নিষেধ সত্ত্বেও ভিড় কমছে না হাসপাতালে

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০৮:০৭ পিএম, ০৩ মার্চ ২০১৯

বার বার নিষেধ করা সত্ত্বেও আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরকে দেখতে স্রোতের মতো হাসপাতালে আসছেন নেতাকর্মীরা। তারা ভেতরে প্রবেশ করতে না পারলেও ডি ব্লকের গেটের সামনে ভিড় করছেন। এতে অন্য রোগীরাও বিব্রত বোধ করছেন।

রোববার সকাল থেকেই চিকিৎসকরা বার বার বলছেন হাসপাতালে ভিড় না করতে। প্রধানমন্ত্রীও ওবায়দুল কাদেরকে দেখতে এসে এ বিষয়ে দলীয় নেতাকর্মীদের নির্দেশনা দিয়েছেন। তারপরও নেতাকর্মীরা হাসপাতালে ভিড় করছেন।

kader

সকাল সাড়ে ৭টায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে বুকের ব্যথা নিয়ে ভর্তি হন ওবায়দুল কাদের। অসুস্থ ওবায়দুল কাদেরকে দেখতে ও তার স্বাস্থ্যের খোঁজ নিতে হাসপাতালে ভিড় করেন নেতাকর্মীরা।

রাজনৈতিক নেতাকর্মীদের পাশাপাশি মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারাও এসেছেন। ইতোমধ্যে হাসপাতালে তাকে দেখতে আসেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল, এইচ টি ইমাম, হাসানুল হক ইনু, সালমান এফ রহমান, আবদুস সোবহান গোলাপ, সাংগঠনিক সম্পাদক আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন, পানিসম্পদ উপমন্ত্রী এনামুল হক শামীম, আহমদ হোসেন, অসীম কুমার উকিল, স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি মোল্লা মো. আবু কাউছার, সাধারণ সম্পাদক পঙ্কজ নাথ, ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আতিকুল ইসলাম, গাজীপুরের মেয়র জাহাঙ্গীর আলম, সাবেক মন্ত্রী অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম, ফরিদুন্নাহার লাইলী, উপ-প্রচার সম্পাদক আমিনুল ইসলাম, ইসাহাক আলী খান পান্না, ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগ প্রমুখ।

সর্বশেষ বিকেলে ব্রিফিংয়েও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক কনক কান্তি বড়ুয়া সাংবাদিকদের বলেন, ‘আপনারা প্রচার করেন। কেউ যেন এখানে না আসে। দর্শনার্থী এলে খুব অসুবিধা হয়। চিকিৎসায় ব্যাঘাত ঘটে। এছাড়া ডি ব্লকটা পুরোটাই হার্টের রোগী। তারাও অসুবিধা বোধ করে। প্রধানমন্ত্রী আমাকে বলেছেন, এরপর যদি আমিও আসি আমাকেও ঢুকতে দেবেন না।’

এফএইচএস/এনডিএস/পিআর

টাইমলাইন  

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]