একই অবস্থা মাউন্ট এলিজাবেথেও

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১০:৩৪ পিএম, ০৪ মার্চ ২০১৯

মারাত্মক হৃদরোগে আক্রান্ত আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের এখন সিঙ্গাপুরের মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। সোমবার বাংলাদেশ সময় সন্ধ্যা ৭টা ৪০ মিনিটে সিঙ্গাপুরের অ্যারোস্পেস রোডের সেলেটর বিমানবন্দরে অবতরণ করে ওবায়দুল কাদেরকে বহনকারী এয়ার অ্যাম্বুলেন্সটি। সেখান থেকে সরাসরি মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালে নেয়া হয় তাকে।

চিকিৎসা নিতে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালে আসছেন, গতকাল রোববারই এ সংবাদ প্রচার হয়। আজ তিনি এসেছেন জেনে মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতাল চত্বরে ভিড় করেন স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীসহ শুভানুধ্যায়ীরা।

সিঙ্গাপুরের বাংলার কণ্ঠ’র সম্পাদক মহসিন মালহার জাগো নিউজকে জানান, গুরুতর অসুস্থ ওবায়দুল কাদের মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালে পৌঁছেছেন- এমন খবর শোনার সঙ্গে সঙ্গে হাসপাতাল চত্বরে ভিড় করেন শতাধিক বাংলাদেশি। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে ভিড় সামলাতে এ সময় হিমশিম খেতে হয়।

এর আগে, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) করোনারি ইনটেনসিভ কেয়ার ইউনিটে (সিআইসিইউ) চিকিৎসাধীন থাকা অবস্থায় ওবায়দুল কাদেরের শরীরে সংক্রমণরোধে সিসিইউতে প্রবেশ না করতে নির্দেশনা দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তার নির্দেশনা অনুসারে বিএসএমএমইউর করোনারি কেয়ার ইউনিট (সিসিইউ), ইনটেনসিভ করোনারি কেয়ার ইউনিট (আইসিসিইউ) হাই-ডিপেনডেন্সি ইউনিট (এইচডিইউ) ও অন্যান্য অস্ত্রোপচার কক্ষে প্রবেশের দরজার ওপর একটি নোটিশ টানিয়ে দেয়া হয়।

সেখানে লেখা হয়, ‘অনারেবল প্রাইম মিনিস্টার অর্ডার্ড নট টু এন্টার ইন সিসিইউ, প্লিজ কো-অপারেট আস’। অর্থাৎ মাননীয় প্রধানমন্ত্রী সিসিইউতে প্রবেশ না করতে নির্দেশ দিয়েছেন। এজন্য অনুগ্রহপূর্বক আমাদের সহযোগিতা করুন।

এদিন বেলা ৩টা ২০ মিনিটের দিকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) থেকে ওবায়দুল কাদেরকে নিয়ে একটি অ্যাম্বুলেন্স বিমানবন্দরের দিকে রওনা হয়। শাহজালাল থেকে সিঙ্গাপুর থেকে আসা এয়ার অ্যাম্বুলেন্সটি বিকেল ৪টা ২১ মিনিটে উড্ডয়ন করে এবং বাংলাদেশ সময় সন্ধ্যা ৭টা ৪০ মিনিটে সিঙ্গাপুরের অ্যারোস্পেস রোডের সেলেটর বিমানবন্দরে অবতরণ করে। সেখান থেকে সরাসির অ্যাম্বুলেন্সে করে মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালে নেয়া হয় কাদেরকে।

মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালের ইন্টারভেনশনাল কার্ডিওলোজি বিভাগের সিনিয়র কনসালট্যান্ট ও প্রিন্সিপাল ডক্টর ফিলিপ কোহ এর তত্ত্বাবধানে তিনি এখন চিকিৎসাধীন।

ওবায়দুল কাদেরের সর্বশেষ শারীরিক অবস্থা পর্যবেক্ষণ শেষে ভারতের প্রখ্যাত হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ দেবী শেঠী জানান, ইউরোপ-আমেরিকায় যে ধরনের চিকিৎসা হয় এখানে (বিএসএমএমইউ) তার চেয়ে কোনো অংশে কম হয়নি। খুব ভালো চিকিৎসা হয়েছে। ওবায়দুল কাদেরের স্ত্রীর দিকে তাকিয়ে দেবী শেঠী বলেন, ইউর হাসবেন্ড ইজ লাকি। যে চিকিৎসা করা হয়েছে এর চেয়ে বেশি কিছু করার নেই। তিনি এখন সেভ পজিশনে আছেন।

রোববার (৩ মার্চ) সকালে তীব্র শ্বাসকষ্ট ও বুকে ব্যথা নিয়ে বিএসএমএমইউতে ভর্তি হন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক। তাকে সিসিইউতে ভর্তি করে এনজিওগ্রাম করা হয়। এনজিওগ্রামে তার হৃদপিন্ডের রক্তনালীতে তিনটি ব্লক ধরা পড়ে। এ সময় সার্জনরা একটি ব্লকে রিং (স্ট্যান্ডিং) পড়ান। এ সময় তিনি ম্যাসিভ হার্ট অ্যাটাক করলে তাকে দ্রুত সিআইসিইউতে ভেন্টিলেশন সাপোর্ট দেয়া হয়।

আরএম/এমএআর/বিএ

টাইমলাইন  

আপনার মতামত লিখুন :