে। এদের মধ্যে নরসিংদী সদরে ৯৬টি, মনোহরদীতে ৪৬টি, শিবপুরে ৭৩টি, রায়পুরায় ৬৪টি, পলাশে ৪২টি ও বেলাবতে ২২টি পূজা অনুষ্ঠিত হবে। যা গত বছরের চেয়ে একটি বেশি।

শহরের বেশ কয়েকটি প্রতিমা শিল্পালয় ঘুরে দেখা যায়, দুর্গাপূজার প্রস্তুতি প্রায় শেষের দিকে মৃৎ শিল্পীরা আপন মনে প্রতিমা রাঙাতে ব্যস্ত। কাপড় পরিধান ও তুলির আচঁরে প্রতিমাকে জীবন্ত করে তুলছে। এরই মধ্যে পরিপূর্ণ প্রতিমাগুলো শিল্পালয় থেকে মণ্ডপে নেয়া হচ্ছে। আবার কিছু কিছু মণ্ডপেই প্রতিমা তৈরি করা হচ্ছে।

Narsingdi-Durga-Puja

সেবাসংঘ দুর্গা মণ্ডপের প্রতিমা শিল্পী জগদ্বিশ অধিকারী বলেন, দর্শনার্থীদের চাহিদার প্রেক্ষিতে এবছর পুরোনো মাটির আদলে হওয়া থিমের সঙ্গে মিল রেখে চারু ও কারুকলার সংমিশ্রনে প্রতিমা তৈরি করেছি। আধুনিক যে ভাবধারায় প্রতিমা তৈরি হচ্ছে এতে মায়ের প্রতি ভক্তি নষ্ট হচ্ছে। এবার আমরা মা দূর্গার দেবী মূর্তিতে ফিরিয়ে নেয়ার চেষ্টা করছি।

প্রতিবছরের মতো এবারও দর্শনার্থীদের চাহিদা পূরণে কমতি রাখেনি শহরের বড় বড় পূজা মন্ডপ কমিটি। শহরের সেবা সংঘ, বাগবিতান ক্লাব, শিববাগ, অগ্রণী সংঘ, ক্রীড়া চক্র, বৌয়াকুড় দুর্গা মণ্ডপের প্রস্তুতির কমতি নেই। পূজা মণ্ডপে দৃষ্টিনন্দন প্রতিমা, বৈচিত্র সাজসজ্জা, চোখ ধাঁধানো আলোকসজ্জা ও সাউন্ড সিস্টেমের সমারোহ ঘটিয়েছে আয়োজকরা। অন্যান্য বছরের ন্যয় এবারও জেলার সবচেয়ে ব্যয়বহুল দুর্গা পূজার আয়োজন করছে শহরের মধ্যকান্দাপাড়ার বাগবিতান ক্লাব। পূজাটির বাজেট ধরা হয়েছে প্রায় ৩০ লাখ টাকা। যার বেশির ভাগই লাইট এবং সাউন্ডে ব্যয় হচ্ছে।

Narsingdi-Durga-Puja

জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি সূর্যকান্ত দাস বলেন, পূজায় সরকারি অনুদানসহ জনপ্রতিনিধি ও রাজনৈতিক ব্যক্তিবর্গরা পূজা মন্ডপগুলোতে অনুদান দিয়েছে। অন্যান্য বছরের মতো এবারও নরসিংদীতে ঝাঁকজমকপূর্ণ শারদীয় দুর্গোৎসব পালিত হবে। তবে আবহাওয়া ভালো থাকলে আশা করছি পূজায় নরসিংদীর পাশাপাশি বিভিন্ন জেলা থেকে কয়েকলাখ মানুষের সমাগম হবে।

নরসিংদী পুলিশ সুপার সাইফুল্লাহ আল মামুন বলেন, পূজায় পুলিশ ও সাদা পোষাকের পুলিশ নিরাপত্তার দায়িত্ব পালন করবে। তাদের সহযোগিতার জন্য থাকবে আনসার ও মণ্ডপের নিজস্ব স্বেচ্ছাসেবক দল। এছাড়া পুলিশ সুপারের কার্যালয় থেকে বেশ কয়েকটি স্পেশাল টিম নিরাপত্তার দায়িত্ব পালন করবে। পাশাপাশি অপ্রীতিকর ঘটনা রোধে পূজা মন্ডপগুলোতে গোয়েন্দা নজরধারীর ব্যবস্থা করা হয়েছে।

সঞ্জিত সাহা/আরএ/জেআইএম

আপনার মতামত লিখুন :